২০১০ এশিয়ান গেমসে ক্রিকেট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ক্রিকেট খেলা ষোড়শ এশিয়ান গেমসের ৪২টি ক্রীড়া বিষয়ের অন্যতম একটি হিসেবে বিবেচিত হয়। চীনের গুয়াংজুতে অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে সর্বপ্রথম দলগত ক্রীড়া হিসেবে ক্রিকেট খেলা অন্তর্ভুক্ত হয়। দলপ্রতি ২০ ওভারের খেলাগুলো টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের রূপরেখা অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হয়। পুরুষ ও মহিলা - উভয় বিভাগেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। পুরুষ বিভাগে স্বাগতিক চীনের অংশগ্রহণসহ আইসিসি’র পূর্ণাঙ্গ সদস্যরূপে এশিয়ার বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল অংশ নেয়। এছাড়াও ২০১০ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ ক্রিকেটে অংশগ্রহণকারী আফগানিস্তান ক্রিকেট দল খেলে। অন্যান্য আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতির কারণে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান কম শক্তিধর দল পাঠায়। কিন্তু ভারত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেনি। চূড়ান্ত খেলায় বাংলাদেশ আফগানিস্তানকে পরাভূত করে স্বর্ণপদক জয় করে। স্থান নির্ধারণী খেলায় পাকিস্তান শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ব্রোঞ্জপদক লাভ করে।

পদক বিবরণী[সম্পাদনা]

পদক তালিকা[সম্পাদনা]

 ক্রম  জাতি স্বর্ণ রৌপ্য ব্রোঞ্জ মোট
 বাংলাদেশ (BAN)
 পাকিস্তান (PAK)
 আফগানিস্তান (AFG)
 জাপান (JPN)
সর্বমোট

পদকজয়ীদের তালিকা[সম্পাদনা]

বিষয় স্বর্ণ রৌপ্য ব্রোঞ্জ
পুরুষ দল  বাংলাদেশ (BAN)
মোহাম্মদ আশরাফুল
শামসুর রহমান
নাঈম ইসলাম
ফয়সাল হোসেন
শাহাদাত হোসেন
মাহবুবুল আলম
নাজমুল হোসেন
মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিন
সোহরাওয়ার্দী শুভ
ডলার মাহমুদ
মিঠুন আলী
নাসির হোসেন
রনি তালুকদার
শুভাগত হোম
সাব্বির রহমান
 আফগানিস্তান (AFG)
গুলবাদিন নায়েব
মোহাম্মাদ শেহজাদ
মোহাম্মদ সামি আগা
মোহাম্মাদ নবী
করিম সাদিক
শফিকুল্লাহ শাফাক
মিরওয়াইজ আশরাফ
শাবির নুরি
শাপুর জাদরান
আসগর স্তানিকজাই
সামিউল্লাহ শেনওয়ারি
নওরোজ মঙ্গল
হামিদ হাসান
আফতাব আলম
 পাকিস্তান (PAK)
খালিদ লতিফ
আজিম ঘুম্মন
নাইমুদ্দিন কাজি
মোহাম্মদ ইরশাদ
লাল কুমার
শেহারিয়ার গনি
আইজাজ চিমা
সারমাদ ভাট্টি
নাঈম আঞ্জুম
রাজা হাসান
উসমান কাদির
বিলাওয়াল ভাট্টি
আকবর-উর-রেহমান
শারজিল খান
জালাত খান
মহিলা দল  পাকিস্তান (PAK)
সানা মীর
বাতুল ফাতিমা
নিদা দার
নাহিদা খান
বিসমাহ মারুফ
নায়েন আবিদি
আসমাভিয়া ইকবাল
কাইনাত ইমতিয়াজ
মেরিনা ইকবাল
মরিয়ম হাসান
সানিয়া ইকবাল
মাসুমা জুনাইদ
সানা গুলজার
জাভেরিয়া ওয়াদুদ
 বাংলাদেশ (BAN)
রুমানা আহমেদ
সালমা খাতুন
সোহেলী আক্তার
আয়শা রহমান
‎চামেলী খাতুন
তিথী রাণী সরকার
পান্না ঘোষ
সুলতানা ইয়াসমিন বৈশাখী
লতা মন্ডল
তাজিয়া আক্তার
শুকতারা রহমান
জাহানারা আলম
চম্পা চাকমা
সাথিরা জাকির
ফারজানা হক
 জাপান (JPN)
এরিনা কানেকো
ইউকা ইউশিদা
শিজুকা মিয়াজি
আতসুকো সুদা
ইউকো সাইতো
আয়াকো ইউয়াসাকি
কুরুমি ওতা
আয়াকো নাকাইয়ামা
মারিকো ইয়ামামোতো
মাইহো কান্নো
ইমা কুরিবায়াশি
শিজুকা কুবোতা
ফাইয়ুকি কাওয়াই
ইউকো কুনিকি
এরিকা ইদা

