২০১২ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০১২ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ
২০১২ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের লোগো.png
২০১২ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ এর লোগো
ব্যবস্থাপক বিসিবি
ক্রিকেটের ধরন টুয়েন্টি২০
প্রতিযোগিতার ধরন ডাবল রাউন্ড-রবিন এবং নকআউট
আয়োজক  বাংলাদেশ
বিজয়ী DG ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস (১ম শিরোপা)
অংশগ্রহণকারীরা
খেলার সংখ্যা ৩৩
প্রতিযোগিতার সেরা
খেলোয়াড়
বাংলাদেশ সাকিব আল হাসান (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
সর্বোচ্চ রান পাকিস্তান আহমেদ শেহজাদ (বরিশাল বার্নার্স) ৪৮৬ (১২ ম্যাচ)
সর্বোচ্চ উইকেট বাংলাদেশ ইলিয়াস সানি (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস) ১৭ (১২ ম্যাচ)
পাকিস্তান মোহাম্মদ সামি ১৭ (১১ ম্যাচ)
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট www.bplt20.com.bd

২০১২ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ বা ২০১২ বিপিএল বাংলাদেশে আয়োজিত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের প্রথম আসর। ২০১২ খ্রিস্টাব্দে প্রথমবারের মত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বা বিসিবি আয়োজন করে। ৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত প্রথম বিপিএল উদ্বোধন হয়। শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম,ঢাকায় উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান। ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১২ থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০১২ পর্যন্ত এই প্রতিযোগিতায় ৩৩টি টি২০ ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়, যার ২৫টি ঢাকায়, আর বাকি ৮টি হয় চট্টগ্রামে। ২৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় ফাইনাল ম্যাচের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় বিপিএল এর প্রথম আসর।

খেলোয়াড় নিলাম[সম্পাদনা]

এই আয়োজনে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ থেকে খেলোয়াড় ভাড়া করে আনা হয়। এর মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তান, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, আয়ারল্যান্ডসহ অন্যান্য দেশের খেলোয়াড়বৃন্দ

আইকন খেলোয়াড়সমূহ[সম্পাদনা]

বিপিলের মাঠসমূহ[সম্পাদনা]

২০১২ বিপিএলে ঢাকা ও চট্টগ্রামের মাঠে খেলা হয়।

ঢাকা চট্টগ্রাম
শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম
ধারণ ক্ষমতা : ২৬,০০০
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম
ধারণ ক্ষমতা : ২০,০০০
Sher-e-Bangla National Cricket Stadium.jpg 200px

দলগুলোর পারফরমেন্স[সম্পাদনা]

দল খেলেছে জয় হার ড্র এনআরআর
দুরন্ত রাজশাহী ১০ ১৪ +০.১১৪
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ১০ ১২ +০.৬০৬
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ১০ ১০ +০.২১০
বরিশাল বার্নার্স ১০ ১০ +০.১৭৮
চিটাগং কিংস ১০ ১০ +০.০৭৮
সিলেট রয়্যালস ১০ −১.২৩৪

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

বরিশাল চিটাগং ঢাকা রাজশাহী খুলনা সিলেট
বরিশাল বার্নার্স চিটাগং
৮ উইকেট
ঢাকা
২১ রান
বরিশাল
২২ রান
খুলনা
৭ উইকেট
বরিশাল
১০ উইকেট
চিটাগং কিংস বরিশাল
৫ উইকেট
প্রথম প্রতিদ্বন্দ্বিতা → ঢাকা
৬ উইকেট
চিটাগং
৫৩ রান
চিটাগং
৬ উইকেট
চিটাগং
৭ উইকেট
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ঢাকা
৫ উইকেট
চিটাগং
১৩ রান
রাজশাহী
১৪ রান
খুলনা
১৯ রান
ঢাকা
৭ উইকেট
দুরন্ত রাজশাহী রাজশাহী
৯ উইকেট
রাজশাহী
৯ রান
রাজশাহী
৩ উইকেট
রাজশাহী
৬ উইকেট
রাজশাহী
১৬ রান
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস বরিশাল
৪ উইকেট
খুলনা
৪৪ রান
খুলনা
৭ উইকেট
রাজশাহী
৮ উইকেট
← দ্বিতীয় প্রতিদ্বন্দ্বিতা খুলনা
২ রান
সিলেট রয়্যালস বরিশাল
৯ উইকেট
সিলেট
৩৫ রান
ঢাকা
৮ উইকেট
সিলেট
৯ উইকেট
খুলনা
৬৯ রান
টীকা: ম্যাচের সারাংশ দেখার জন্য ফলাফলের উপর ক্লিক করুন।

