বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস
আমীরইসমাইল নূরপুরী[১]
মহাসচিবমামুনুল হক[২]
প্রতিষ্ঠাতাআজিজুল হক
ছাত্র শাখাবাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস
যুব শাখাবাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিস
মতাদর্শইসলামপন্থা
রাজনৈতিক অবস্থানডানপন্থী
ধর্মইসলাম
নির্বাচনী প্রতীক
রিক্সা
ওয়েবসাইট
bangladeshkhelafatmajlis.org
বাংলাদেশের রাজনীতি
রাজনৈতিক দল
নির্বাচন

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস বাংলাদেশের একটি রাজনৈতিক দল। ইসমাইল নূরপুরী এই দলের আমীর[৩] এবং মামুনুল হক[৪] সাধারণ সম্পাদক। দলটির নির্বাচনী প্রতীক হল রিকশা

ইতিহাস[সম্পাদনা]

খেলাফত মজলিস ১৯৮৯ সালের ৮ ডিসেম্বর আজিজুল হক নেতৃত্বাধীন খেলাফত আন্দোলন, আহমদ আবদুল কাদেরের নেতৃত্বাধীন ইসলামী যুব শিবির, ভাসানীর ন্যাপের একাংশের নেতা, তমদ্দুন মজলিসের সংগঠক ভাষাসৈনিক মসউদ খানের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠত হয়। প্রথম আমির ছিলেন আবদুল গফফার। তারপর আমির হন আজিজুল হক। তার অবর্তমানে আমির হন প্রিন্সিপাল হাবিবুর রহমান। ২০০৫ সালে খেলাফত মজলিস দুই ভাগ হয়ে যায়। একটি ভাগ খেলাফত মজলিস নামে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটে থেকে যায়। অপর ভাগটি জোট থেকে বেড়িয়ে গিয়ে ‘বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস’ নাম ধারণ করে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সাথে আওয়ামী লীগের ৫ দফা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ওই চুক্তিতে আওয়ামী লীগের অঙ্গীকার ছিল, তারা নির্বাচিত হলে কুরআন-সুন্নাহর সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো আইন করবে না। বামপন্থীদের চাপে সে চুক্তি কার্যকর করা যায় নি।[৫][৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নতুন কমিটি গঠন"দৈনিক নয়াদিগন্ত। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২২ 
  2. "বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব পদ ছাড়লেন মাহফুজ, দায়িত্ব পেলেন মামুন"বাংলা ট্রিবিউন। ১০ অক্টোবর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২২ 
  3. "খেলাফত মজলিসের আমীর ইসমাঈল নূরপুরী, মহাসচিব মাহফুজুল হক"বাংলা ট্রিবিউন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-০৯ 
  4. "কুরআনের সমাজ প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হলে সন্ত্রাস দুর্নীতি দূর হবে -মাওলানা মাহফুজুল হক"www.dailyinqilab.com [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "হাসিনা ইন চাইল্ডহুড এডমাইরেড শায়খুল!"ডেইলি স্টার। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০২১ 
  6. কামাল আহমেদ। "রাজনীতির নীরব রূপান্তর"www.prothomalo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-২০