ফলাফল[সম্পাদনা]

পুরুষ বিভাগ[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

  • এশিয়ায় আইসিসি’র পূর্ণাঙ্গ সদস্য রাষ্ট্র বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কাসহ ২০১০ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী আফগানিস্তান সরাসরি কোয়ার্টার ফাইনালে অংশগ্রহণ করে।
পুল সি[সম্পাদনা]
দল খেলা জয় ড্র পরাজয় এনআরআর পয়েন্ট
 মালয়েশিয়া +৪.৪৫০
 চীন −৪.৪৫০
নভেম্বর ২১
৯:০০
স্কোরকার্ড
মালয়েশিয়া 
১৬২/৮ (২০ ওভার)
 চীন
৭৩/৮ (২০ ওভার)
রাকেশ মাধবন ৬৮ (৫৮)
লি জিয়ান ৩/৮ (১ ওভার)
সং ইয়াংইয়্যাং ২০ (২৮)
মানরিক সিং ২/১০ (৩ ওভার)
মালয়েশিয়া ৮৯ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও বুদ্ধি প্রধান (নেপাল)
  • চীন টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
পুল ডি[সম্পাদনা]
দল খেলা জয় ড্র পরাজয় এনআরআর পয়েন্ট
 হংকং +১.৫০০
   নেপাল +১.১২৫
 মালদ্বীপ −৩.৭৫০
নভেম্বর ২১
১৩:০০
স্কোরকার্ড
হংকং 
১১৫/৭ (২০ ওভার)
   নেপাল
৮৫/৯ (২০ ওভার)
রায় ল্যামস্যাম ৪৭ (৬১)
অমৃত ভট্টরাই ৩/১৬ (৪ ওভার)
শরদ ভেসকার ১৬ (২৭)
নাদিম আহমেদ ৩/১২ (৪ ওভার)
হংকং ৩০ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২২
১৩:০০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
১২৯/৯ (২০ ওভার)
 মালদ্বীপ
৫৪/৮ (২০ ওভার)
বিনোদ ভাণ্ডারী ৩২ (২২)
হাসান ইব্রাহিম ২/১৬ (৪ ওভার)
শফরাজ জলিল ১৩ (৩১)
রাহু বিশ্বকর্মা ৩/১৯ (৪ ওভার)
নেপাল ৭৫ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও লি ঝেন (চীন)
  • নেপাল টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২৩
১৩:০০
স্কোরকার্ড
হংকং 
৮৮/৩ (১৪.১ ওভার)
 মালদ্বীপ
৮৪/৯ (২০ ওভার)
জেমস অ্যাটকিনসন ৪৪ (৩০)
মুসা কালিম ১/১২ (২.১ ওভার)
নিশাম নাসির ২১ (৩৭)
নাজিব আমর ২/১০ (৪ ওভার)
হংকং ৭ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও সান জিয়ানজিন (চীন)
  • মালদ্বীপ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নক-আউট পর্ব[সম্পাদনা]

