শাইখ সিরাজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শাইখ সিরাজ
Shykh Seraj interviews a farmer.jpg
ময়মনসিংহে একজন কৃষকের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন শাইখ সিরাজ
জন্ম৭ সেপ্টেম্বর, ১৯৫৪
পেশাসাংবাদিকতা
পরিচিতির কারণ‌ কৃষি সাংবাদিকতা
পুরস্কারস্বাধীনতা পুরস্কার

শাইখ সিরাজ একজন বাংলাদেশি সাংবাদিক, কৃষি উন্নয়ন ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব। শাইখ সিরাজ কৃষি সাংবাদিকতাসহ নানামুখী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে গ্রামীণ জীবনে জাগরণ সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করছেন। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনে জনপ্রিয় কৃষিভিত্তিক অনুষ্ঠান মাটি ও মানুষ ও নিজস্ব মালিকানাধীন বেসরকারি টিভি চ্যানেল চ্যানেল আইতে হৃদয়ে মাটি ও মানুষ নামক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন।[১] কৃষি সাংবাদিকতায় অবদান রাখার জন্য ২০১৮ সালে তিনি স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ করেন।[২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

শাইখ সিরাজ ১৯৫৪ সালের ৭ই সেপ্টেম্বর চাঁদপুরে জন্মগ্রহণ করেন।[৩] খিলগাঁও সরকারি উচ্চবিদ্যালয়, নটরডেম কলেজঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কাটে তার শিক্ষাজীবন। তিনি ভূগোলে সম্মানসহ মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করে সাংবাদিকতা পেশায় যুক্ত হন।[৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড চ্যানেল আই’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও বার্তাপ্রধান। তার কৃষিবিষয়ক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় দেশের সব পত্রপত্রিকা ও টেলিভিশনে কৃষিভিত্তিক কার্যক্রমের পরিধি বেড়েছে। [৫] তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন এর মাটি ও মানুষ নামক টিভি প্রোগ্রামের জনপ্রিয় উপস্থাপককৃষি ব্যক্তিত্ব। [৬] উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে আধুনিক কৃষি ও বিভিন্ন উন্নত চাষ পদ্ধতি, কৃষি ব্যবস্থাপনা, বেকার ও শিক্ষিত যুবকদের কৃষিকাজে উৎসাহিত করা হতো। তিনি 'হৃদয়ে মাটি ও মানুষ' নামে চ্যানেল আইতে সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন। চ্যানেল আইতে জাতীয় সংবাদে প্রতিদিনের কৃষি সংবাদ চালুর মধ্য দিয়ে তিনিই প্রথম দেশের গণমাধ্যমে কৃষিকে প্রাত্যহিক গুরুত্বের মধ্যে নিয়ে আসেন। এর ধারাবাহিকতায় চ্যানেল আইতে একটি পৃথক ও বিশেষ বুলেটিন আকারে প্রচার শুরু হয় কৃষি সংবাদ।

প্রকাশিত গ্রন্থাবলি[সম্পাদনা]

  • মৎস্য ম্যানুয়েল
  • মাটি ও মানুষের চাষবাস
  • ফার্মার্স ফাইল
  • মাটির কাছে, মানুষের কাছে
  • বাংলাদেশের কৃষি : প্রেক্ষাপট ২০০৮
  • কৃষি ও গণমাধ্যম
  • কৃষি বাজেট কৃষকের বাজেট (সম্পাদিত)
  • আমার স্বপ্নের কৃষি
  • কৃষি বাজেট কৃষকের বাজেট (২০১১)
  • সমকালীন কৃষি ও অন্যান্য প্রসঙ্গ (২০১১)

পুরস্কার[সম্পাদনা]

এছাড়া ২০১১ সালে যুক্তরাজ্যের হাউস অব কমন্স পেয়েছেন বিশেষ সম্মাননা।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]