টাঙ্গাইল-৮

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(টাংগাইল-৮ থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টাঙ্গাইল-৮
জাতীয় সংসদ-এর
নির্বাচনী এলাকা
জেলাটাঙ্গাইল জেলা
বিভাগঢাকা বিভাগ
নির্বাচকমণ্ডলী৩,৪৬,৬৪৫ (২০১৮)[১]
বর্তমান নির্বাচনী এলাকা
সৃষ্ট১৯৭৩
দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
বর্তমান সাংসদজোয়াহেরুল ইসলাম

টাঙ্গাইল-৮ হল বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ৩০০টি নির্বাচনী এলাকার একটি। এটি টাঙ্গাইল জেলায় অবস্থিত জাতীয় সংসদের ১৩৭নং আসন।

সীমানা[সম্পাদনা]

টাঙ্গাইল-৮ আসনটি টাঙ্গাইল জেলার বাসাইল উপজেলাসখিপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত।[২]

নির্বাচিত সাংসদ[সম্পাদনা]

নির্বাচন সদস্য দল
১৯৭৩ ফজলুর রহমান ফারুক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ[৩]
১৯৭৯ মোরশেদ আলী খান পন্নী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল[৪]
১৯৮৬ শওকত মোমেন শাহজাহান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ[৫]
১৯৮৮ মোরশেদ আলী খান পন্নী জাতীয় পার্টি[৬][৭]
১৯৯১ হুমায়ূন খান পন্নী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬ হুমায়ুন খান পান্নী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
জুন ১৯৯৬ আবদুল কাদের সিদ্দিকী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
১৯৯৯ উপ-নির্বাচন শওকত মোমেন শাহজাহান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২০০১ আবদুল কাদের সিদ্দিকী কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ
২০০৮ শওকত মোমেন শাহজাহান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২০১৪ শওকত মোমেন শাহজাহান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২০১৪ উপ-নির্বাচন অনুপম শাহজাহান জয় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
২০১৮ জোয়াহেরুল ইসলাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

নির্বাচন[সম্পাদনা]

২০১০-এর দশকে নির্বাচন[সম্পাদনা]

২০১৪ নির্বাচনের প্রায় দুই সপ্তাহ পরে শওকত মোমেন শাহজাহান মৃত্যুবরণ করেন। মার্চ ও এপ্রিল মাসে অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে তার ছেলে অনুপম শাহজাহান জয় নির্বাচিত হন।[৮]

বিরোধীদলগুলি ২০১৪ সালের সাধারণ নির্বাচন বর্জন করে তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিলে শওকত মোমেন শাহজাহান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।[৯]

২০০০-এর দশকে নির্বাচন[সম্পাদনা]

সাধারণ নির্বাচন ২০০৮: টাঙ্গাইল-৮[১০][১১]
দল প্রার্থী ভোট % ±%
আওয়ামী লীগ শওকত মোমেন শাহজাহান ১৩৪,৬২৬ ৫৬.০ +২৭.১
বিএনপি আহমেদ আজম খান ৬৫,৫২১ ২৭.২ +০.১
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আবদুল কাদের সিদ্দিকী ৩৮,৭৭৫ ১৬.১ -২৬.৬
জেএসডি শফিউল আলম ৭৫৬ ০.৩ প্র/না
বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি শাহিদুজ্জামান লাল মিয়া ৫৬৭ ০.২ প্র/না
এলডিপি শেখ ফারুকুজ্জামান ২৯৩ ০.১ প্র/না
সংখ্যাগরিষ্ঠতা ৬৯,১০৫ ২৮.৭ +১৪.৯
মোট ২৪০,৫৩৮ ৮৮.৮ +১৭.৮
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ থেকে আওয়ামী লীগ অর্জন করে
সাধারণ নির্বাচন ২০০১: টাঙ্গাইল-৮[১২]
দল প্রার্থী ভোট % ±%
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আবদুল কাদের সিদ্দিকী ৮০,৫৫৮ ৪২.৭
আওয়ামী লীগ আবদুস সালাম খান ৫৪,৫০৫ ২৮.৯
বিএনপি আহমেদ আজম খান ৫১,১৩৫ ২৭.১
ইসলামী জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট রেজাউল করিম ১,৩০৬ ০.৭
স্বতন্ত্র নাসির উদ্দিন ৮৭৭ ০.৫
জেপি (মঞ্জু) নীলফামার ইয়াসমিন ৩৫১ ০.২
সংখ্যাগরিষ্ঠতা ২৬,০৫৩ ১৩.৮
মোট ১৮৮,৭৩২ ৭১.০
আওয়ামী লীগ থেকে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ অর্জন করে

১৯৯০-এর দশকে নির্বাচন[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব নিয়ে দলের সঙ্গে মতবিরোধ হলে আবদুল কাদের সিদ্দিকীকে বহিষ্কার করা হয়।[১৩] তিনি তখন সংসদ থেকে পদত্যাগ করেন,[১৪] ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নভেম্বর ১৯৯৯ সালের উপ-নির্বাচনে দাড়ান। উপ-নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শওকত মোমেন শাহজাহানের কাছে পরাজিত হন।[১৫]

