পাকিস্তান জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাকিস্তান
পাকিস্তান ক্রিকেটের লোগো.svg
অধিনায়ক সানা মীর
আনুষ্ঠানিকভাবে ১ম খেলা ২৮ জুলাই ১৯৯৭ ব নিউজিল্যান্ড, হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ, নিউজিল্যান্ড
টেস্ট ম্যাচ
টেস্ট খেলার সংখ্যা
টেস্ট জয়/পরাজয় ০/২
ওডিআই ম্যাচ
ওডিআই খেলার সংখ্যা ৯৬
ওডিআই জয়/পরাজয় ২৫/৬৯
৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ হিসাবে


পাকিস্তান মহিলা ক্রিকেট দল পেশাদার ক্রিকেট দল হিসেবে পাকিস্তানের পক্ষে মহিলাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ করছে। ২০১০ সালের এশিয়ান গেমসে স্বর্ণপদক জয়লাভ একমাত্র দলীয় সাফল্যরূপে বিবেচিত।[১] দলের বর্তমান অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন সানা মীর

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পাকিস্তানে মহিলাদের ক্রিকেট খেলার ধারণাটি প্রথমবারের মতো দানা বেঁধে ওঠে ১৯৯৬ সালে। শাইজা খান ও শারমীন খান - দুই বোন এ ধারণার প্রবর্তনকারী হিসেবে রয়েছেন। এরজন্যে তাদেরকে আদালতের মুখোমুখি হতে হয়। পাশাপাশি তাদেরকে মৃত্যুর হুমকি পর্যন্ত প্রদান করা হয়। কিন্তু পাকিস্তান সরকার তাদের রক্ষণশীল মনোভাবের কারণে ১৯৯৭ সালে ভারতের বিপক্ষে ক্রিকেট খেলার অনুমতি প্রদান করতে অস্বীকৃতি জানায়। এছাড়াও, ধর্মীয় কারণে ও জনস্বার্থের কথা বিবেচনায় এনে মহিলাদের কোন খেলায় অংশগ্রহণে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়।[২][৩]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৯৭ সালে পাকিস্তান দল প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ডঅস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে মহিলাদের ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করে। কিন্তু ঐ সফরের তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিকেই দলটি পরাজিত হয়েছিল। এরপর ঐ বছরের শেষদিকে ভারতে অনুষ্ঠিত মহিলাদের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশগ্রহণের জন্য দলটিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। প্রতিযোগিতার পাঁচটি খেলাতেই তারা হেরে যায় ও ১১দলের অংশগ্রহণে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সর্বশেষ স্থান দখল করে। পরের বছর শ্রীলঙ্কা সফরে তিনটি ওডিআই এবং একমাত্র টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণ করলেও পরাজিত হয়।

বর্তমান দল[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Pakistan women win historic gold at Asian Games"। ESPNcricinfo। ১৯ নভেম্বর ২০১০। সংগৃহীত ৪ জানুয়ারি ২০১৪ 
  2. "Bowlers in baggy pants will bat for women's rights"। সংগৃহীত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০০৫ 
  3. "Women defy Pakistan road race ban"। BBC News। ২১ মে ২০০৫। সংগৃহীত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০০৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]