ইব্রাহিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইব্রাহিম

আলাইহিস সালাম ( عليه السلام )
Ibrahim (Abraham)1.png
ইব্রাহিম নাম ইসলামিক লিপিবিদ্যায় লেখা
স্থানীয় নাম
ইব্রাহিম - إبراهيم
জন্মআনু. ২৫১০ হিজরি
মৃত্যুআনু. ২৩২৯ হিজরি (আনুমানিক ১৭৫ বছর বয়সী)
মৃত্যুর কারণবার্ধক্য
সমাধিইব্রাহিমী মসজিদ
দাম্পত্য সঙ্গীহাজেরা, সারাহ
সন্তানইসমাইল, ইসহাক

ইব্রাহিম বা ইব্রাহীম, সম্মানার্থে হযরত ইব্রাহিম (আ.) (আরবি: ابراهيم‎‎, হিব্রু ভাষায়: אַבְרָהָם‎) তোরাহ অনুসারে আব্রাহাম (ইংরেজি: Abraham) (আনুমানিক জন্ম: ১৯০০ খৃষ্ট পূর্বাব্দ থেকে ১৮৬১ খৃষ্ট পূর্বাব্দে জন্ম – মৃত্যু: ১৮১৪ খৃষ্ট পূর্বাব্দ থেকে ১৭১৬ খৃষ্ট পূর্বাব্দ), ইসলাম ধর্মের একজন গুরুত্বপূর্ণ নবীরাসূল[১][২] পবিত্র কুরআনে তাঁর নামে একটি সূরাও রয়েছে। পুরো কুরআনে অনেকবার তাঁর নাম উল্লেখিত হয়েছে। ইসলাম ধর্মমতে, তিনি মুসলিম জাতির পিতা। ইসলাম ছাড়াও, ইহুদি ও খ্রিস্টধর্মেও ইব্রাহিম শ্রদ্ধাস্পদ ব্যক্তিত্ব হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছেন। এজন্য ইবরাহিমকে সেমেটিক ধর্মগুলোর জনকও বলা হয়ে থাকে। কা'বুল আহবার-এর মতে তিনি ১৯৫ বছর জীবিত[৩] ছিলেন। সৃষ্টিকর্তার প্রতি তার দৃঢ় বিশ্বাসের এর ফলে সৃষ্টিকর্তা তাকে সর্বকালের সকল জাতির নেতা বানানোর প্রতিজ্ঞা করেন।[৪] ইসলামে তার কার্যক্রম কে স্মরণ করে ঈদুল আযহা পালিত হয়। ইব্রাহিম ও তার শিশুপুত্র ইসমাইল ইসলামে কুরবানি[৫] ও হজ্জের বিধান চালু করেন যা বর্তমানের মুসলিমদের দ্বারাও পালিত হয়।

ইব্রাহিম (আঃ) এর কবর

জন্ম ও বংশ পরিচয়[সম্পাদনা]

তাঁর পিতার নাম আযর। তাঁর স্ত্রীর নাম সারাহহাজেরা। তাঁর চার পুত্র ছিলেন: ইসমাইল (ইংরেজি: Ishmael), ইসহাক (ইংরেজি: Isaac)। মতান্তরে, তাঁর ৬-১২জন পুত্র ছিলেন।[৩] তবে, পুত্র হিসেবে কেবল ইসমাইল ও ইসহাকের বর্ণনাটিই ইতিহাসে প্রসিদ্ধ। অন্যদের ব্যাপারে ঐতিহাসিক উল্লেখের তেমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না।

আসমানী কিতাব[সম্পাদনা]

ইসলাম ধর্মমতে, ইব্রাহিমের [আ.] উপর সহীফা অবতীর্ণ হয়েছে।[৩]

খৎনা করণ[সম্পাদনা]

কোন কোন ইসলামি পণ্ডিতে মতে, তিনিই প্রথম মিসওয়াক করেন, প্রস্রাব সেরে পানি দ্বারা পরিষ্কার হোন, খৎনা করেন[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. কুরআন 87:19
  2. Siddiqui, Mona"Ibrahim – the Muslim view of Abraham"Religions। BBC। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  3. ফক্বীহ আবুল লাইস সমরকন্দী। "নবী রাসুল প্রসঙ্গ"। বুস্তানুল আ'রেফীন (প্রিন্ট)। মাওলানা লিয়াকত আলী কর্তৃক অনূদিত (১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দ সংস্করণ)। চকবাজার, ঢাকা: হামিদিয়া লাইব্রেরী লি:। 
  4. কুরআন। পৃষ্ঠা ২:১২৪। 
  5. কুরআন। পৃষ্ঠা ২:১২৮। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]