নকআউট পর্যায়[সম্পাদনা]

  সেমিফাইনাল ফাইনাল
                 
 দুরন্ত রাজশাহী ১৮৪/৬  
 বরিশাল বার্নার্স ১৮৯/২  
     বরিশাল বার্নার্স ১৪০/৭
   ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ১৪৪/২
 ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ১৯১/৪
 খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ১৮২/৭  

সময়সূচী[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

১০ ফেব্রুয়ারি
১৪:০০
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১৬৫/৪ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
১৬৭/০ (১৩.১ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স ১০ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: আনিসুর রহমান (বাংলাদেশ) এবং ডেভ অর্চার্ড (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: ক্রিস গেইল (বরিশাল বার্নার্স)
পিটার ট্রেগো ৬২ (৫৪)
ইয়াসির আরাফাত ২/৩৩ (৪ ওভার)
ক্রিস গেইল ১০১* (৪৪)

ফেব্রুয়ারি ১০
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
চিটাগং কিংস
২০৬/৪ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১৫৩ (১৯.৫ ওভার)
চিটাগং কিংস ৫৩ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: ডোয়াইন ব্রাভো (চিটাগং কিংস)
নাসির জামশেদ ৫৬ (৩৮)
কায়সার আব্বাস ১/১৪ (২ ওভার)
জুনায়েদ সিদ্দিকী ৪২ (২৩)
ডোয়াইন ব্রাভো ৩/১৭ (৩ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১১
১৪:০০
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৭৫/৫ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৫৬/৭ (২০ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ১৯ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: আন্দ্রে রাসেল (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
সাকিব আল হাসান ৪২ (৩১)
আজহার মাহমুদ ২/২০ (৪ ওভার)
কিরণ পোলার্ড ৩৯* (৩২)
আন্দ্রে রাসেল ৪/৩৫ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১১
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১৮০/২ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১৫৮/৯ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স ২২ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: গাজী সোহেল এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: আহমেদ শেহজাদ (বরিশাল বার্নার্স)
আহমেদ শেহজাদ ৬৭ (৪০)
মারলন স্যামুয়েলস ১/২২ (৪ ওভার)
মিজানুর রহমান ৬৫ (৫২)
শেন হারউড ২/২০ (৩.২ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১২
১৪:০০
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৭১/৩ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
১৭৪/৪ (১৯.১ ওভার)
চিটাগং কিংস ৬ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: নাসির জামশেদ (চিটাগং কিংস)
শিবনারায়ণ চন্দরপল ৫৯ (৫০)
মাহমুদুল্লাহ ২/১৮ (৩ ওভার)
নাসির জামশেদ ৮৬* (৪৭)
আব্দুর রাজ্জাক ২/৭ (২ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১২
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১২৪ (১৯.৫ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১২৬/৩ (১৮.২ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ৭ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: আনামুল হক বিজয় (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস)
নাইম ইসলাম ৩০ (২৪)
মাশরাফি বিন মর্তুজা ২/২২ (৪ ওভার)
আনামুল হক বিজয় ৪৮ (৩৯)
ব্র্যাড হগ ১/১৯ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৩
১৪:০০
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১২৫ (২০ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৩১/৩ (১৭.২ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ৭ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: ডোয়াইন স্মিথ (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
মমিনুল হক ৪২ (২৪)
শফিউল ইসলাম ২/৭ (৩ ওভার)
ডোয়াইন স্মিথ ৫৮* (৪১)
সোহরাওয়ার্দী শুভ ২/২০ (৩ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৩
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
চিটাগং কিংস
১৫৩/৬ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৫৬/৪ (১৯ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ৬ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: কিরণ পোলার্ড (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস)
ডোয়াইন ব্রাভো ৪৩ (৩১)
ইলিয়াস সানি ৩/১৭ (৪ ওভার)
কিরণ পোলার্ড ৫০* (৩৪)
আরাফাত সানি ২/১২ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৪
১৪:০০
স্কোরকার্ড
দুরন্ত রাজশাহী
১৭১/৮ (২০ ওভার)
সিলেট রয়্যালস
১৫৫/৪ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ১৬ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: মারলন স্যামুয়েলস (দুরন্ত রাজশাহী)
মারলন স্যামুয়েলস ৭২ (৪৮)
অলক কাপালি ৩/২৭ (২ ওভার)
কামরান আকমল ৫৬ (৪১)
ফাওয়াদ আলম ১/১৫ (২ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৪
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
২০৮/৫ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
১৮৭/৫ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ২১ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: আজহার মাহমুদ (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস)
আজহার মাহমুদ ৭৭* (৪৭)
ইয়াসির আরাফাত ২/৩০ (৪ ওভার)
ক্রিস গেইল ১১৬ (৬১)
মাশরাফি বিন মর্তুজা ২/২০ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৫
১৪:০০
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১৫২/৪ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
১৫৪/৩ (১৭.৩ ওভার)
চিটাগং কিংস ৭ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: মাহমুদুল্লাহ (চিটাগং কিংস)
কামরান আকমল ৫৪ (৪১)
ফরহাদ রেজা ২/২৮ (৪ ওভার)
মাহমুদুল্লাহ ৫৬* (৩৮)
সোহেল তানভির ১/১৬ (৩ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৫
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৪৫/৭ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১৪৬/৪ (১৯.১ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ৬ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: মাসুদুর রহমান এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: মুশফিকুর রহিম (দুরন্ত রাজশাহী)
সাকিব আল হাসান ৪৪ (২৬)
আব্দুল রাজ্জাক ২/২৬ (৪ ওভার)
শাহজাইব হাসান ৫২ (৪৬)
সাকিব আল হাসান ২/৩৫ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৬
১৪:০০
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১২৫/৬ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
১২৬/২ (১২.৪ ওভার)
চিটাগং কিংস ৮ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: নাসির জামশেদ (চিটাগং কিংস)
ব্র্যাড হজ ৩৮ (৪০)
এনামুল হক জুনিয়র ২/১২ (২ ওভার)
নাসির জামশেদ ৮১* (৪৭)
ব্র্যাড হজ ১/২৫ (২ ওভার)
  • চিটাগং কিংস টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।

