বাংলাদেশে সুফিবাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাংলাদেশে সুফিবাদের ইতিহাস অনেকটা সমগ্র ভারতীয় উপমহাদেশের অনুরূপ। ভারতকে দাবি করা হয়ে থাকে বিশ্বের সুফিবাদের পাঁচটি প্রধান কেন্দ্রের একটি, অন্য চারটি হল পারস্য (মধ্য এশিয়াসহ), বাগদাদ, সিরিয়া এবং উত্তর আফ্রিকা। সুফি সাধকরা হিন্দুস্তানে (ভারত) সুফিবাদের গুপ্তরহস্যমূলক দীক্ষা প্রচার করতে থাকেন যা খুব সহজেই সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে ভারতের আধ্যাত্মিক সত্য সন্ধানীদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা লাভ করে। [১]

বাংলাদেশে সুফি মতবাদ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের সুফি মতবাদ ও এর চর্চা কোরআন এবং হাদিসকে অনুরসণ করে প্রতিষ্ঠিত। কোরআনের রহস্যমূলক আয়াতগুলো সুফিবাদের মূল উৎস। নফস্ (অহং), জিকির (স্মরণ), ইবাদত (প্রার্থনা), মোরাকাবা (ধ্যান), মেরাজ (আল্লাহর সাক্ষাত লাভ), তাজাল্লি (স্বর্গীয় দীপন), তাওহীদ (আল্লাহর একত্ববাদ), ফানা (নির্বাণ) এবং বাকা (অস্তিত্ব) এর ধারণাই হচ্ছে সুফিবাদের মৌলিক উৎস যা বাংলাদেশে চর্চা করা হয়ে থাকে। [২]

বাংলাদেশের সুফিদের তালিকা[সম্পাদনা]

[সম্পাদনা]

[সম্পাদনা]

[সম্পাদনা]

[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Some Aspects of Khwaja Enayetpuri’s Sufism by Md Golam Dastagir, published in Copula, vol. 19, June 2002, Department of Philosophy, Jahangirnagar, University, Bangladesh
  2. "SUFISM IN BANGLADESH Shah, Syed, Chishty, Nizami, Bukhari, Qadari"dargahsharif.com 

http://www.dailykalerkotha.com/view/post/1419