তিউনিসিয়া জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তিউনিসিয়া
দলের লোগো
ডাকনামنسور قرطاج (কারতাজের ঈগল)
অ্যাসোসিয়েশনতিউনিশীয় ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচমুনজির কিবাইর
অধিনায়কওয়াহবি খাজরি
সর্বাধিক ম্যাচসাদুক সাসি (১১৬)
শীর্ষ গোলদাতাইসসাম জিমায়া (৩৬)
মাঠহাম্মাদি আগ্রেবি অলিম্পিক স্টেডিয়াম
ফিফা কোডTUN
ওয়েবসাইটwww.ftf.org.tn/fr/
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৩৫ বৃদ্ধি ১ (৩১ মার্চ ২০২২)[১]
সর্বোচ্চ১৪ (এপ্রিল – মে ২০১৮)
সর্বনিম্ন৬৫ (জুলাই ২০১০)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৬০ হ্রাস ১৫ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ২৪ (মে ১৯৫৪)
সর্বনিম্ন৮৬ (নভেম্বর ২০১৩)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 তিউনিসিয়া ৪–২ লিবিয়া 
(তিউনিস, তিউনিসিয়া; ২ জুন ১৯৫৭)[৩]
বৃহত্তম জয়
 তিউনিসিয়া ৮–১ চীনা তাইপেই 
(রোম, ইতালি; ১৮ আগস্ট ১৯৬০)
 তিউনিসিয়া ৭–০ টোগো 
(তিউনিস, তিউনিসিয়া; ৭ জানুয়ারি ২০০০)
 তিউনিসিয়া ৭–০ মালাউই 
(রাদিস, তিউনিসিয়া; ২৬ মার্চ ২০০৫)
 তিউনিসিয়া ৮–১ জিবুতি 
(রাদিস, তিউনিসিয়া; ১২ জুন ২০১৫)
বৃহত্তম পরাজয়
 হাঙ্গেরি ১০–১ তিউনিসিয়া
(বুদাপেস্ট, হাঙ্গেরি; ২৪ জুলাই ১৯৬০)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৫ (১৯৭৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৭৮)
আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্স
অংশগ্রহণ২০ (১৯৬২-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (২০০৪)
কনফেডারেশন্স কাপ
অংশগ্রহণ১ (২০০৫-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (২০০৫)

তিউনিসিয়া জাতীয় ফুটবল দল (আরবি: منتخب تونس لكرة القدم‎‎, ফরাসি: Équipe de Tunisie de football, ইংরেজি: Tunisia national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তিউনিসিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম তিউনিসিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা তিউনিশীয় ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৬০ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৫৭ সালের ২রা জুন তারিখে, তিউনিসিয়া প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; তিউনিসিয়ার তিউনিসে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে তিউনিসিয়া লিবিয়াকে ৪–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

৬০,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট হাম্মাদি আগ্রেবি অলিম্পিক স্টেডিয়ামে নাসুর কারতাজ নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় তিউনিসিয়ার রাজধানী তিউনিসে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন মুনজির কিবাইর এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন সেঁত-এতিয়েনের মধ্যমাঠের খেলোয়াড় ওয়াহবি খাজরি

তিউনিসিয়া এপর্যন্ত ৫ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৭৮ ফিফা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করা। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সে তিউনিসিয়া অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ১টি (২০০৪) শিরোপা জয়লাভ করেছে। এছাড়াও, তিউনিসিয়া ২০০৫ ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করেছে।

রাদি জাইদি, খালিদ বাদ্রা, কাইস গুদবান, ইসসাম জিমায়া এবং ওয়াহবি খাজরির মতো খেলোয়াড়গণ তিউনিসিয়ার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তিউনিসিয়া তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১৪তম) অর্জন করে এবং ২০১০ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৬৫তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে তিউনিসিয়ার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২৪তম (যা তারা ১৯৫৪ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৮৬। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৩৩ হ্রাস  চেক প্রজাতন্ত্র ১৫০০.৬২
৩৪ হ্রাস  অস্ট্রিয়া ১৫০০.৩৭
৩৫ বৃদ্ধি  তিউনিসিয়া ১৪৯৯.৮
৩৬ হ্রাস  রাশিয়া ১৪৯৩.৪২
৩৭ বৃদ্ধি  ক্যামেরুন ১৪৮০.৪৮
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৫৮ হ্রাস  স্লোভেনিয়া ১৬২৬
৫৮ বৃদ্ধি  ইসরায়েল ১৬২৬
৬০ হ্রাস ১৫  তিউনিসিয়া ১৬১২
৬১ বৃদ্ধি  মালি ১৬০৭
৬২ বৃদ্ধি  উত্তর আয়ারল্যান্ড ১৬০৩

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ ফ্রান্সের অংশ ছিল ফ্রান্সের অংশ ছিল
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
চিলি ১৯৬২ উত্তীর্ণ হয়নি
ইংল্যান্ড ১৯৬৬ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
মেক্সিকো ১৯৭০ উত্তীর্ণ হয়নি
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ প্রথম পর্ব ৯ম ১০ ১৫
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬ ১১
ইতালি ১৯৯০ ১০ ১০ ১১
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ গ্রুপ পর্ব ২৬তম ১৫
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ গ্রুপ পর্ব ২৯তম ১০ ২৮
জার্মানি ২০০৬ গ্রুপ পর্ব ২৪তম ১০ ২৫
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ উত্তীর্ণ হয়নি ১২ ১৮
ব্রাজিল ২০১৪ ১৪ ১০
রাশিয়া ২০১৮ গ্রুপ পর্ব ২৪তম ১৫
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট গ্রুপ পর্ব ৫/২৩ ১৫ ১৩ ২৫ ১০৪ ৫৭ ২৮ ১৯ ১৮০ ৮৪

অর্জন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 
  3. "Liste des matchs internationaux de la Tunisie"rsssf.com (ফরাসি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ .

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]