ফেব্রুয়ারি ১৬
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দুরন্ত রাজশাহী
১৪৪/৯ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৩০/৭ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ১৪ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: মারলন স্যামুয়েলস (দুরন্ত রাজশাহী)
মারলন স্যামুয়েলস ৩৬ (৩৮)
ইলিয়াস সানি ২/১৮ (৪ ওভার)
ইমরান নাজির ৫৪* (৪৫)
মোহাম্মদ সামি ৩/২৩ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৮
১৪:০০
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৭১/৬ (২০ ওভার)
সিলেট রয়্যালস
১৬৯/৮ (২০ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ২ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: আন্দ্রে রাসেল (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
ডোয়াইন স্মিথ ৫৫ (৩১)
সোহেল তানভির ২/২৫ (৪ ওভার)
কামরান আকমল ৮২ (৪১)
আব্দুর রাজ্জাক ২/২৪ (৩ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৮
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দুরন্ত রাজশাহী
১২৬/৬ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
১১৭/৯ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ৯ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: সাকলাইন সজীব (দুরন্ত রাজশাহী)
মুশফিকুর রহিম ২৪* (২৫)
আরাফাত সানি ৩/১৩ (৪ ওভার)
শামসুর রহমান ২৪ (২২)
সাকলাইন সজীব ৩/২২ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৯
১৪:০০
স্কোরকার্ড
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৪০/৮ (২০ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৪১/৩ (১৬.৪ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ৭ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: শিবনারায়ণ চন্দরপল (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
মোহাম্মদ আশরাফুল ৫৩ (৪২)
সনাথ জয়সুরিয়া ২/২৫ (৪ ওভার)
শিবনারায়ণ চন্দরপল ৮৭* (৪৯)
আজহার মাহমুদ ১/১২ (২ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ১৯
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১২০/৭ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
১২১/১ (১৩.২ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স ৯ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: ব্র্যাড হজ (বরিশাল বার্নার্স)
সোহেল তানভির ৩৩ (৩২)
সোহরাওয়ার্দী শুভ ৩/২০ (৪ ওভার)
আহমেদ শেহজাদ ৬০ (৪০)
ব্র্যাড হগ ১/১৬ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২০
১৪:০০
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১৯২/৩ (২০ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১৯৩/১ (১৭.১ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ৯ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: জুনায়েদ সিদ্দিকী (দুরন্ত রাজশাহী)
ফিল মাস্টার্ড ৮৮* (৫৮)
সাব্বির রহমান ১/১৮ (২ ওভার)
জুনায়েদ সিদ্দিকী ৮৯* (৫১)
আহমেদ শেহজাদ ১/২৬ (৩ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২০
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৩৭/৬ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
৯৩ (১৮.১ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ৪৪ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: নাসির হোসেন (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
নাসির হোসেন ৪২ (৩৮)
এনামুল হক জুনিয়র ৩/২২ (৪ ওভার)
জেসন রয় ৩০ (২৪)
মার্শাল আইয়ুব ৪/২০ (৪ ওভার)
  • চিটাগং কিংস টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।

