গ্লেন টার্নার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গ্লেন টার্নার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম গ্লেন মেইটল্যান্ড টার্নার
জন্ম (১৯৪৭-০৫-২৬) ২৬ মে ১৯৪৭ (বয়স ৬৭)
ডুনেডিন, ওতাগো, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি
ভূমিকা ব্যাটসম্যান, অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ১৭৪) ২৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট ১১ মার্চ ১৯৮৩ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ) ১১ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৩ বনাম পাকিস্তান
শেষ ওডিআই ২০ জুন ১৯৮৩ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৯৭৭/৭৮-১৯৮২/৮৩ ওতাগো
১৯৭৬/৭৭ নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস
১৯৬৭-১৯৮২ ওরচেস্টারশায়ার
১৯৬৭ মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব
১৯৬৪/৬৫-১৯৭৫/৭৬ ওতাগো
কর্মজীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪১ ৪১ ৪৫৫ ৩১৩
রানের সংখ্যা ২,৯৯১ ১,৫৯৮ ৩৪,৩৪৬ ১০,৭৮৪
ব্যাটিং গড় ৪৪.৬৪ ৪৭.০০ ৪৯.৭০ ৩৭.৭০
১০০/৫০ ৭/১৪ ৩/৯ ১০৩/১৪৮ ১৪/৬৬
সর্বোচ্চ রান ২৫৯ ১৭১* ৩১১* ১৭১*
বল করেছে ১২ ৪৪২ ১৯৬
উইকেট
বোলিং গড় ৩৭.৮০ ১৬.৮৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং –/– –/– ৩/১৮ ২/৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪২/– ১৩/– ৪০৯/– ১২৫/–
উত্স: Cricinfo, ২২ এপ্রিল ২০১৪

গ্লেন মেইটল্যান্ড টার্নার (জন্ম: ২৬ মে, ১৯৪৭) ওতাগোর ডুনেডিনে জন্মগ্রহণকারী সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটার। তাঁকে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা ও সর্বাপেক্ষা নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হিসেবে মনে করা হয়। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের হয়ে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটিংয়ে পারদর্শী ছিলেন। এছাড়াও তিনি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮০-এর দশকের মধ্যভাগে নিউজিল্যান্ড দলের কোচ ছিলেন ও অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো সিরিজ বিজয়ে নেতৃত্ব দেন। বর্তমানে তিনি নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে দল নির্বাচকমণ্ডলীর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ওতাগো বয়েজ হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন টার্নার। তাঁর ভাই ব্রায়ান টার্নার একজন কবি ও গল্ফার। স্ত্রী ডেম সুখি টার্নার ডুনেডিনের সাবেক মেয়র।

ইংরেজ কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপে ওরসেস্টারশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তাঁর। সর্বমোট ৪৫৫টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশগ্রহণ করে ৩৪,৩৪৬ রান সংগ্রহ করেন। ৪৯.৭০ রান গড়ে ১০৩টি শতক তুলে নেন। ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান, জহির আব্বাসভিভ রিচার্ডসের পর চারজন অ-ইংরেজের মধ্যে তিনি অন্যতম, যিনি সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি করেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ১৯৭৩ সালে মে মাসের পূর্বেই ইংল্যান্ডের কাউন্টিতে ওরচেস্টারশায়ারের পক্ষে এক হাজার প্রথম-শ্রেণীর রান সংগ্রাহক হয়েছেন। এরপর ১৯৮৮ সালে গ্রেইম হিক এ কৃতিত্ব অর্জন করেন। কেবলমাত্র আটজন ব্যাটসম্যান এ কৃতিত্ব অর্জন করলেও সফরকারী দলের সাথে ভ্রমণরত অবস্থায় তিনি ও ব্র্যাডম্যান এ কৃতিত্বের দাবীদার।[১] এছাড়াও তিনি দলীয় ইনিংসের ৮৩.৪৩% রান সংগ্রহ করে রেকর্ডের আসনে রয়েছেন। ১৯৭৭ সালে সোয়ানসীতে গ্ল্যামারগনের বিপক্ষে ওরচেস্টারশায়ার ১৬৯ রানে আউট হয়। তিনি ১৪১* রান করে অপরাজিত ছিলেন। বাদ-বাকী ব্যাটসম্যানেরা মাত্র ২৭ রান ও একটি অতিরিক্ত রান ছিল।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Easterbrook, Basil (1974)। "1,000 runs by the end of may, Glenn Turner joins the elite"WisdenESPNcricinfo। সংগৃহীত 18 February 2013 
  2. "Glamorgan v Worcestershire Schweppes County Championship 1977"CricketArchive। সংগৃহীত 18 February 2013 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
বেভান কংডন
নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৭৫/৭৬-১৯৭৬/৭৭


উত্তরসূরী
মার্ক বার্গেস
পূর্বসূরী
নরম্যান গিফোর্ড
ওরচেস্টারশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৮১


উত্তরসূরী
ফিল নিল