সাধারণ নির্বাচন জুন ১৯৯৬: টাঙ্গাইল-৮[১২]
দল প্রার্থী ভোট % ±%
আওয়ামী লীগ আবদুল কাদের সিদ্দিকী ১০০,৩০৩ ৬২.৬ +১৭.১
বিএনপি কামরুজ্জামান খান ৩৫,৩৪৩ ২২.১ -২৫.২
জাতীয় পার্টি (এ) শাহ খালেদ রেজা ২০,৪৮৫ ১২.৮ +৭.৯
জামায়াতে ইসলামী খন্দকার আবদুর রাজ্জাক ২,৫৮২ ১.৬ প্র/না
ফ্রিডম পার্টি এ বাসেদ ৮৮৫ ০.৬ প্র/না
জাকের পার্টি সোহরাব আলী ৩৬৩ ০.২ -০.১
গণফোরাম এরশাদুল হক বুলবুল ১৬৮ ০.১ প্র/না
সংখ্যাগরিষ্ঠতা ৬৪,৬৯০ ৪০.৪ +৩৮.৬
মোট ১৬০,১২৯ ৭৮.৪ +২৩.৬
বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগ অর্জন করে
সাধারণ নির্বাচন ১৯৯১: টাঙ্গাইল-৮[১২]
দল প্রার্থী ভোট % ±%
বিএনপি হুমায়ূন খান পন্নী ৬১,৩৯৬ ৪৭.৩
আওয়ামী লীগ আবদুল কাদের সিদ্দিকী ৫৯,০৮৯ ৪৫.৫
জাতীয় পার্টি (এ) মোরশেদ আলী খান পন্নী ৬,৩০৯ ৪.৯
জেএসডি (সিরাজ) আবুল হাশেম ১,৫৬২ ১.২
জাতীয় যুক্তফ্রন্ট আশরাফ আলী ৫৫৮ ০.৪
জাকের পার্টি আবদুল্লাহ মিয়া ৩২২ ০.৩
জেএসডি এ সামাদ ২৭১ ০.২
এনডিপি খন্দকার রুহুল আমিন সেলিম ২৩৩ ০.২
সংখ্যাগরিষ্ঠতা ২,৩০৭ ১.৮
মোট ১২৯,৭৪০ ৫৪.৮
জাতীয় পার্টি (এ) থেকে বিএনপি অর্জন করে

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. এমরান হোসাইন শেখ (১০ অক্টোবর ২০১৮)। "কোন আসনে কত ভোটার"বাংলা ট্রিবিউন। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "জাতীয় সংসদীয় আসনবিন্যাস (২০১৩) গেজেট" (PDF)বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১৬ জুন ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ আগস্ট ২০১৫ 
  3. "১ম জাতীয় সংসদ সদস্যদের তালিকা" (PDF)বাংলাদেশ সংসদ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  4. "২য় জাতীয় সংসদ সদস্যদের তালিকা" (PDF)বাংলাদেশ সংসদ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১৪ 
  5. "৩য় জাতীয় সংসদ সদস্যদের তালিকা" (PDF)বাংলাদেশ সংসদ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১৪ 
  6. "৪র্থ জাতীয় সংসদ সদস্যদের তালিকা" (PDF)বাংলাদেশ সংসদ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১৪ 
  7. "সংশোধনী"দৈনিক যুগান্তর। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭। 
  8. "টাঙ্গাইল-৮ আসনে ‍আ'লীগের অনুপম বিজয়ী"www.banglanews24.com। ১৬ এপ্রিল ২০১৪। ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  9. "১৫৩ আসনে জয়ী যারা"দৈনিক সমকাল। ৪ জানুয়ারি ২০১৪। ৬ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  10. "৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন" (PDF)বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ২৮ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০১৮ 
  11. "মনোনয়ন জমাদানের তালিকা"বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  12. "Parliament Election Result of 1991,1996,2001 Bangladesh Election Information and Statistics"ভোট মনিটর নেটওয়ার্ক (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  13. "বড় ভাইয়ের আসনে প্রার্থী হচ্ছেন কাদের সিদ্দিকী"Bhorer Kagoj। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। 
  14. "Bangladesh: Rebel MP's resignation will not affect party: Hasina" [বাংলাদেশ: বিদ্রোহী সাংসদের পদত্যাগ দলকে প্রভাবিত করবে না: হাসিনা]। দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ১ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯। 
  15. আখতার, মুহাম্মদ ইয়াহিয়া (২০০১)। Electoral Corruption in Bangladesh [বাংলাদেশে নির্বাচনী দুর্নীতি] (ইংরেজি ভাষায়)। আশগেট। পৃষ্ঠা 168। আইএসবিএন 0-7546-1628-2 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৪°১৯′ উত্তর ৯০°১০′ পূর্ব / ২৪.৩২° উত্তর ৯০.১৭° পূর্ব / 24.32; 90.17