কোয়ার্টার ফাইনাল সেমি-ফাইনাল চূড়ান্ত খেলা
                   
নভেম্বর ২২        
  পাকিস্তান  ১৮৩/১
নভেম্বর ২৫
  চীন  ৫৫/৯  
  পাকিস্তান  ১০৩/৭
নভেম্বর ২৪
    আফগানিস্তান  ১২৫/৮  
  আফগানিস্তান  ৬৬/২
নভেম্বর ২৬
  হংকং  ৬৩  
  আফগানিস্তান  ১১৮/৮
নভেম্বর ২৩
    বাংলাদেশ  ১১৯/৫
  বাংলাদেশ  ১৫০/৭
নভেম্বর ২৫
  মালয়েশিয়া  ৮০  
  বাংলাদেশ  ১০২/৫ ব্রোঞ্জপদক নির্ধারণী খেলা
নভেম্বর ২৪
    শ্রীলঙ্কা  ১০১  
  শ্রীলঙ্কা  ৭৩/৮   পাকিস্তান  ১৪১/৪
    নেপাল  ৭২     শ্রীলঙ্কা  ১৩৫
নভেম্বর ২৬
কোয়ার্টার ফাইনাল[সম্পাদনা]
নভেম্বর ২২
৯:০০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৮৩/১ (২০ ওভার)
 চীন
৫৫/৯ (২০ ওভার)
খালিদ লতিফ ১০৩* (৬৯)
জ্যাং ইউফেই ১/৩১ (৮ ওভার)
লি জিয়ান ১৪ (২৩)
রাজা হাসান ৩/১০ (৮ ওভার)
পাকিস্তান ১২৮ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২৩
৯:০০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
১৫০/৭ (২০ ওভার)
 মালয়েশিয়া
৮০ (১৯.৪ ওভার)
মিঠুন আলী ৩৯ (৩৫)
শাহরুলনিজাম ইউসুফ ৪/২১ (৪ ওভার)
শফিক শরীফ ২১ (২৫)
মোহাম্মদ আশরাফুল ৩/৫ (২ ওভার)
বাংলাদেশ ৭০ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর)
  • বাংলাদেশ বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২৪
৯:০০
স্কোরকার্ড
আফগানিস্তান 
৬৬/২ (১৩.২ ওভার)
 হংকং
৬৩ (১৭.৪ ওভার)
নওরোজ মঙ্গল ২০* (১৪)
নাদিম আহমেদ ১/১৩ (৪ ওভার)
নাদিম আহমেদ ১৭ (২৯)
মিরওয়াইজ আশরাফ ৩/৮ (৪ ওভার)
আফগানিস্তান ৮ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২৪
১৩:০০
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৭৩/৮ (১৮.৫ ওভার)
   নেপাল
৭২ (১৯.৪ ওভার)
জীবন্ত কুলাতুঙ্গা ২০ (২০)
পারস খডকা ২/৭ (৪ ওভার)
জ্ঞানেন্দ্র মল্ল ৩০ (৩০)
জিহান মুবারক ৩/৬ (৩ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ২ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর)
  • নেপাল টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
সেমি-ফাইনাল[সম্পাদনা]
নভেম্বর ২৫
৯:০০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১০৩/৭ (২০ ওভার)
 আফগানিস্তান
১২৫/৮ (২০ ওভার)
খালিদ লতিফ ২৬ (৩২)
হামিদ হাসান ২/১৬ (৪ ওভার)
শাবির নুরি ৩৫ (৩০)
রাজা হাসান ২/১৯ (৪ ওভার)
আফগানিস্তান ২২ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ২৫
১৩:০০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
১০২/৫ (১৫.২ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১০১ (২০ ওভার)
ফয়সাল হোসেন ৩৩ (২৪)
নুয়ান জয়সা ২/১৫ (২ ওভার)
চিন্তাকা জয়াসিংহে ২৮ (২২)
সোহরাওয়ার্দি শুভ ৪/৬ (৪ ওভার)
বাংলাদেশ ৫ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
ব্রোঞ্জপদক নির্ধারণী খেলা[সম্পাদনা]
নভেম্বর ২৬
৯:০০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৪১/৪ (১৮ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১৩৫ (১৯.৫ ওভার)
খালিদ লতিফ ৫৩* (৪২)
সজীবা বীরাকুন ১/৯ (২ ওভার)
জীবন্ত কুলাতুঙ্গা ৩১ (২৯)
রাজা হাসান ২/১৯ (৪ ওভার)
পাকিস্তান ৬ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও সান জিয়ানজিন (চীন)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
চূড়ান্ত খেলা[সম্পাদনা]
নভেম্বর ২৬
১৩:০০
স্কোরকার্ড
আফগানিস্তান 
১১৮/৮ (২০ ওভার)
 বাংলাদেশ
১১৯/৫ (১৯.৩ ওভার)
আসগর স্তানিকজাই ৩৮* (৩৬)
মোহাম্মদ আশরাফুল ২/৩ (১ ওভার)
নাঈম ইসলাম ৩৪* (৪২)
করিম সাদিক ২/২৭ (৩ ওভার)
বাংলাদেশ ৫ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও বুদ্ধি প্রধান (নেপাল)
  • আফগানিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

