গোমস্তাপুর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
এই নিবন্ধটি গোমস্তাপুর উপজেলা সম্পর্কিত। ইউনিয়নের জন্য গোমস্তাপুর ইউনিয়ন নিবন্ধ দেখুন।
গোমস্তাপুর
উপজেলা
গোমস্তাপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
গোমস্তাপুর
গোমস্তাপুর
বাংলাদেশে গোমস্তাপুর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′২৬″ উত্তর ৮৮°১৬′৫৬″ পূর্ব / ২৪.৭৭৩৮৯° উত্তর ৮৮.২৮২২২° পূর্ব / 24.77389; 88.28222স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′২৬″ উত্তর ৮৮°১৬′৫৬″ পূর্ব / ২৪.৭৭৩৮৯° উত্তর ৮৮.২৮২২২° পূর্ব / 24.77389; 88.28222 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ রাজশাহী বিভাগ
জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা
আয়তন
 • মোট ৩১৮.১৩ কিমি (১২২.৮৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (2011)[১]
 • মোট ২,৪০,১২৩
 • ঘনত্ব ৭৫০/কিমি (২০০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৬৫%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড ৬৩২১ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

গোমস্তাপুর উপজেলা বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

এই উপজেলাটি মোট আয়তন ৩২৮.১৩ বর্গ কিলোমিটার। উপজেলার ভৌগোলিক অবস্থান উত্তর অক্ষাংশের ২৪°৪৪' এবং ২৪°৫৮' অক্ষাংশ ও পূর্ব গোলার্ধে ৮৮.১৩ এবং ৮৮.৫৮ দ্রাঘিমাংশের অবস্থিত। উত্তরে ভারত, পূর্বে পোরশা উপজেলানিয়ামতপুর উপজেলা, দক্ষিণে শিবগঞ্জ উপজেলা এবং পশ্চিমে ভোলাহাট উপজেলা

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এক সময় এখানে রাজার গোমস্তারা বসবাস করত সে সময় থেকে এই উপজেলার নাম গোমস্তাপুর রাখা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলা ০৮ টি ইউনিয়ন নিয়ে ১৯১৭ সালের ১৫ জুলাই প্রতিষ্ঠা হয়। ঐ সালের ২১ সেপ্টেম্বর গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হওয়ার পর ১৯১৮ সালের ১ জানুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গোমস্তাপুর থানার কার্যক্রম চালু হয়। এই এলাকার ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায় যে গোমস্তাপুরের সভ্যতা বহুপ্রাচীন। এছাড়াও এ এলাকায় কিছুক্ষুদ্র জাতিসত্বা বসবাস করে যাদের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি রয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধ

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন গোমস্তাপুর উপজেলা ৭ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। পাক সেনারা রহনপুর এ. বি. সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে গড়ে তোলে সেনা ক্যাম্প। অত্র এলাকার মুক্তিযোদ্ধারা ১৯৭১ সালের ১১ ডিসেম্বর লেফটেন্যান্ট রফিকের নেতৃত্বে পাক সেনাদেরকে বিতাড়িত করতে সক্ষম হন। সেই থেকে গোমস্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের উদ্যোগে প্রতিবছর ১১ ডিসেম্বর দিনটিকে রহনপুর মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করা হয়।[২]

রহনপুর এ অবস্থিত উপজেলা পরিষদ অফিস এর প্রধান ফটক

ভৌগোলিক উপাত্ত[সম্পাদনা]

ভাষা ও সংষ্কৃতি[সম্পাদনা]

গোমস্তাপুর উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগোলিক অবস্থান এই উপজেলার মানুষের ভাষা ওসংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অবস্থিত এইউপজেলাকে ঘিরে রয়েছে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ তথা রাজশাহী বিভাগের অন্যান্য উপজেলাসমূহ। এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন কথ্য ভাষায় মহা প্রাণধ্বনি অনেকাংশে অনুপস্থিত, অর্থাৎ ভাষা সহজীকরণের প্রবণতা রয়েছে। [৩] এ উপজেলায় সাঁওতাল, মুন্ডা, ওঁরাও, মাহালী প্রভৃতি আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বসবাস লক্ষ্য করা যায়। এবং এসব জনগোষ্ঠির স্বতন্ত্র ভাষা ও সংস্কৃতির প্রভাব আশে পাশের অঞ্চলেও বিশেষ ভাবে লক্ষনীয়।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

এই উপজেলার ইউনিয়ন সমূহ হচ্ছে -

  1. রহনপুর ইউনিয়ন
  2. গোমস্তাপুর ইউনিয়ন
  3. চৌডালা ইউনিয়ন
  4. বোয়ালিয়া ইউনিয়ন
  5. পার্বতীপুর ইউনিয়ন
  6. রাধানগর ইউনিয়ন
  7. আলীনগর ইউনিয়ন
  8. বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়ন

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী এই এলাকার জনসংখ্যা ২,৪০,১২৩ জন; এর মধ্যে পুরুষ ১,২২,৩২৫ জন ও মহিলা ১,১৭,৭৯৮ জন। এখানে মুসলিম ২,২২,৫৬৮ জন, হিন্দু ১৪,৪২০ জন, বৌদ্ধ ১,৬২৪ জন, খ্রিস্টান ৫০ জন এবং অন্যান্য ১,৪৬১ জন।

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ[সম্পাদনা]

কৃষি[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. "এক নজরে গোমস্তাপুর উপজেলা"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। জুন, ২০১৪। সংগৃহীত : ১৫ জুলাই ২০১৪ 
  2. "রহনপুর মুক্ত দিবস পালিত" [Rahanpur- Free Day]চাঁপাই সংবাদ (Bengali ভাষায়)। ডিসেম্বর ১১th, ২০১৫। 
  3. "ভাষা ও সংষ্কৃতি" [Language and culture] (Bengali ভাষায়)। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]