পোল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পোল্যান্ড
দলের লোগো
ডাকনামবিয়াউ-জেরভনি (সাদা-লাল)
ওরউই (ঈগল)
অ্যাসোসিয়েশনপোলীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনউয়েফা (ইউরোপ)
প্রধান কোচইয়েজি বজেঞ্চেক
অধিনায়করবার্ত লেভানদোস্কি
সর্বাধিক ম্যাচরবার্ত লেভানদোস্কি (১১৫)
শীর্ষ গোলদাতারবার্ত লেভানদোস্কি (৬৩)
মাঠপোল্যান্ড জাতীয় স্টেডিয়াম
ফিফা কোডPOL
ওয়েবসাইটwww.pzpn.pl
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৭ হ্রাস ৪ (১৯ নভেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ(আগস্ট ২০১৭)
সর্বনিম্ন৭৮ (নভেম্বর ২০১৩)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৯ হ্রাস ৮ (২৬ নভেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ(১০ সেপ্টেম্বর ১৯৭৫[৩])
সর্বনিম্ন৫৮ (অক্টোবর ১৯৫৬)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 হাঙ্গেরি ১–০ পোল্যান্ড 
(বুদাপেস্ট, হাঙ্গেরি; ১৮ ডিসেম্বর ১৯২১)
বৃহত্তম জয়
 পোল্যান্ড ১০–০ সান মারিনো 
(কিয়েলৎসে, পোল্যান্ড; ১ এপ্রিল ২০০৯)
বৃহত্তম পরাজয়
 ডেনমার্ক ৮–০ পোল্যান্ড 
(কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক; ২৬ জুন ১৯৪৮)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৮ (১৯৩৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যতৃতীয় স্থান (১৯৭৪, ১৯৮২)
উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ৪ (২০০৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যকোয়ার্টার-ফাইনাল (২০১৬)

পোল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল (পোলীয়: Reprezentacja Polski w piłce nożnej, ইংরেজি: Poland national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে পোল্যান্ডের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম পোল্যান্ডের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা পোলীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯২৩ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৫৫ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা উয়েফার সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯২১ সালের ১৮ই ডিসেম্বর তারিখে, পোল্যান্ড প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; হাঙ্গেরির বুদাপেস্টে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে পোল্যান্ড হাঙ্গেরির কাছে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

৫৮,৫৮০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট পোল্যান্ড জাতীয় স্টেডিয়ামে বিয়াউ-জেরভনি নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারশে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন ইয়েজি বজেঞ্চেক এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন বায়ার্ন মিউনিখের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় রবার্ত লেভানদোস্কি

পোল্যান্ড এপর্যন্ত ৮ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৭৪ এবং ১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান অর্জন করা। অন্যদিকে, উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপে পোল্যান্ড এপর্যন্ত ৪ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে উয়েফা ইউরো ২০০৮-এ কোয়ার্টার-ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা পর্তুগালের সাথে ১–১ গোলের ড্র করার পর পেনাল্টিতে ৫–৩ গোলে পরাজিত হয়েছে। পোল্যান্ড মিউনিখে অনুষ্ঠিত ১৯৭২ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে স্বর্ণ পদক জয়লাভ করে; মন্ট্রিলে এবং বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে রৌপ্য পদক জয়লাভ করে।

রবার্ত লেভানদোস্কি, ইয়াকুব বোয়াশচিকভস্কি, মিখাউ জেভওয়াকভ, জেগজ লাতো এবং এবি স্মোলারেকের মতো খেলোয়াড়গণ পোল্যান্ডের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে পোল্যান্ড তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (৫ম) অর্জন করে এবং ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৭৮তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে পোল্যান্ডের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২য় (যা তারা ১৯৭৫ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৫৮। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৯ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২৫ বৃদ্ধি  ইউক্রেন ১৫৩৫.০৮
২৬ বৃদ্ধি  জাপান ১৫৩১.৫৩
২৭ হ্রাস  পোল্যান্ড ১৫৩০.৬২
২৮ বৃদ্ধি  মরক্কো ১৫২৫.৫
২৯ হ্রাস  তিউনিসিয়া ১৫১২.১৩
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৬ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২৭ অপরিবর্তিত  দক্ষিণ কোরিয়া ১৭৮৭
২৮ বৃদ্ধি ৩২  কানাডা ১৭৮৫
২৯ হ্রাস  পোল্যান্ড ১৭৭০
৩০ বৃদ্ধি  রাশিয়া ১৭৬১
৩১ বৃদ্ধি  জাপান ১৭৬০

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি
ইতালি ১৯৩৪ উত্তীর্ণ হয়নি
ফ্রান্স ১৯৩৮ প্রথম পর্ব ১১তম
ব্রাজিল ১৯৫০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
সুইডেন ১৯৫৮ উত্তীর্ণ হয়নি
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬ ১১ ১০
মেক্সিকো ১৯৭০ ১৯
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৩য় ১৬
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ দ্বিতীয় পর্ব ৫ম ১৭
স্পেন ১৯৮২ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৩য় ১১ ১২
মেক্সিকো ১৯৮৬ ১৬ দলের পর্ব ১৪তম ১০
ইতালি ১৯৯০ উত্তীর্ণ হয়নি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১০ ১০ ১৫
ফ্রান্স ১৯৯৮ ১০ ১২
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ গ্রুপ পর্ব ২৫তম ১০ ২১ ১১
জার্মানি ২০০৬ গ্রুপ পর্ব ২১তম ১০ ২৭
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ উত্তীর্ণ হয়নি ১০ ১৯ ১৪
ব্রাজিল ২০১৪ ১০ ১৮ ১২
রাশিয়া ২০১৮ গ্রুপ পর্ব ২৫তম ১০ ২৮ ১৪
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ৩য় স্থান নির্ধারণী ৮/২১ ৩৪ ১৬ ১৩ ৪৬ ৪৫ ১১৬ ৬০ ২১ ৩৫ ২২৮ ১৪১

অর্জন[সম্পাদনা]

শিরোপা[সম্পাদনা]

  • কোয়ার্টার-ফাইনাল: ২০১৬

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৯ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৬ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০২১ 
  3. "Elo ratings as on September 10th, 1975"international-football.net। ৬ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]