মহিলা বিভাগ[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

পুল এ[সম্পাদনা]
  ১ম পর্ব ২য় পর্ব বিজয়ী
                     
  চীন ১১৬/৬  
  মালয়েশিয়া ৬১/৮  
    চীন ৬০/৫  
    পাকিস্তান ৬৪/১  
  পাকিস্তান ৫০/২
  থাইল্যান্ড ৪৯  
    পাকিস্তান এ১
    চীন এ২
  মালয়েশিয়া ৬৩  
  থাইল্যান্ড ৯৪/৮  
    চীন ৯৩/৬
    থাইল্যান্ড ৯২/৬  
নভেম্বর ১৩
৯:০০
স্কোরকার্ড
চীন 
১১৬/৬ (২০ ওভার)
 মালয়েশিয়া
৬১/৮ (২০ ওভার)
সান হুয়ান ৪৭ (৪৯)
রিউইনা মোহাম্মদ ৩/২১ (৪ ওভার)
সিতি মাজিলা হানাফি ১৫* (১৬)
মেই চুনহুয়া ৩/৮ (৪ ওভার)
চীন ৫৫ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর)
  • চীন টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৪
৯:০০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
৫০/২ (৮.৩ ওভার)
 থাইল্যান্ড
৪৯ (১৯.৩ ওভার)
নিদা দার ২১ (১৮)
থানাপান সাইসুদ ১/৪ (১.৩ ওভার)
সিওয়াপর্ন কোসাথং ১০ (৩৭)
সানা গুলজার ৪/৮ (৪ ওভার)
পাকিস্তান ৮ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া)
  • থাইল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৫
৯:০০
স্কোরকার্ড
চীন 
৬০/৫ (২০ ওভার)
 পাকিস্তান
৬৪/১ (১২.২ ওভার)
ঝাং মেই ১৪ (৩২)
মাসুমা জুনাইদ ১/৭ (৪ ওভার)
নিদা দার ২৭ (২৯)
মেই চুনহুয়া ১/৯ (৩ ওভার)
পাকিস্তান ৯ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৬
৯:০০
স্কোরকার্ড
মালয়েশিয়া 
৬৩ (১৬.২ ওভার)
 থাইল্যান্ড
৯৪/৮ (২০ ওভার)
এমিলিয়া এলিয়ানি ১৯ (৩০)
নাতায়া বুচাথাম ৪/৭ (৩ ওভার)
নাটাকান চান্তাম ১৯ (১৮)
আলেজান্দ্রা শুনমুগাম ৩/১৪ (৪ ওভার)
থাইল্যান্ড ৩১ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর) ও সান জিয়ানজিন (চীন)
  • থাইল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৭
৯:০০
স্কোরকার্ড
চীন 
৯৩/৬ (২০ ওভার)
 থাইল্যান্ড
৯২/৬ (২০ ওভার)
সান হুয়ান ৩৭ (৪৭)
নাট্টাকান চান্তাম ২/১১ (৪ ওভার)
পুন্ডারিকা প্রাথানমিতর ৪৬ (৫৩)
ইউ মিয়াও ২/১০ (২ ওভার)
চীন ১ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর) ও নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • চীন টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
পুল বি[সম্পাদনা]
  ১ম পর্ব ২য় পর্ব বিজয়ী
                     
    নেপাল ৬২/৭  
  জাপান ৬৪/০  
    জাপান ৫৭/৮  
    বাংলাদেশ ১১১/৮  
  বাংলাদেশ ২৬/০
  হংকং ২৫  
    বাংলাদেশ বি১
    জাপান বি২
    নেপাল ৭৩/৩  
  হংকং ৭২/৯  
    জাপান ১৩৫/৪
      নেপাল ৯০/৯  
নভেম্বর ১৩
১৩:০০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
৬২/৭ (২০ ওভার)
 জাপান
৬৪/০ (১১.৪ ওভার)
রোশানি বোহারা ১৬ (২৪)
শিজুকা মিয়াজি ২/১০ (৩ ওভার)
ইমা কুরিবেয়াশি ৩২* (৪২)
রিতু কুমারী কানৌজিয়া ০/৭ (২ ওভার)
জাপান ১০ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর) ও নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • জাপান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৪
১৩:০০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২৬/০ (৩.৪ ওভার)
 হংকং
২৫ (১৭.১ ওভার)
ফারজানা হক ১৭* (১৭)
কনি উং ০/৫ (১ ওভার)
কানারদিপ কিনু জিল ১১ (৩৯)
চামেলী খাতুন ২/৪ (৩ ওভার)
বাংলাদেশ ১০ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৫
১৩:০০
স্কোরকার্ড
জাপান 
৫৭/৮ (২০ ওভার)
 বাংলাদেশ
১১১/৮ (২০ ওভার)
ইমা কুরিবেয়াশি ১৮ (৩০)
শুকতারা রহমান ৩/৬ (৪ ওভার)
শুকতারা রহমান ৩৭ (৪৫)
কুরুমি ওতা ৩/১৬ (৪ ওভার)
বাংলাদেশ ৫৪ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৬
১৩:০০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
৭৩/৩ (১৫.২ ওভার)
 হংকং
৭২/৯ (২০ ওভার)
নারি থাপা ২৮ (২৫)
কনি উং ১/৭ (৩.২ ওভার)
কনি উং ৪৭ (৫৫)
নারি থাপা ১/৬ (৪ ওভার)
নেপাল ৭ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া) ও লি জিংমিন (চীন)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৭
১৩:০০
স্কোরকার্ড
জাপান 
১৩৫/৪ (২০ ওভার)
   নেপাল
৯০/৯ (২০ ওভার)
ইমা কুরিবেয়াশি ৬৩ (৬০)
সারিতা মাগার ২/২৫ (৪ ওভার)
নিরা রাজোপাধ্যায় ৩৭ (৪৭)
কুরুমি ওতা ২/১৬ (৪ ওভার)
জাপান ৪৫ রানে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া) ও লি ঝেন (চীন)
  • জাপান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নক-আউট পর্ব[সম্পাদনা]