ফেব্রুয়ারি ২২
১৪:০০
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১২৮/৭ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৩২/২ (১২.৫ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ৮ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: আজহার মাহমুদ (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস)
পিটার ট্রেগো ৩৫ (৩৩)
রানা নাভেদ-উল-হাসান ৩/১৮ (৩ ওভার)
মোহাম্মদ আশরাফুল ৪০ (৩৩)
নূর হোসেন ১/২১ (২.৫ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২২
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৬১/৭ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
১৬২/৬ (১৯.৩ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স ৪ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এনামুল হক এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: মমিনুল হক (বরিশাল বার্নার্স)
নাজমুল হোসেন মিলন ৪২* (৩১)
নাজমুল ইসলাম ১/১৬ (৪ ওভার)
মমিনুল হক ৫৩* (২৮)
আব্দুর রাজ্জাক ২/২২ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৪
১৪:০০
স্কোরকার্ড
চিটাগং কিংস
১২০/৬ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১০৭/৯ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস ১৩ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: নাদির শাহ এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: ডোয়াইন ব্রাভো (চিটাগং কিংস)
ডোয়াইন ব্রাভো ৪৮* (৪৩)
ইলিয়াস সানি ৩/২৩ (৪ ওভার)
আনামুল হক বিজয় ২২ (২২)
কেভন কুপার ৩/১৩ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৪
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দুরন্ত রাজশাহী
১২৪/৯ (২০ ওভার)
সিলেট রয়্যালস
১২৫/১ (১৬.৩ ওভার)
সিলেট রয়্যালস ৯ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: আনিসুর রহমান এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: সোহেল তানভির (সিলেট রয়্যালস)
শাহজাইব হাসান ৫৪ (৪৬)
সোহেল তানভির ৪/১৩ (৪ ওভার)
কামরান আকমল ৭২* (৫১)
সাকলাইন সজীব ১/২২ (৪ ওভার)
  • সিলেট রয়্যালস টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।
  • উপস্থিতি: ২১,২৪০

ফেব্রুয়ারি ২৫
১৪:০০
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১৫৬/৬ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৬০/৫ (১৮.২ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ৫ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড) এবং নাদির শাহ
সেরা খেলোয়াড়: ইমরান নাজির (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস)
আহমেদ শেহজাদ ৫১ (৩৯)
রানা নাভেদ-উল-হাসান ২/২২ (৪ ওভার)
ইমরান নাজির ৬৫ (৪০)
কবির আলী ২/১৮ (৩.২ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৫
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সিলেট রয়্যালস
১৬৫/৩ (২০ ওভার)
চিটাগং কিংস
১৩০/৮ (২০ ওভার)
সিলেট রয়্যালস ৩৫ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: মাসুদুর রহমান এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: পিটার ট্রেগো (সিলেট রয়্যালস)
পিটার ট্রেগো ৬৮* (৫৩)
ডোয়াইন ব্রাভো ১/২৭ (৪ ওভার)
জিয়াউর রহমান ৪০ (২৮)
সোহেল তানভির ৩/১৮ (৪ ওভার)
  • চিটাগং কিংস টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।

ফেব্রুয়ারি ২৬
১৪:০০
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১০৬ (১৯.৫ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১১০/২ (১৪.১ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ৮ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: নাদির শাহ এবং ডেভ অরচার্ড
সেরা খেলোয়াড়: শন আরভিন (দুরন্ত রাজশাহী)
নায়ল ও’ব্রায়ান ৩৫ (৩৯)
মোহাম্মদ সামি ৩/১৬ (৩.৫ ওভার)
মারলন স্যামুয়েলস ৫০ (৩৮)
নাজমুল হোসেন মিলন ১/৮ (১.১ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৬
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
চিটাগং কিংস
১৫০/৯ (২০ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
১৫১/৫ (১৫ ওভার)
বরিশাল বার্নার্স ৫ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: গাজী সোহেল এবং জেরেমি লয়েডস (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: ব্র্যাড হজ (বরিশাল বার্নার্স)
জেসন রয় ৪২ (২৫)
ইয়াসির আরাফাত ৩/২৫ (৪ ওভার)
ব্র্যাড হজ ৬৭ (৩৬)
আরাফাত সানি ২/২১ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৭
১৪:০০
স্কোরকার্ড
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১১৬ (১৮.২ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী
১২০/৭ (১৯.৩ ওভার)
দুরন্ত রাজশাহী ৩ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: মাহফুজুর রহমান এবং নাদির শাহ
সেরা খেলোয়াড়: মোহাম্মদ সামি (দুরন্ত রাজশাহী)
ড্যারেন স্টিভেন্স ২৮ (১৬)
মোহাম্মদ সামি ৫/৬ (৩.২ ওভার)
মুশফিকুর রহিম ৪০* (৩৭)
রানা নাভেদ-উল-হাসান ২/১৯ (৪ ওভার)

