শেখ সাদী খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
শেখ সাদী খান
জন্ম নাম শেখ সাদী খান
জন্ম (১৯৫০-০৩-০৩) ৩ মার্চ ১৯৫০ (বয়স ৬৮)
ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বাংলাদেশ
ধরন চলচ্চিত্রের গান, ফোক
পেশা সঙ্গীত পরিচালক, সুরকার, রেকর্ড প্রডিউসার
বাদ্যযন্ত্রসমূহ কীবোর্ড, বেহালা
কার্যকাল ১৯৭৬–বর্তমান
লেবেল সংগীতা, লেজার ভিশন
সহযোগী শিল্পী

শেখ সাদী খান (জন্ম: ৩ মার্চ, ১৯৫০) একজন স্বনামধন্য বাংলাদেশী সঙ্গীত পরিচালক ও সুরকার। তাকে বাংলাদেশের সঙ্গীতের জাদুকর বলে অভিহিত করা হয়।[১] তাঁর বেড়ে ওঠা উপমহাদেশের বিখ্যাত এক সঙ্গীত পরিবারে। শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের পাশাপাশি তিনি চলচ্চিত্রের সঙ্গীতেও সুর করেছেন। তিনি ঘানি চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে এবং ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সুরকার বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

শেখ সাদী খান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিবপুর গ্রামের এক সঙ্গীত সমৃদ্ধশালী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা উপমহাদেশের বিখ্যাত সুর সাধক ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ। সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ তার জ্যাঠা। প্রথম সঙ্গীতের তালিম নেন বাবার কাছ থেকে। তার বাবার কাছ থেকেই তবলা ও তারপর বেহালা শেখেন। তার শৈশব কাটে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লায়। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট স্কুলে পড়াশুনার শুরু। ঢাকার ধানমন্ডি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মেট্রিক পাশ করেন। এরপর আইমিউজ ও বিমিউজ করেন ঢাকা সঙ্গীত মহাবিদ্যালয় থেকে। ১৯৬৩ সালে মেজভাই সরোদ বাদক ওস্তাদ বাহাদুর খানের সাথে ভারতে যান বেহালায় উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শেখার জন্য। তিন বছর তার অধীনে তালিম নিয়ে ১৯৬৫ সালে বাংলাদেশে ফিরে আসেন।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৬৫ সালে রেডিও পাকিস্তানে বেহালা বাদক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৬৮ সালে বেহালা বাদক হিসেবে তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে যোগ দেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় যুক্ত হন স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের সঙ্গে। বাংলাদেশ স্বাধীন হলে বাংলাদেশ বেতারে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে যোগ দেন। ২০০৭ সালের মার্চে প্রধান সঙ্গীত প্রযোজক হিসেবে বাংলাদেশ বেতার থেকে অবসর নেন।[২]

শেখ সাদী খান সত্তরের দশকে সঙ্গীত পরিচালক খন্দকার নুরুল আলমের সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্রে পদার্পণ করেন। ১৯৭৭ সালে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে সারাদেশে খ্যাতি লাভ করেন।[১] প্রথম চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করার সুযোগ পান ১৯৮০ সালে আবদুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত এখনই সময় চলচ্চিত্রে। এ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে বাচসাস পুরস্কার পান।[৩] ১৯৮৫ সালে তার সঙ্গীত পরিচালনায় সুখের সন্ধানে চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী মান্না দে[৪] এছাড়া তিনি আশা ভোঁসলে, সাবিনা ইয়াসমিন, এন্ড্রু কিশোর, রুনা লায়লা সহ দেশী বিদেশী অনেক শিল্পীর সাথে কাজ করেন।

পারিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

শেখ সাদী খানের স্ত্রী রওশন আরা বেগম মারা গেছেন। তাদের একমাত্র ছেলে রওনাক ফেরদৌস খান জোনাক ও পুত্রবধু শবনম শারমিন লন্ডনে থাকে। মেয়ে সাগুফতা জাবীন নূপুর এইচএসবিসি ব্যাংকে চাকরি করেন ও জামাতা জাহিদুর রহমান ইস্টার্ন ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট।[২]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র গীতিকার কণ্ঠশিল্পী টীকা
১৯৮০ এখনই সময় মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান সাবিনা ইয়াসমিন, আবিদা সুলতানা, প্রণব দাস প্রথম চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা
বিজয়ী: বাচসাস পুরস্কার সেরা সঙ্গীত পরিচালক
কলমিলতা আবু হেনা মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল আবদুল জব্বার, আপেল মাহমুদ, রফিকুল আলম, শম্পা রেজা
১৯৮৩ মোহনা
১৯৮৪ প্রিন্সেস টিনা খান মনিরুজ্জামান মনির, আখতারুজ্জামান সাবিনা ইয়াসমিন, এন্ড্রু কিশোর, রুনা লায়লা, খালিদ হাসান মিলু, রুলিয়া রহমান, লায়লা পারভীন, নার্গিস পারভীন, নাদিরা বেগম, দিলরুবা খান, আবদুল মান্নান রানা
১৯৮৫ মহানায়ক মাসুদ করিম সুবীর নন্দী
সুখের সন্ধানে শহীদুল হক খান মান্না দে [৫]
১৯৮৬ পরিণীতা সুবীর নন্দী
১৯৯৫ বাবার আদেশ আহমদ জামান চৌধুরী, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, মুনশী ওয়াদুদ
১৯৯৬ পোকা মাকড়ের ঘর বসতি আখতারুজ্জামান
১৯৯৭ হাঙর নদী গ্রেনেড মুনশী ওয়াদুদ মুশতারি
২০০৪ এক খন্ড জমি শাহাবুদ্দীন নাগরী শাহাবুদ্দীন নাগরী, শাকিলা জাফর আবহ সঙ্গীত পরিচালনা
২০০৬ ঘানি মুনশী ওয়াদুদ বিজয়ী: জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক
২০১০ ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না কবির বকুল শাম্মী আখতার, এস আই টুটুল বিজয়ী: জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ সুরকার
২০১১ মধুমতি মুনশী ওয়াদুদ
দুই পুরুষ মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান, কবির বকুল, মিলন খান
২০১২ রাজা সূর্য খাঁ গাজী মাজহারুল আনোয়ার, মুনশী ওয়াদুদ, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল, শাহ আলম সরকার কনক চাঁপা, এন্ড্রু কিশোর, রুনা লায়লা, এস আই টুটুল, চন্দনা মজুমদার, ফেরদৌস আরা
২০১৩ একই বৃত্তে মুনশী ওয়াদুদ এন্ড্রু কিশোর, সুজন রাজা, আসাদ গোলদার
কোথায় আছ কেমন আছ মুনশী ওয়াদুদ হৈমন্তী রক্ষিত [৬]
২০১৪ লাভ ইউ লাভ ইউ শহীদুল্লাহ ফরায়েজী আসিফ আকবর, দিনাত জাহান মুন্নী [৭]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

শেখ সাদী খান দুই বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও তিনবার বাচসাস পুরস্কার অর্জন করেন।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. শাহনাজ খালিদ (১৭ মে ২০১৪)। "Sheikh Sadi Khan [শেখ সাদী খান]"দ্য ডেইলি স্টার। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  2. "মৃত্যুর পর কোনো পদকের প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না : শেখ সাদী খান"বাংলা মিউজিক। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  3. নিশীথ সূর্য (১২ জানুয়ারি ২০১৬)। "আমি বিপরীত বাতাসে কাজ করা লোক : শেখ সাদী খান"এনটিভি অনলাইন। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  4. "মান্না দে স্মরণে শেখ সাদী খান"দৈনিক মানবকণ্ঠ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২৪ অক্টোবর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  5. "'দিন প্রতিদিন'এ মান্না দে স্মরণে শেখ সাদী খান"সাতদিন। ২৪ অক্টোবর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  6. "চাষীর চলচ্চিত্রে সাদী"দৈনিক যায় যায় দিন। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  7. "শেখ সাদী খানের সুরে আসিফের গান"দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা, বাংলাদেশ। জুন ১৪, ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  8. "National Film Awards for the last fours years announced [চার বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা]"দ্য ডেইলি স্টার। ১ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০১৬ 
  9. "সাক্ষাৎকারে শেখ সাদী খান প্রতিটা গানের জন্যই আমি পুরস্কার পেতে পারতাম"দৈনিক আমার দেশ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২০ মার্চ ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৬ 
  10. "গীতিকার মাসুদ করিম পদক পেলেন ২৫ গুণী শিল্পী"পূর্ব পশ্চিম। ১২ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক