ইসলামী পুরাণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ইসলামী পুরান[সম্পাদনা]

ইসলাম সপ্তম শতাব্দীতে প্রতিষ্ঠা পায় এবং উত্তরাধিকার সূত্রে অনেক প্রাক-ইসলামী আরবীয় পৌরানিক উপাদান লাভ করে। উপরন্তু ইহুদি (যেমন- আব্রাহাম) ও খ্রীষ্টিয় পুরান (যেমন-যীশু) হতেও এতে উপাদান অন্তর্ভূক্ত হয়েছে।

অশুভ দৃষ্টির (Evil Eye) ধারণা কোরানের সুরা আল-ফালাকে (যেখানে মানুষকে সাহায্য চাইতে বলা হয়েছে “হিংসুকের অনিষ্ট হইতে, যখন সে হিংসা করে”) উধৃত হয়েছে। কখনও কখনও অশুভ দৃষ্টি হতে রক্ষা পাবার জন্য ফাতিমার হাত ব্যবহৃত হতো। যদিও সব ধরনের তাবিজ ও অন্ধবিশ্বাসের মতই এর ব্যবহারও ইসলামে নিষিদ্ধ। প্রথানুগ মুসলিমদের মধ্যে আশীর্বাদপ্রাপ্তি বা ঐ ধরনের অন্ধবিশ্বাস হতে রক্ষা পাবার জন্য কোরানের নানা আয়াত (যেমন আন-নিসা এবং আল-ফালাক) আবৃত্তি করতে দেখা যায়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বাইরের উৎস[সম্পাদনা]