ফেব্রুয়ারি ২৭
১৮:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
১৮৬/২ (২০ ওভার)
সিলেট রয়্যালস
১১৭ (১৬ ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ৬৯ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: ডেভ অরচার্ড এবং তানভির আহমেদ
সেরা খেলোয়াড়: ডোয়াইন স্মিথ (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস)
ডোয়াইন স্মিথ ১০৩* (৭৩)
স্কট স্টাইরিস ১/২১ (৪ ওভার)
সোহেল তানভির ২৬* (২৪)
আব্দুর রাজ্জাক ২/৮ (২ ওভার)

Knockout stage[সম্পাদনা]

The organisers of the tournament caused some contrওভারy after the broadcasters awarded the final semifinal spot on air to the বরিশাল বার্নার্স based on their superior net run rate over the চিটাগং কিংস, both of which were tied on the same number of points with only one of the two to progress to the next round. The following day (27 ফেব্রুয়ারি 2011) officials from the Bangladesh Premier League confirmed that চিটাগং কিংস would progress to the next round, in place of the Burners, due to a better head-to-head record. Later that day the officials retracted their initial decision and replaced the Kings with the Burners as the 4th placed team based on their superior net run rate.[১]

সেমি-ফাইনাল
ফেব্রুয়ারি 28
14:00
স্কোরকার্ড
দুরন্ত রাজশাহী
184/6 (20 ওভার)
বরিশাল বার্নার্স
189/2 (16 ওভার)
বরিশাল বার্নার্স won by 8 wickets
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: Dave Orchard and Sharfuddoula
সেরা খেলোয়াড়: Ahmed Shehzad (Barisal)
Sean Ervine 82 (61)
Yasir Arafat 3/30 (4 ওভার)
Ahmed Shehzad 113* (49)
Sabbir Rahman 1/9 (1 over)
  • বরিশাল বার্নার্স টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।

ফেব্রুয়ারি 28
18:30 (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
191/4 (20 ওভার)
খুলনা রয়েল বেঙ্গলস
182/7 (20 ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস won by 9 runs
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: Enamul Haque and Nadir Shah
সেরা খেলোয়াড়: Azhar Mahmood (Dhaka)
Azhar Mahmood 65 (39)
Hammad Azam 1/29 (3 ওভার)
সাকিব আল হাসান 86* (41)
Elias Sunny 3/29 (4 ওভার)
  • ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস টসে জয়ী হয় এবং ব্যাট করার সিন্ধান্ত নেয়।
ফাইনাল
ফেব্রুয়ারি 29
18:00 (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
বরিশাল বার্নার্স
১৪০/৭ (২০ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস
১৪৪/২ (১৫.৪ ওভার)
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ৮ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
আম্পায়ার: Dave Orchard and Enamul Haque
সেরা খেলোয়াড়: Imran Nazir (Dhaka)
Brad Hodge 70* (51)
Shahid Afridi 3/23 (৪ ওভার)
Imran Nazir 75 (43)
Alauddin Babu 1/9 (২ ওভার)
  • ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিন্ধান্ত নেয়।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

সর্বোচ্চ রান

১। আহমেদ শেহজাদ (বরিশাল বার্নার্স), ৪৮৬[২] ২। ইমরান নাজির (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস), ৩৯০ ৩। কামরান আকমল (সিলেট রয়্যালস),৩৫৬ ৪। ডোয়াইন স্মিথ (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস), ৩৪৬

সর্বোচ্চ উইকেট

১। ইলিয়াস সানি (ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস), ১৭ ২। মোহাম্মদ সামি (দুরন্ত রাজশাহী), ১৭ ৩। সাকিব আল হাসান (খুলনা রয়েল বেঙ্গলস), ১৫ ৪। এনামুল হক জুনিয়র (চিটাগং কিংস), ১৩ ৫। সোহেল তানভির (সিলেট রয়্যালস), ১৩

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান

ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারকুটে ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল বরিশাল বার্নার্সের পক্ষে ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ সালে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষে এ প্রতিযোগিতায় এক ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১১৬ রান করেন। [৩]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

২০১৩ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]