যামিনী কৃষ্ণমূর্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
যামিনী কৃষ্ণমূর্তি
Yamini Krishnamurthy.JPG
জন্ম (1940-12-20) ২০ ডিসেম্বর ১৯৪০ (বয়স ৭৯)
মাদানাপল্লি, মাদ্রাজ প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ভারত
জাতীয়তাভারতীয়
পরিচিতির কারণভারতীয় ধ্রুপদী নৃত্য
আন্দোলনভরতনাট্যম, কুচিপুডি
পুরস্কারপদ্মবিভূষণ, পদ্মভূষণ, পদ্মশ্রী ১৯৮০

মুঙ্গারা যামিনী কৃষ্ণমূর্তি (জন্ম ২০ ডিসেম্বর ১৯৪০) হলেন একজন ভরতনাট্যম এবং কুচিপুড়ি [১] ধারার নৃত্যশিল্পী। [২][৩]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

যামিনী কৃষ্ণমূর্তি অন্ধ্র প্রদেশের চিতোর জেলায় মাদানাপল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি এক অর্ধচন্দ্র রাতে জন্মগ্রহণ করেন, এবং তাঁর ঠাকুরদা তাঁর নাম রাখেন যামিনী পূর্ণতিলকা, যার অর্থ 'একটা রাতের পূর্ণ ভ্রূ চিহ্ন'। তাঁর ঠাকুরদা একজন স্বনামধন্য উর্দু কবি ছিলেন। পরবর্তীতে তাঁকে তামিলনাডুর চিদম্বরমে আনা হয়। তাঁর মাতৃভাষা হল তেলুগু[৪]

যামিনী ভরতনাট্যম নৃত্য শিক্ষা করেছিলেন কাঞ্চিপুরম এল্লাপ্পা পিল্লাই, তাঞ্জাভুর কিট্টাপ্পা পিল্লাই ও দণ্ডায়ুধপাণি পিল্লাইয়ের তত্ত্বাবধানে। তিনি কুচিপুড়ি নৃত্যের পাঠ নিয়েছিলেন বেদান্তম লক্ষ্মী নারায়ণ শাস্ত্রী, চিন্তা কৃষ্ণমূর্তি এবং পাসুমার্তি বেণুগোপাল কৃষ্ণশর্মার কাছে। এছাড়া তিনি ওড়িশি নৃত্যশৈলীর তালিম নিয়েছিলেন পঙ্কজ চরণ দাস এবং কেলুচরণ মহাপাত্রের অধীনে।

বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন যামিনী কর্ণাটকী সংগীতেও শিক্ষালাভ করেছিলেন। এবিষয়ে তাঁর গুরু ছিলেন এম ডি রামানাথন। এবং এমনকি বীণা বাদনও শিক্ষা করেছিলেন কল্পাকম স্বামীনাথনের কাছে।[৫]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৫৭ খ্রিস্টাব্দে মাদ্রাজে যামিনী কৃষ্ণমূর্তির অভিষেক হয়েছিল। তিনি তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানম মন্দিরের আস্থানা নর্তকী (গৃহ নর্তকী) -এর অনন্য সম্মান পেয়েছেন। কয়েকজন সমালোচকের ধারণা হল যে, যামিনী কৃষ্ণমূর্তির নৃত্যের ছন্দে তাঁর ব্যক্তিত্ব প্রতিফলিত হয়। এছাড়া তিনি কুচিপুড়ি ধারার নৃত্যের 'মশাল বাহক' হিসেবে পরিচিত।

তিনি ভরতনাট্যম এবং কুচিপুডি নৃত্যশৈলীর একজন নেতৃস্থানীয় প্রচারকরূপে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলেন। নয়াদিল্লির হাউজ খাসে তাঁর নৃত্যশিক্ষার প্রতিষ্ঠান যামিনী স্কুল অফ ডান্সে তিনি নবীন নৃত্যশল্পীদের শিক্ষা প্রদান করেন।

শিব গণেশ হলেন তাঁর ব্যবস্থাপক।

আত্মজীবনী[সম্পাদনা]

'আ প্যাশন ফর ডান্স' নামে তাঁর একটা আত্মজীবনী প্রকাশ করেছেন, যে বই পাঠকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে। [৬]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

যামিনী কৃষ্ণমূর্তি জীবনে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হননি।[৭]

পুরস্কারসমূহ[সম্পাদনা]

