আলী হোসেন (সঙ্গীতজ্ঞ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আলী হোসেন
সংগীত পরিচালক আলী হোসেন.jpeg
সংগীত পরিচালক আলী হোসেন
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম(১৯৪০-০৩-২৩)২৩ মার্চ ১৯৪০
কুমিল্লা, বাংলাদেশ
মৃত্যু১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১(2021-02-16) (বয়স ৮০)
বস্টন, ম্যাসাচুসেটস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ধরন
পেশা
  • সুরকার
  • সঙ্গীত পরিচালক
কার্যকাল১৯৬৬-২০০২

আলী হোসেন (২৩ মার্চ ১৯৪০ - ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১) একজন বাংলাদেশী সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন। পাঁচ দশকের কর্মজীবনে তিনি অসংখ্য জনপ্রিয় গানের সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন। তার সুরারোপিত উল্লেখযোগ্য গান হল "হলুদ বাটো মেন্দি বাটো", "অশ্রু দিয়ে লেখা এ গান", "আরে ও প্রাণের রাজা" ও "কত যে তোমাকে বেসেছি ভালো"।[১] তিনি ব্যাথার দান চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনার জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।[২]

জীবনী[সম্পাদনা]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

আলী হোসেন ১৯৪০ সালের ২৩শে মার্চ তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের (বর্তমান বাংলাদেশ) কুমিল্লা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার চাকরির কারণে তিনি পাকিস্তানের করাচিতে পড়াশোনা করেন। সেখানে নজরুল একাডেমিতে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কাজ করেছেন। এই একাডেমিতে চাকরির সুবাদে তিনি সেখানকার জনপ্রিয় সঙ্গীতের শিক্ষক পিয়ার খানের নিকট গানের তালিম নিয়েছেন।[৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মুস্তাফিজ পরিচালিত ডাক বাবু (১৯৬৬) চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে সুরকার হিসেবে আলী হোসেনের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়। এই চলচ্চিত্রে শাহনাজ রহমতুল্লাহর গাওয়া "হলুদ বাটো মেন্দি বাটো" এবং সৈয়দ আব্দুল হাদীর গাওয়া "চাতুরী জানে না মোর বধূয়া" গান দুটি জনপ্রিয়তা লাভ করে।[৪][৫] ১৯৬০-এর দশকে তিনি ঢাকা থেকে উর্দু ভাষায় নির্মিত ছোট সাহেব (১৯৬৭), কুলি (১৯৬৮), দাগ (১৯৬৯), ও আনাড়ি (১৯৬৯) চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করেন।[৩] ১৯৬৯ সালে নতুন নামে ডাকোঅবাঞ্ছিত চলচ্চিত্রের সুরারোপ করেন। নতুন নামে ডাকো চলচ্চিত্রের "কে তুমি এলে গো আমার এ জীবনে" গানটি জনপ্রিয়তা লাভ করে।[৪]

১৯৭০-এর দশকে তার সুরারোপিত অশ্রু দিয়ে লেখা (১৯৭২) চলচ্চিত্রের "অশ্রু দিয়ে লেখা এ গান" এবং বাদশা (১৯৭৫) চলচ্চিত্রের "আরে ও প্রাণের রাজা" গানগুলো জনপ্রিয়তা লাভ করে। তিনি ১৯৮৯ সালে কামাল আহমেদ পরিচালিত ব্যথার দান চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনার জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।[৪]

ব্যক্তিগত জীবন ও মৃত্যু[সম্পাদনা]

আলী হোসেনের স্ত্রী সালেহা খাতুন। এই দম্পতির একমাত্র পুত্র আসিফ হোসেন।[৫] আলী হোসেন ২০২১ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি ৮১ বছর বয়সে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের বস্টনের এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ফুসফুসের ক্যান্সারে ভুগছিলেন।[৬]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

  • ডাক বাবু (১৯৬৬)
  • ছোট সাহেব (১৯৬৭) - উর্দু
  • কুলি (১৯৬৮) - উর্দু
  • রূপকুমারী (১৯৬৮)
  • অবাঞ্ছিত (১৯৬৯)
  • নতুন নামে ডাকো (১৯৬৯)
  • দাগ (১৯৬৯) - উর্দু
  • আনাড়ি (১৯৬৯) - উর্দু
  • অধিকার (১৯৭০)
  • একই অঙ্গে এত রূপ (১৯৭০)
  • চৌধুরী বাড়ী (১৯৭২)
  • অশ্রু দিয়ে লেখা (১৯৭২)
  • জীবন নিয়ে জুয়া (১৯৭৫)
  • বাদশা (১৯৭৫)
  • জানোয়ার (১৯৭৬)
  • দাতা হাতেম তাই (১৯৭৭)
  • অঙ্গার (১৯৭৮)
  • বিজয়িনী সোনাভান (১৯৭৯)
  • চন্দ্রলেখা (১৯৮০)
  • আলতাবানু (১৯৮২)
  • ব্যাথার দান (১৯৮৯)
  • আপন ঘর (১৯৯০)
  • মায়ের দোয়া (১৯৯০)
  • রাজার মেয়ে বেদেনী (১৯৯১)
  • মায়ের আশীর্বাদ (১৯৯৩)
  • কালিয়া (১৯৯৪)
  • স্নেহ (১৯৯৪)
  • শিল্পী (১৯৯৫)
  • টাইগার (১৯৯৭)
  • জুয়াড়ী (২০০২)

পুরস্কার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "চলে গেলেন সুরস্রষ্টা আলী হোসেন"দ্য ডেইলি স্টার। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  2. রাশেদ শাওন। "চার দশকে আমাদের সেরা চলচ্চিত্রগুলো"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২৮ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  3. "'অশ্রু দিয়ে লেখা' গানের সুরকার আলী হোসেন আর নেই"দৈনিক ইত্তেফাক। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  4. "কিংবদন্তি সুরস্রষ্টা সংগীত পরিচালক আলী হোসেন আর নেই"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  5. "'কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো'র সুরকার আলী হোসেন মারা গেছেন"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  6. "সুরকার আলী হোসেনের মৃত্যু"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  7. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তদের নামের তালিকা (১৯৭৫-২০১২)"বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]