১৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (বাংলাদেশ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
১৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
পুরস্কার দেওয়া হয় ১৯৮৯ সালে চলচ্চিত্রশিল্পে গৌরবোজ্জ্বল ও অসাধারণ অবদানের জন্য
পুরস্কার প্রদান করে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি
উপস্থাপিত তথ্য মন্ত্রণালয়
উপস্থাপন ১৯৮৯
স্থান ঢাকা, বাংলাদেশ
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট দাপ্তরিক ওয়েবসাইট
আলোকপাত
শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করা হয়নি
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা আলমগীর
ক্ষতিপূরণ
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী শাবানা
রাঙ্গাভাবি
সর্বাধিক পুরস্কার সত্য মিথ্যা (৫)
 < ১৩তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ১৫তম > 

১৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক চলচ্চিত্রের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য প্রদত্ত ১৪তম আয়োজন; যা ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশের মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র সমূহের জন্য দেওয়া হয়। ১৯৭৫ সাল থেকে প্রতি বছর এটি দেয়া হচ্ছে। সরকার কর্তৃক নিযুক্ত একটি জাতীয় প্যানেল বিজয়ীদের নির্বাচন করে থাকে।[১]

সারাংশ[সম্পাদনা]

বিজয়ীদের তালিকা[সম্পাদনা]

মেধা পুরস্কার[সম্পাদনা]

পুরস্কারের নাম বিজয়ী চলচ্চিত্র
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করা হয়নি
শ্রেষ্ঠ পরিচালক এজে মিন্টু সত্য মিথ্যা[২]
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা আলমগীর ক্ষতিপূরন
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী শাবানা রাঙ্গাভাবি
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেতা ব্লাক আনোয়ার ব্যথার দান
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী খালেদা আক্তার কল্পনা জ্বীনের বাদশা
শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী জনসন সত্য মিথ্যা
শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক আলী হোসেন ব্যথার দান
শ্রেষ্ঠ গীতিকার মনিরুজ্জামান মনির চেতনা[৩]
শ্রেষ্ঠ পুরুষ সঙ্গীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর ক্ষতিপূরণ
শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা এক্সিডেন্ট

কারিগরী পুরস্কার[সম্পাদনা]

পুরস্কারের নাম বিজয়ী চলচ্চিত্র
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক আব্দুস সবুর বিরহ ব্যথা
শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার এজে মিন্টু সত্য মিথ্যা[২]
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক অরুণ রায় ভাইজান
শ্রেষ্ঠ সম্পাদক মুজিবুর রহমান দুলু সত্য মিথ্যা
শ্রেষ্ঠ শব্দ গ্রাহক মফিজুল হক ক্ষতিপূরন
শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা ছটকু আহমেদ সত্য মিথ্যা

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rashed Shaon। "চার দশকে আমাদের সেরা চলচ্চিত্রগুলো"bdnews24। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৪, ২০১২ 
  2. "স্মৃতির পটে একজন এ জে মিন্টুর সত্য মিথ্যা'" [A J Mintu's 'Satya Mithya' in the corner of Memory]। Dhaka: Media Khabor। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৩০, ২০১৫ 
  3. Selim Aowal (২০১১-১০-০৪)। "পরিবারের সবাই চেয়েছিলেন ডাক্তার হবেন তিনি হলেন গীতিকার মনিরুজ্জামান মনির"Sylhet Express। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৩১, ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]