৪র্থ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (বাংলাদেশ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
৪র্থ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
পুরস্কার দেওয়া হয় ১৯৭৮ সালে চলচ্চিত্রশিল্পে গৌরবোজ্জ্বল ও অসাধারণ অবদানের জন্য
পুরস্কার প্রদান করে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি
উপস্থাপিত তথ্য মন্ত্রণালয়
ঘোষণা ১০ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৯
উপস্থাপন ১৪ নভেম্বর, ১৯৭৯ (১৪ নভেম্বর, ১৯৭৯)
স্থান রাষ্ট্রপতি ভবন, ঢাকা, বাংলাদেশ
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট
আলোকপাত
শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা রাজ্জাকবুলবুল আহমেদ
অশিক্ষিতবধূ বিদায়
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী কবরী
সারেং বৌ
সর্বাধিক পুরস্কার গোলাপী এখন ট্রেনে (৮)
 < ৩য় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ৫ম > 

৪র্থ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক চলচ্চিত্রের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য প্রদত্ত ৪র্থ আয়োজন; যা ১৯৭৯ সালে দেওয়া হয়। ১৯৭৫ সাল থেকে প্রতি বছর এটি দেয়া হচ্ছে। সরকার কর্তৃক নিযুক্ত একটি জাতীয় প্যানেল বিজয়ীদের নির্বাচন করে থাকে।[১]

সারাংশ[সম্পাদনা]

এই বছর ১৬টি শাখায় পুরস্কার প্রদান করা হয়। ৩টি শাখায় কোন পুরস্কার দেয়া হয়নি। আমজাদ হোসেনের বিখ্যাত চলচ্চিত্র ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ সর্বোচ্চ ১০ টি শাখায় পুরস্কার লাভ করে। আমজাদ হোসেন এই ছবির জন্য ৫ টি পুরষ্কার অর্জন করেন।[২]
১০ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৯ সালে পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। ১৪ নভেম্বর, ১৯৭৯ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান উপ-রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ১৯৭৮ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণ করেন।

বিজয়ীদের তালিকা[সম্পাদনা]

মেধা পুরস্কার[সম্পাদনা]

পুরস্কারের নাম বিজয়ী চলচ্চিত্র
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র আমজাদ হোসেন (প্রযোজক) গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ পরিচালক আমজাদ হোসেন গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা রাজ্জাক
বুলবুল আহমেদ
অশিক্ষিত
বধূ বিদায়[৩]
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী কবরী সারেং বৌ
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেতা আনোয়ার হোসেন গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী আনোয়ারা গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী মাস্টার শাকিল
মাস্টার সুমন
ডুমুরের ফুল
অশিক্ষিত
শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ গীতিকার আমজাদ হোসেন গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ পুরুষ সঙ্গীতশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী গোলাপী এখন ট্রেনে (আছেন আমার মোক্তার)
শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন গোলাপী এখন ট্রেনে (হায়রে কপাল মন্দ)[৪]
অলংকার (আমি তো শিল্পী নই)

কারিগরী পুরস্কার[সম্পাদনা]

পুরস্কারের নাম বিজয়ী চলচ্চিত্র
শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার আমজাদ হোসেন গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক (সাদাকালো) অরুণ রায় বধূ বিদায়
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক (রঙ্গিন) রফিকুল বারী চৌধুরী গোলাপী এখন ট্রেনে
শ্রেষ্ঠ সম্পাদক নুরুন্নবী ডুমুরের ফুল
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক মহিউদ্দিন ফারুক ডুমুরের ফুল[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "BANGLADESH NATIONAL FILM AWARD LIST FROM 1975-1990"Youtube। সংগৃহীত ৩ নভেম্বর, ২০১৫ 
  2. হৃদয় সাহা (নভেম্বর ৭, ২০১৬)। "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (১৯৭৮-১৯৮০)"বাংলা ম্যুভি ডাটাবেজ। সংগৃহীত ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭ 
  3. "এক নজরে বুলবুল আহমেদ"দৈনিক যায় যায় দিন। জুলাই ২৫, ২০১৫। সংগৃহীত ৩ নভেম্বর, ২০১৫ 
  4. "সংগীতের অহংকার সাবিনা ইয়াসমিন"দৈনিক আজাদী। ২৪ জানুয়ারি, ২০১৪। সংগৃহীত ৩ নভেম্বর, ২০১৫ 
  5. "‘বেলা অবেলা সারাবেলা’ অনুষ্ঠানে মহিউদ্দিন ফারুক"। সাতদিন। সংগৃহীত ৩ নভেম্বর, ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]