  সেমি-ফাইনাল চড়ান্ত খেলা
নভেম্বর ১৮
  বাংলাদেশ  ৩৫/১  
  চীন  ৩৪  
 
নভেম্বর ১৯
      বাংলাদেশ  ৯২
    পাকিস্তান  ৯৩/০
ব্রোঞ্জপদক নির্ধারণী খেলা
নভেম্বর ১৮ নভেম্বর ১৯
  পাকিস্তান  ৬২/১   চীন  ৬৫/৬
  জাপান  ৬১/৮     জাপান  ৬৬/৩
সেমি-ফাইনাল[সম্পাদনা]
নভেম্বর ১৮
৯:০০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
৩৫/১ (৬.৫ ওভার)
 চীন
৩৪ (১৫.৫ ওভার)
ফারজানা হক ২০* (১৯)
ঝু হাইজাই ১/১৬ (২.৫ ওভার)
সান মেনগিয়াও ১০ (৩৩)
সালমা খাতুন ৩/৪ (৩ ওভার)
বাংলাদেশ ৯ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও মসুর রমেশ (সিঙ্গাপুর)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

নভেম্বর ১৮
১৩:০০
স্কোরকার্ড
জাপান 
৬১/৮ (২০ ওভার)
 পাকিস্তান
৬২/১ (১০.৪ ওভার)
ইমা কুরিবেয়াশি ২৪ (৩৭)
সানা গুলজার ২/৮ (৪ ওভার)
জাভেরিয়া ওয়াদুদ ২৯ (২৫)
ফুইউকি কাউয়াই ১/৮ (১ ওভার)
পাকিস্তান ৯ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বুদ্ধি প্রধান (নেপাল) ও বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া)
  • জাপান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
ব্রোঞ্জপদক নির্ধারণী খেলা[সম্পাদনা]
নভেম্বর ১৯
৯:০০
স্কোরকার্ড
চীন 
৬৫/৬ (২০ ওভার)
 জাপান
৬৬/৩ (১৯.১ ওভার)
ঝাং মেই ২৬ (৪২)
ওতা কুরুমি ২/৮ (৪ ওভার)
ইমা কুরিবেয়াশি ২৪* (৫৫)
মেই চুনহুয়া ১/৩ (৪ ওভার)
জাপান ৭ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: বিশ্বনাথন কালীদাস (মালয়েশিয়া), নারায়ণন শিবান (মালয়েশিয়া)
  • জাপান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
চূড়ান্ত খেলা[সম্পাদনা]
নভেম্বর ১৯
১৩:০০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
৯২ (২০ ওভার)
 পাকিস্তান
৯৩/০ (১৫.৪ ওভার)
সালমা খাতুন ২৪ (৩১)
নিদা দার ৪/১৬ (৪ ওভার)
নিদা দার ৫১* (৪৩)
জাহানারা আলম ০/৩ (১ ওভার)
পাকিস্তান ১০ উইকেটে বিজয়ী
গুয়াংগং ক্রিকেট স্টেডিয়াম, গুয়াংজু
আম্পায়ার: সারিকা প্রসাদ (সিঙ্গাপুর) ও বুদ্ধি প্রধান (নেপাল)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]