আগ্রাবাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আগ্রাবাদ
স্থান
আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকা
আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকা
আগ্রাবাদ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
আগ্রাবাদ
আগ্রাবাদ
চট্টগ্রামে আগ্রাবাদের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°১৯′২৫″ উত্তর ৯১°৪৮′৩৩″ পূর্ব / ২২.৩২৩৭৪১৭° উত্তর ৯১.৮০৯১১৯৩° পূর্ব / 22.3237417; 91.8091193স্থানাঙ্ক: ২২°১৯′২৫″ উত্তর ৯১°৪৮′৩৩″ পূর্ব / ২২.৩২৩৭৪১৭° উত্তর ৯১.৮০৯১১৯৩° পূর্ব / 22.3237417; 91.8091193
দেশবাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাচট্টগ্রাম জেলা
থানাডবলমুরিং
স্থানআগ্রাবাদ
গোড়াপত্তন১৯৪০-এর দশক
জাতীয় সংসদের আসন২৮৮ নং (চট্টগ্রাম-১১)
সরকার
 • ধরনসিটি কর্পোরেশন
 • সাংসদএম. আবদুল লতিফ (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ)
সময় অঞ্চলBST (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৪১০০
কলিং কোড৩১
ওয়েবসাইটchittagong.gov.bd

আগ্রাবাদ, বাংলাদশের চট্টগ্রাম জেলার ডবলমুরিং থানার অন্তর্গত প্রধান বাণিজ্যিক এলাকা যা শহরের দক্ষিণ দিকে অবস্থিত।

চট্টগ্রাম শহরের অধিকাংশ সরকারি, বেসরকারি ও ব্যক্তিমালিকানায় পরিচালিত বাণিজ্যিক-অবাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান-শাখা-বাণিজ্যিক কার্যালয়সমূহ এখানে অবস্থিত। দেশি-বিদেশি ব্যাংক-বীমা কোম্পানিসহ চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এখানে অবস্থিত।

অবস্থান[সম্পাদনা]

আগ্রাবাদের উত্তরে চৌমুহনি, দক্ষিণে বারেক বিল্ডিং মোড়, পূর্বে মোগলটুলী, মাদারবাড়ি এবং পশ্চিমে হালিশহর অবস্থিত। বাদামতলী মোড়, আগ্রাবাদ সংযোগ সড়ক, শেখ মুজিব সড়ক, ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক আগ্রাবাদের সাথে সংযুক্ত। এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ স্থানের মধ্যে রয়েছে স্ট্র্যান্ড রোড, সদরঘাট

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৪৭ সালের পূর্বে আগ্রাবাদ মূলত একটি গ্রাম ছিলো। পরবর্তীতে ঔপনিবেশিক শাসনকাল শেষ হওয়ার পর ১৯৫০ সালের দিকে এ অঞ্চলের উন্নয়ন শুরু হয়। পরবর্তীতে আশির দশক থেকে এ এলাকায় নগরায়ন শুরু হয়।

প্রতিষ্ঠান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

সরকারি ভবন[সম্পাদনা]

বিদ্যুৎ ভবন

সরকারি কলোনি[সম্পাদনা]

  • ওয়াসা কলোনি
  • গেজেটেড অফিসার্স কলোনি
  • টি অ্যান্ড টি স্টোর কলোনি
  • পোস্টাল অফিসার্স কলোনি[১]
  • পি. টি. এন্ড টি. কলোনি
  • বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনি
  • আগ্রাবাদ সিজিএস (মসজিদ) কলোনি (এছাড়াও চট্টগ্রাম গভর্নেমন্ট সার্ভিস কলোনি)
  • হেলথ্ কলোনি

উল্লেখযোগ্য ভবনসমূহ[সম্পাদনা]

বিপণীকেন্দ্র[সম্পাদনা]

  • লাকি প্লাজা
  • সাউথল্যান্ড সেন্টার
  • ব্যাংকক সিঙ্গাপুর মার্কেট
  • আখতারুজ্জামান সেন্টার[২]
  • ডিউ ডুবাই মার্কেট[৩]

ধর্মীয় ভবন[সম্পাদনা]

  • আগ্রাবাদ জামে মসজিদ
  • আগ্রাবাদ সিজিএস কলোনি জামে মসজিদ
  • আগ্রাবাদ টি এন্ড টি জামে মসজিদ
  • পোস্টাল কলোনি জামে মসজিদ
  • বাদামতলী জামে মসজিদ
  • গেজেটেড অফিসার্স কলোনি জামে মসজিদ
  • আবুল খায়ের চৌধুরী জামে মসজিদ
  • ডেবারপাড় রেলওয়ে কলোনি জামে মসজিদ
  • আগ্রাবাদ বহুতল কলোনি জামে মসজিদ
  • সিডিএ মসজিদ

অন্যান্য[সম্পাদনা]

  • আগ্রাবাদ কমিউনিটি সেন্টার
  • গুলজার কনভেনশন সেন্টার
  • আগ্রাবাদ কনভেনশন সেন্টার
  • ক্লাসিক কনভেনশন সেন্টার
  • সি ভিউ কমিউনিটি সেন্টার
  • বনানী কমপ্লেক্স
  • ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার
  • হোটেল আগ্রাবাদ[৪]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম সরকারি বাণিজ্য কলেজ
আগ্রাবাদ মহিলা কলেজ

বেসরকারি মেডিকেল কলেজ[সম্পাদনা]

কলেজ[সম্পাদনা]

বিদ্যালয়[সম্পাদনা]

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

গণমাধ্যম[সম্পাদনা]

ক্রীড়া[সম্পাদনা]

আগ্রাবাদ অফিসার্স টেনিস ক্লাব[সম্পাদনা]

আগ্রাবাদ অফিসার্স টেনিস ক্লাব

আগ্রাবাদ অফিসার্স টেনিস ক্লাব আগ্রাবাদের চট্টগ্রাম সরকারি কর্মচারি (সিজিএস) কলোনির প্রবেশদ্বারে পাশে আবস্থিত। ২০১২ সালে সিসিএল আন্তঃক্লাব টেনিস প্রতিযোগিতায় এই ক্লাব বিজয়ী হয়।[১০]

দর্শনীয় স্থানসমূহ[সম্পাদনা]

জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর[সম্পাদনা]

জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর

জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর আগ্রাবাদে অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর যা মূলত বাংলাদেশের বিভিন্ন নৃতাত্ত্বিক জাতিগোষ্ঠীর জীবনপ্রণালী এবং পারস্পরিক বোঝাপড়া ও সহকর্মী-অনুভূতি লালনের জন্য প্রতিষ্ঠিত।[১১] এই জাদুঘরে বাংলাদেশের উপজাতীয় মানুষের ইতিহাস সমন্বিত উপকরণের প্রদর্শন করা হয়েছে।[১২] এশিয়ায় মাত্র দুটি জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘরের মধ্যে এটি একটি।[১৩]

আগ্রাবাদ জাম্বুরী পার্কের ফোয়ারা

অন্যান্য[সম্পাদনা]

ভগ্নী এলাকা[সম্পাদনা]

ভগ্নী এলাকা থানা
মাদারবাড়ি ডবলমুরিং
হালিশহর হালিশহর

গ্যালারি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "নিরাত্তাহীনতায় আগ্রাবাদ পোস্ট অফিস কলোনির আড়াইশ' পরিবার"দৈনিক মানবকণ্ঠ। অক্টোবর ২৬, ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ০৩, ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ এলাকায় আখতারুজ্জামান সেন্টারে আগুন"bdtodaynews.com। মে ০৩। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ০৩, ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ=, |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. "আগ্রাবাদ ডিউ ডুবাই মার্কেটের ছাদে যুবক খুন"। দেশের পত্র। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১০-৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেল হোটেল আগ্রাবাদ"। দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-৩০ 
  5. "আগ্রাবাদ মহিলা কলেজ"। agrabadmcollege.edu.bd। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০৩ 
  6. "আগ্রাবাদ বালিকা বিদ্যালয়"। agrabadbalika.edu.bd। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-২৯ 
  7. "খাজা আজমেরী কেজি উচ্চ বিদ্যালয়"। kakghs.webs.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০৩ 
  8. "বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়"। bbchs.tsmts.com। ৪ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০৩ 
  9. "চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল"। bbchs.tsmts.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০৩ 
  10. "সিসিএল আন্তঃ ক্লাব টেনিসে আগ্রাবাদ অফিসার্স ক্লাব চ্যাম্পিয়ান"দৈনিক আজাদী। জুলাই ০৪, ২০১২। ২০১৬-০৩-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৪  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ=, |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  11. মোহাম্মদ আবদুল বাতেন (জানুয়ারি ২০০৩)। "জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর"। সিরাজুল ইসলাম[[বাংলাপিডিয়া]]ঢাকা: এশিয়াটিক সোসাইটি বাংলাদেশআইএসবিএন 984-32-0576-6। ১৪ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৫Ethnological Museum located in the Agrabad Commercial area in Chittagong. It was established in order to foster mutual understanding and fellow-feeling among all the ethnic groups of Bangladesh.  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য); ইউআরএল–উইকিসংযোগ দ্বন্দ্ব (সাহায্য)
  12. "Ethnological Museum - Promoting Understanding in a Multi-Ethnic Society"। bangladesh.com। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৫The Ethnological Museum is one of the most specialized museums in Bangladesh and is a symbol of unity and progress.  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  13. ফায়িকা জাবিন সিদ্দিকা। "জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর"। parjatanbd.com। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০১৫There are only two Ethnological Museum in Asia. One in Japan and another are in Chittagong of Bangladesh.  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]