তাঁর নৃত্যশিল্পীর কর্মজীবন তাঁকে অনেক পুরস্কার এনে দিয়েছে, যেমন, পদ্মশ্রী (১৯৬৮),[৮] পদ্মভূষণ (২০০১), এবং পদ্মবিভূষণ (২০১৬), যেগুলো ভারত সরকারের সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান।.[৯] ২০১৮ সালের ৮ ই মার্চ মহিলা দিবস উপলক্ষে শম্ভভী স্কুল অফ ডান্সের আয়োজিত 'নায়িকা-এক্সিলেন্স পার্সনিফায়েডে' অনুষ্ঠানে "নাট্য শাস্ত্র" পুরস্কারে তাকে সম্মানিত করা হয়েছিল। তিনি অনুষ্ঠানে 'কন্ট্রিবিউশন অফ ওম্যান টু কুচিপুড়ি' বিষয়ে এক ভাষণ প্রদান করেন।[১০] তিনি প্রতীক্ষা কাশি প্রদর্শিত একটা ডিভিডিও প্রকাশ করেন, যিনি হলেন কুচিপুড়ি নৃত্যাঙ্গন সম্ভাবীর শৈল্পিক পরিচালক বৈজয়ন্তী কাশির কন্যা। [১১][১২]
যামিনী কৃষ্ণমূর্তি ভরতনাট্যম, কুচিপুড়ি এবং ওড়িশি নৃত্যে অসামান্য অবদানের জন্যে অমরাবতী নাট্যোৎসবের পক্ষ থেকে ড. কে চক্রপাণি কর্তৃক ২০১৬ খ্রিস্টাব্দে 'অমরাবতী আজীবন সম্মাননা' সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।[১৩]

উদ্ধৃতিসমূহ[সম্পাদনা]

  • 'একজন নৃত্যশিল্পীর অবশ্যই অসাধারণ দৃঢ় ব্যক্তিত্ব থাকা উচিত। একজন ভগবান তুল্য যিশুখ্রিস্ট এবং এমনকি রজনীশের মতো ঐশ্বরিক ব্যক্তিরও এরকম ব্যক্তিত্ব আছে। প্রতিভা, উৎসর্গ, সৃষ্টিশীলতা এবং আবেগের সমন্বয় হল বাধ্যতামূলক ব্যাপার। এই চার রকম গুণের সম্মিলিত কৌশলটা হল বিশেষভাবে জরুরি। একঘেয়েমি তোমার প্রতিবন্ধক হয়ে দাড়াবে, যদি তুমি একে তোমার স্টাইল মনে কর এবং আমি লক্ষ্য করছি, বিস্ময়করভাবে নবীন নৃত্যশিল্পীরা সেই ধাচে পারফর্ম করছে।'
  • 'অতীত ছিল উত্তেজনাপূর্ণ, বর্তমান অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং। ভবিষ্যত, যা অনেক প্রতিশ্রুতি এবং চমক ধারণ করে আছে। আমি তাদের উন্মোচন করার জন্যে অপেক্ষা করতে পারবনা।'
  • অবিবাহিত থেকে যাওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেছিলেন যে, 'বিয়ে হ'ল না কারণ এটি করা হয়নি। আর সন্তানের কথা বলতে, আমার সকল শিষ্যই হল আমার সন্তান।' [১৪]


নায়িকা-এক্সিলেন্স পার্সনিফায়েড অনুষ্ঠানে ড. যামিনী কৃষ্ণমূর্তি
২০১৪ খ্রিস্টাব্দের ৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষ্যে নায়িকা-এক্সেলেন্স পার্সনিফায়েডের অংশ হিসেবে পদ্মভূষণ ড. যামিনী কৃষ্ণমূর্তিকে নাট্য শাস্ত্র]] সম্মানে ভূষিত করা হচ্ছে। 
নায়িকা-এক্সিলেন্স পার্সনিফায়েডের অংশ হিসেবে সম্ভাবী ডান্স থিয়েটার প্রযোজিত প্রতীক্ষা কাশি প্রদর্শিত দ্য ম্যাজিক অফ কুচিপুড়ি ডান্স ডিভিডি প্রকাশ অনুষ্ঠান। 


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Kuchipudi ambassadors"The Hindu 
  2. PTI। "Pratibha presents Sangeet Natak Akademi fellowships, awards"The Hindu 
  3. "The Tribune — Windows — This Above All"tribuneindia.com 
  4. https://www.britannica.com/biography/Yamini-Krishnamurthy
  5. https://www.sruti.com/index.php?route=archives/artist_details&artId=294
  6. http://dances.indobase.com/dancers/yamini-krishnamurthy.html
  7. https://www.celebrityborn.com/biography/yamini-krishnamurthy/3534
  8. Padma Shri Awardees
  9. Padma Bhushan Awardees
  10. "Lecture Demonstration at Nayika, Bangalore"। www.thehindu.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-২৭ 
  11. "Yamini Krishnamurthy in "Naykia-Excellence Personified""। www.narthaki.com। ২০১৪-০৩-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-১৪ 
  12. "Yamini Krishnamurthy Confer with Natyashastra Award"। www.buzzintown.com। ২০১৪-০৩-১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-১৪ 
  13. https://www.thehindu.com/entertainment/dance/an-artiste-like-no-other/article17321255.ece
  14. https://narthaki.com/info/intervw/intrv121.html