নর্তকী নটরাজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রথব মুখার্জির হাত থেকে পদক গ্রহণ করছেন নর্তকী নটরাজ

নর্তকী নটরাজ একজন ভারতীয় শাস্ত্রীয় নৃত্যশিল্পী, যিনি ভরতনাট্যম নৃত্যকলায় সুদক্ষ। ২০১৯ সালে, প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রূপে তিনি শিল্পকলায় তাঁর অবদানের জন্যে দেশের চতুর্থ সর্ব্বোচ্চ অসামরিক পুরস্কার পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হন।[১]

ব্যক্তিগত জীবন ও প্রশিক্ষণ[সম্পাদনা]

নর্তকী নটরাজের জন্ম ভারতের তামিলনাড়ুর মাদুরাইয়ে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে একজন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রূপে। মাত্র ১১ বছর বয়সে তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল তাঁর লিঙ্গ পরিচয়ের কারণে। বিভিন্ন রকম কাজ করে, আধপেটা খেয়ে নর্তকী কোনওভাবে স্কুল শেষ করেন। শৈশব থেকেই নর্তকীর নাচের প্রতি অদম্য আকর্ষণ ছিল এবং এত দারিদ্র্য ও অসুবিধার মধ্যেও তাঁর নাচের প্রতি ভালোবাসা বিন্দুমাত্র কমেনি। তাঁর প্রথম নৃত্যগুরু ছিলেন নামানুর জয়ারামান এবং মাদুরাই টি জি জয়ারামন। এই সময়ে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্যে কাজ করা সংগঠন অপরাজিতা র পরিচালক ভারতথ কে এস এবং তাঁর মা নর্তকীকে আর্থিক ও মানসিক ভাবে সহায়তা করেছিলেন। জয়রামনের কাছে শেখার পরে, তিনি ভরতনাট্যমে আরও উন্নত প্রশিক্ষনের জন্যে একজন গুরুর সন্ধান করছিলেন। সেই সময়ে তিনি বিখ্যাত তাঞ্জোর চতুর্বর্গের (চিন্নায়া, পোণনাইয়া, শিবানন্দম এবং বদিভেলু) বংশধর কিত্তাপ্পা পিল্লাই, যিনি ভরতনাট্যমের মহীরুহ হিসাবে বিবেচিত, নাম্নী গুরুর সংস্পর্শে আসেন। নর্তকী তাঁর কাছে ১৫ বছর ধরে থেকে গুরুকুল পদ্ধতিতে ভরতনাট্যম শিখেছিলেন। তিনি তাঞ্জোর তামিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রী কিত্তাপ্পা পিল্লির সহকারী হিসাবেও কাজ করেছিলেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালে গুরুর মৃত্যুর পরে তিনি ২০০০ সালে চেন্নাই চলে এসেছিলেন এবং তখন থেকেই তিনি একজন পুরো সময়ের পেশাদার নৃত্যশিল্পী ও প্রশিক্ষক রূপে কাজ করেন[২]। নর্তকী তাঞ্জোর ভিত্তিক নায়িকাভাব ঐতিহ্যে বিশেষীকরণ করেছেন। তাঁর বন্ধু শক্তি ভাস্করের সাথে, তিনি চেন্নাই এবং মাদুরাইতে একটি নৃত্যের স্কুল "ভেলিয়াম্বলম নাদনা কালাই কুডম" স্থাপন করেছিলেন। তিনি ভরতনাট্যমের তাঞ্জোর রীতিতে ভারত এবং বিদেশের শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেন[৩]মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং কানাডায় তাঁর নৃত্যালয়ের শাখা রয়েছে। এছাড়াও তিনি নরওয়েঅসলোতে সরকারী সংগীত বিভাগে বার্ষিক কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দেন। কর্মশালাগুলিতে শক্তি এবং নর্তকী ভারতীয় এবং নরওয়েজিয়ান শিক্ষার্থীদের তেভরাম, তিরুপুগাজহ এবং তিরুবাচম শেখান। তাঁর জীবন ও কঠিন সংগ্রামের কথা ২০১৮ সালে তামিলনাড়ু শিক্ষা সংসদের একাদশ শ্রেণীর পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।[৪] তিনি ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য সহ ইউরোপের বিভিন্ন নৃত্য উৎসবে অংশগ্রহণ করেছেন।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dancer Narthaki Nataraj Becomes The First Transgender To Be Awarded Padma Shri"indiatimes.com। ২৬ জানুয়ারি ২০১৯। 
  2. "NARTHAKI NATARAJ"www.sruti.com 
  3. "It only takes passion, self-confidence to achieve success: Padma awardee Narthaki Natraj"The New Indian Express 
  4. Kolappan, B. (৯ জুন ২০১৮)। "Transgenders find a place in Tamil textbook for Plus One"The Hindu – www.thehindu.com-এর মাধ্যমে। 
  5. "CUR_TITLE"sangeetnatak.gov.in। ২ মে ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০২০ 
  6. "Narthaki Nataraj: Narthaki Nataraj to get honorary doctorate | Chennai News - Times of India"The Times of India 
  7. http://iccr.gov.in/sites/default/files/RLIST2017.pdf[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]