গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র
দলের লোগো
ডাকনামচিতাবাঘ
অ্যাসোসিয়েশনকঙ্গোলীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচক্রিস্টিয়ান এনসেঙ্গি-বিম্বে
অধিনায়কমার্সেল থিসেরঁদ
সর্বাধিক ম্যাচইসামা এমপেকো (৭১)
শীর্ষ গোলদাতাদিউমের্সি এমবোকানি (১৭)
মাঠস্তাদ দ্য মার্টায়ার্স
ফিফা কোডCOD
ওয়েবসাইটwww.fecofa.cd
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৬৭ হ্রাস ১ (৩১ মার্চ ২০২২)[১]
সর্বোচ্চ২৮ (জুলাই–আগস্ট ২০১৭)
সর্বনিম্ন১৩৩ (অক্টোবর ২০১১)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৮১ বৃদ্ধি ৪ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ২০ (মার্চ ১৯৭৪)
সর্বনিম্ন১১১ (সেপ্টেম্বর ২০১০)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 বেলজীয় কঙ্গো ৩–২ উত্তর রোডেসিয়া 
(বেলজীয় কঙ্গো; ১৯৪৮)
বৃহত্তম জয়
 গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ১০–১ জাম্বিয়া 
(কিনশাসা, গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র; ২২ নভেম্বর ১৯৬৯)
বৃহত্তম পরাজয়
 যুগোস্লাভিয়া ৯–০ জাইর 
(গেলসেনকির্খেন, পশ্চিম জার্মানি; ১৮ জুন ১৯৭৪)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ১ (১৯৭৪-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৭৪
আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্স
অংশগ্রহণ১৯ (১৯৬৫-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (১৯৬৮, ১৯৭৪)

গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: DR Congo national football team; এছাড়াও ডিআর কঙ্গো, পূর্বে জাইর এবং কঙ্গো-কিনশাসা নামে পরিচিত) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা কঙ্গোলীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৬৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৪৮ সালে, গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; বেলজীয় কঙ্গোয় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র বেলজীয় কঙ্গো হিসেবে উত্তর রোডেশিয়াকে ৩–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

১,২৫,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট স্তাদ দ্য মার্টায়ার্সে চিতাবাঘ নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের রাজধানী কিনশাসায় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন ক্রিস্টিয়ান এনসেঙ্গি-বিম্বে এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ফেনারবাহচের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় মার্সেল থিসেরঁদ

গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র এপর্যন্ত ১ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যেখানে তাদের সাফল্য হচ্ছে ১৯৭৪ ফিফা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করা। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ২টি (১৯৬৮, ১৯৭৪) শিরোপা জয়লাভ করেছে।

ইসামা এমপেকো, শঁসেল এমবেম্বা, রবের্ত কিদিয়াবা, দিউমের্সি এমবোকানি এবং সেদ্রিক বাকাম্বুর মতো খেলোয়াড়গণ গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৭ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (২৮তম) অর্জন করে এবং ২০১১ সালের অক্টোবর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৩৩তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২০তম (যা তারা ১৯৭৪ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১১১। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৬৫ হ্রাস  স্লোভেনিয়া ১৩৭৮.২৩
৬৬ হ্রাস  আলবেনিয়া ১৩৭১.৮৬
৬৭ হ্রাস  গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ১৩৬৫.০৭
৬৮ বৃদ্ধি  সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৩৫৬.৯৯
৬৯ হ্রাস  দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩৫৬.০১
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৭৯ হ্রাস  বুলগেরিয়া ১৫১১
৮০ হ্রাস ১১  বাহরাইন ১৫১০
৮১ বৃদ্ধি  গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ১৫০৪
৮২ হ্রাস  গুয়াতেমালা ১৫০৩
৮৩ হ্রাস ২১  আর্মেনিয়া ১৫০১

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ গ্রুপ পর্ব ১৬তম ১৪ ১১ ২০
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬ নিষিদ্ধ নিষিদ্ধ
ইতালি ১৯৯০ উত্তীর্ণ হয়নি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ ১১ ১০
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ১০ ১৭ ১৮
জার্মানি ২০০৬ ১০ ১৪ ১০
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১৪
ব্রাজিল ২০১৪ ১১
রাশিয়া ২০১৮ ২০ ১০
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট গ্রুপ পর্ব ১/২১ ১৪ ৭৪ ৩৪ ১৭ ২৩ ১২১ ৮২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]