ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের লোগো
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের লোগো
টেস্ট মর্যাদা ১৯২৮
প্রথম টেস্ট বনাম ইংল্যান্ড ইংল্যান্ড, লর্ড’স, লন্ডন, ২৩-২৬ জুন, ১৯২৮
অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (টেস্ট এবং ওডিআই), কার্লোস ব্র্যাথওয়েট (টি২০আই)
কোচ অস্ট্রেলিয়া স্টুয়ার্ট ল
আইসিসি টেস্ট, ওডিআই এবং টি২০আই র‌্যাঙ্কিং ৮ম (টেস্ট)
৯ম (ওডিআই)
২য় (টি২০আই)[১] [২]
টেস্ট ম্যাচ
– বর্তমান বছর
৫০৩
সর্বশেষ টেস্ট
জয়/পরাজয়
– বর্তমান বছর
১৬৪/১৭৭ (১৭১ ড্র ও ১ টাই)
০/০ (১ ড্র)
১০ জানুয়ারি, ২০১৬ পর্যন্ত

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল, ওয়েস্ট ইন্ডিজ বা উইন্ডিজ (ইংরেজি: West Indies cricket team) বহুজাতিক ক্রিকেট দল নিয়ে গঠিত। ১৫টি ইংরেজিভাষী ক্যারিবিয় দেশ, ব্রিটিশ উপনিবেশ এবং ব্রিটিশ উপনিবেশবিহীন দ্বীপরাষ্ট্রসমূহের ক্রিকেট দলের অংশগ্রহণ ঘটেছে এতে।

১৯৭০ দশকের মাঝামাঝি সময়কাল থেকে ১৯৯০ দশকের প্রথমদিক পর্যন্ত দলটি টেস্ট ক্রিকেট এবং একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট - উভয় স্তরের ক্রিকেটে বিশ্বের অন্যান্য দলের তুলনায় একচ্ছত্র প্রাধান্য বজায় রেখেছিল। একগুচ্ছ সেরা ক্রিকেটার ঐ সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের পক্ষে খেলেছিলেন। স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স, ল্যান্স গিবস, গর্ডন গ্রীনিজ, জর্জ হ্যাডলি, ক্লাইভ লয়েড, ম্যালকম মার্শাল, অ্যান্ডি রবার্টস, আলভিন কালীচরণ, রোহন কানহাই, ফ্রাঙ্ক ওরেল, এভারটন উইকস, কার্টলি এমব্রোস, মাইকেল হোল্ডিং, জোয়েল গার্নার, স্যার ভিভ রিচার্ডস প্রমূখ ক্রিকেটারগণ আইসিসি ক্রিকেট হল অব ফেমে স্থান পেয়েছেন।[১] টেস্ট ক্রিকেটের এক ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের বর্তমান বিশ্বরেকর্ডধারী ব্রায়ান লারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের অন্যতম প্রতিভা ছিলেন।[২][৩]

এছাড়াও, লিয়ারি কনস্ট্যান্টাইন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের শুরুর দিককার সেরা খেলোয়াড়দের একজন ছিলেন। তিনি ১৯২০ থেকে ১৯৩০-এর দশক পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিনি রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৯০-এর দশকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। তখন তারা সফরকারী ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বিপক্ষে প্রথম মাঠে খেলতে নামে। ১৯২৬ সালে ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইম্পেরিয়াল ক্রিকেট কনফারেন্সে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড বা ডব্লিউআইসিবি যোগদান করে।[৪] এরপরই তারা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করে। ১৯২৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল ৪র্থ টেস্টখেলুড়ে দলের মর্যাদা লাভ করে।[৫]

সাফল্য গাঁথা[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল ১৯৭৫১৯৭৯ সালে দুইবার শিরোপা জয় করে। প্রথম ক্রিকেট দল হিসেবে পরপর দুইবার শিরোপা লাভের অধিকারীত্ব অর্জন করে। এছাড়াও প্রথম দল হিসেবে একাধারে ১৯৭৯, ১৯৮৩, ১৯৮৭ - এই তিনটি বিশ্বকাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতার ফাইনালে অংশ নিয়েছিল। ২০০৪ সালে দলটি আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়। একই বছর আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয় করে। ২০০৯ সালে আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় সেমি-ফাইনাল পর্বে উত্তীর্ণ হয়।

বিশ্বকাপ

১৯৭৫, ১৯৭৯: চ্যাম্পিয়ন; ১৯৮৩: রানার-আপ; ১৯৮৭: ১ম রাউন্ড, ১৯৯২: ১ম রাউন্ড (৬ষ্ঠ স্থান); ১৯৯৬: সেমি-ফাইনাল; ১৯৯৯, ২০০৩: ১ম রাউন্ড; ২০০৭: সুপার-এইট পর্ব (৬ষ্ঠ স্থান); ২০১১: কোয়ার্টার ফাইনাল; ২০১৫: কোয়ার্টার ফাইনাল।

আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০

২০০৭: ১ম রাউন্ড; ২০০৯: সেমিফাইনাল; ২০১০: সুপার-এইট পর্ব; ২০১২: চ্যাম্পিয়ন; ২০১৪: সেমিফাইনাল; ২০১৬: চ্যাম্পিয়ন।

মাঠসমূহ[সম্পাদনা]

টেস্ট, ওয়ানডে এবং টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার জন্যে নিম্নেবর্ণিত ১১টি স্টেডিয়াম রয়েছে। স্টেডিয়ামগুলোয় কমপক্ষে একটি টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।[৬] ১১ জুলাই, ২০১১ পর্যন্ত বন্ধনীতে সংখ্যা হিসেবে টেস্ট, ওয়ানডে এবং টুয়েন্টি২০ তুলে ধরা হয়েছে:

আরো তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার উপযোগী স্টেডিয়াম আছে; কিন্তু তা টেস্ট খেলায় ব্যবহার করা হয় না।[৭] বন্ধনীতে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার মাঠ উল্লেখ করা হলো:-

বর্তমান সদস্য[সম্পাদনা]

গত কয়েক বছর ধরে যারা নিয়মিতভাবে খেলছেন তাদের তালিকা নিম্নরূপ:-

ওপেনিং ব্যাট্সম্যান ১. লেন্ডল সিমন্স ২. কাইরান পাওয়েল ৩. ক্রিস গেইল ৪. ক্রেগ ব্রাফেট ৫. এভিন লুইস। টপ অর্ডার ব্যাট্সম্যান ১. শিমরন হেটমায়ের ২. কাইল হোপ। মিডেল অর্ডার ব্যাট্সম্যান ১. ড্যরেন ব্রাভো ২. রাজেন্দ্র চন্দ্রিকা ৩. লিওন জনসন ৪. মারলন স্যামুয়েলস ৫. জার্মেইন ব্ল্যাকউড ৬. জেসন মোহাম্মদ। ওইকেট কিপার ১. জনসন চার্লস ২. শ্যাডওইক ওয়াল্টন ৩. আন্দ্রে ফ্লেচার ৪. সাই হোপ ৫. নিকোলাস পূরাণ ৬. শেন ডাউরিচ। লোয়ার অর্ডার ব্যাট্সম্যান ১. রোভম্যান পাওয়েল ২. সুনীল অ্যাম্ব্রিস অলরাউন্ডার ১. জেসন হোল্ডার (টেস্ট ও ওডিআই অধিনায়ক) ২. কার্লোস ব্রাফেট (টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক) ৩. রোস্টন চেস ৪. কাইরন পোলার্ড ৫. আন্দ্রে রাসেল ৬. জোনাথান কার্টার ৭. অ্যাশলি নার্স ৮. সুনীল নারাইন। পেস বোলার ১. মিগুয়েল কামিন্স ২. শেলডন কটরেল ৩. শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ৪. জেরোম টেলর ৫. আলজারি জোসেফ ৬. রন্সফোর্ড বিটন। স্পিন বোলার ১. দেবেন্দ্র বিশু ২. স্যামুয়েল বাদ্রি।

কোচ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ICC Hall of Fame". ICC. Retrieved 23 September 2009.
  2. "Player Profile: Brian Lara". CricInfo. Retrieved 23 September 2009.
  3. "Player Profile: Sir Viv Richards". CricInfo. Retrieved 23 September 2009.
  4. See CricketArchive, for example, for a reference to when Test status was acquired
  5. [See, for example, 75 Years of West Indies Cricket 1928–2003 by Ray Goble and Keith AP Sandiford আইএসবিএন ১-৮৭০৫১৮-৭৮-০, the WICB authorised reference book on cricket in the West Indies. For more information on the first Test played by the Windies, see http://www.cricinfo.com/db/NATIONAL/WI/SERIES/TOURS.html West Indies Series: Test and ODI Tours. See also http://www.cricinfo.com/link_to_database/ARCHIVE/1920S/1928/WI_IN_ENG/WI_ENG_T1_23-26JUN1928.html the scorecard of the First Test played by the West Indies.]
  6. See Cricinfo for a list of Test match grounds
  7. See CricketArchive for a list of stadia that have hosted home West Indian ODIs
নাম বয়স (১৭ অক্টোবর ২০১৭) ব্যাটিংয়ের ধরণ বোলিংয়ের ধরণ ঘরোয়া দল পোষাক নং