ধোবাউড়া উপজেলা

স্থানাঙ্ক: ২৫°৫′৪৪″ উত্তর ৯০°৩১′৫৮″ পূর্ব / ২৫.০৯৫৫৬° উত্তর ৯০.৫৩২৭৮° পূর্ব / 25.09556; 90.53278
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ধোবাউড়া
উপজেলা
ধোবাউড়া ময়মনসিংহ বিভাগ-এ অবস্থিত
ধোবাউড়া
ধোবাউড়া
ধোবাউড়া বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
ধোবাউড়া
ধোবাউড়া
বাংলাদেশে ধোবাউড়া উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৫′৪৪″ উত্তর ৯০°৩১′৫৮″ পূর্ব / ২৫.০৯৫৫৬° উত্তর ৯০.৫৩২৭৮° পূর্ব / 25.09556; 90.53278 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগময়মনসিংহ বিভাগ
জেলাময়মনসিংহ জেলা
সরকার
 • ভাইস-চেয়ারম্যানআবুল ফজল (বিএনপি)
আয়তন
 • মোট২৫১.৮৮ বর্গকিমি (৯৭.২৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট৪,২৭,৯১৩
 • জনঘনত্ব১,৭০০/বর্গকিমি (৪,৪০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৬৫%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৩০ ৬১ ১৬
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

ধোবাউড়া বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

অবস্থান[সম্পাদনা]

ধোবাউড়া উপজেলার উত্তরে ভারত, দক্ষিণে ফুলপুর উপজেলা, পূর্বে দুর্গাপুর উপজেলা ও পশ্চিমে হালুয়াঘাট উপজেলা

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

ধোবাউড়া উপজেলায় বর্তমানে ৭টি ইউনিয়ন রয়েছে। সম্পূর্ণ উপজেলার প্রশাসনিক কার্যক্রম ধোবাউড়া থানার আওতাধীন।[২]

ইউনিয়নসমূহ:

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পুর্বে এর নাম ছিল জিক্কোয়া বাজার।ধোবাউড়া নামটি এসেছে ধোপা থেকে । বহু বছর আগে এই এলাকায় অনেক ধোপা বাস করত। কিন্তু কোন এক কারণে ধোপারা এই এলাকা ছেড়ে চলে যায় । আর তার পর থেকেই এই এলাকার নাম হয়েছে ধোবাউড়া। এই উপজেলায় রয়েছে গাড় পাহাড়। এখানে আছে সাদা মাটির পাহাড়। এই সব দেখতে সারা দেশ হতে প্রতিদিন অনেক লোক আসে।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

এই এলাকার শিক্ষা ব্যবস্থা তেমন উন্নত না। এখানে প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ও কিন্ডার গার্ডেন স্কুল আছে। ধোবাউড়া এলাকায় নারী শিক্ষায় অগ্রনী ভূমিকা পালন করে চলেছে ধোবাউড়া মহিলা ডিগ্রী কলেজ।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

প্রধান অর্থকারী ফসল ধান । অনেকেই মাছ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে । এখানে নানা পেশার লোকজন বসবাস করে । কৃষি কাজই এই এলাকার মানুষের জীবিকা নির্বাহের প্রধান উপায়।

নদীসমূহ[সম্পাদনা]

ধোবাউড়া উপজেলায় একটি নদী এবং একটি নদ আছে। সেগুলো হচ্ছে নিতাই নদী এবং কংস নদ[৩][৪]

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব:[সম্পাদনা]

তহুরা খাতুন

মারিয়ামান্ডাঅধীনায়ক।

শিউলি আজিম:ফুটবলার।

সানজিদা আক্তার:ফুটবলার।

শামছুন্নাহার (ফুটবলার):ফুটবলার।

র্মাজিয়া আক্তার

মাহমুদা আক্তার

বিবিধ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে ধোবাউড়া"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুলাই ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "ইউনিয়নসমূহ - ধোবাউড়া উপজেলা"dhobaura.mymensingh.gov.bd। জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ৩ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ 
  3. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠা ৪০০, আইএসবিএন ৯৭৮-৯৮৪-৮৯৪৫-১৭-৯
  4. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক (ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি। ঢাকা: কথাপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ৬০৬। আইএসবিএন 984-70120-0436-4 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]