ইন্দো-আর্য ভাষাসমূহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইন্দো-আর্য
ভৌগলিক বিস্তারদক্ষিণ এশিয়া
ভাষাগত শ্রেণীবিভাগইন্দো-ইউরোপীয়
উপবিভাগ
আইএসও ৬৩৯-২ / inc
{{{mapalt}}}
প্রধান ইন্দো-আর্য ভাষাসমূহের ভৌগোলিক বিস্তৃতি

ইন্দো-আর্য ভাষাসমূহ ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষাপরিবারের সদস্য ইন্দো-ইরানীয় ভাষাসমূহের একটি শাখা।

এসআইএল ইন্টারন্যাশনালের করা ২০০৫ সালের প্রাক্কলন অণুযায়ী ২০৯ টি ইন্দো-আর্য ভাষা আছে। এদের মধ্যে হিন্দি-উর্দু সংখ্যা প্রায় ৫৪ কোটি, বাংলা প্রায় ২০ কোটি, পাঞ্জাবি ১০ কোটি, মারাঠি ৭ কোটি, গুজরাটি ৪ কোটি ৫০ লক্ষ, নেপালি প্রায় ৪ কোটি, ওড়িয়া প্রায় ৩ কোটি এবং সিন্ধি প্রায় ২ কোটি। সব মিলিয়ে ইন্দো-আর্য ভাষাসমূহের মাতৃভাষী সংখ্যা প্রায় ৯০ কোটি।

শ্রেণীবিন্যাস[সম্পাদনা]

উত্তরাঞ্চল আর্য[সম্পাদনা]

নেপালি ভাষা এই শ্রেণীর প্রধান ভাষা। এছাড়াও গাড়োয়ালি, কুমায়োনি এই শ্রেণীর অন্তর্গত।

উত্তরপশ্চিমী আর্য[সম্পাদনা]

পাঞ্জাবি, সিন্ধি এবং ডোগরি এই পরিবারের অন্তর্গত। এদের সম্পর্কিত ভাষাসমূহও এই শ্রেণীর অংশ।

কেন্দ্রীয় আর্য[সম্পাদনা]

হিন্দুস্তানি ভাষা সমূহ এই শ্রেণীর অন্তর্গত। হিন্দিউর্দু এবং তৎসংলগ্ন ভাষাসমূহ কেন্দ্রীয় শ্রেণীর অন্তর্গত।

পূর্বী আর্য[সম্পাদনা]

বাংলা, অসমীয়া, ওড়িয়া, এবং ভোজপুরি এই শ্রেণীর অন্তর্গত। ভারতবর্ষের পূর্বাঞ্চলে এই শ্রেণীর ভাষাসমূহ কথিত হয়।

দ্বৈপ্য ইন্দো আর্য[সম্পাদনা]

ভারতপাকিস্তানের কাশ্মীর অঞ্চলে এই ভাষাগোষ্ঠীর ভাষাসমূহ প্রচলিত। এদের মধ্যে কাশ্মীরি অন্যতম।

দক্ষিণী আর্য[সম্পাদনা]

মারাঠি, সিংহলি, ধিবেহী, এবং কোঙ্কণি এই শ্রেণীর অন্তর্গত।

পশ্চিমী আর্য[সম্পাদনা]

গুজরাটি, রাজস্থানী, মারোয়াড়ী, এবং রোমানি এই শ্রেণীর অন্তর্গত।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]