বোলিং গড়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

বোলিং গড় হল এক প্রকারের পরিসংখ্যান, যা দিয়ে ক্রিকেট খেলায় একজন বোলারের বোলিং স্বচ্ছলতা যাচাই করা হয়। এটা প্রতি উইকেটে কত রান দেওয়া হয়েছে তার অনুপাত। অর্থাৎ, একজন বোলার কত ভালো বোলিং করছে তা বলা যাবে তার বোলিং গড় যত কম হবে তার ভিত্তিতে। বোলিং গড় সাধারনতঃ একজন বোলারের সম্পূর্ণ পারফরম্যান্স যাচাই করতে ইকোনমি রেট আর স্ট্রাইক রেটের সমন্বয়ে নির্ণয় করা হয়।

হিসাব[সম্পাদনা]

একজন ক্রিকেটারের বোলিং গড় হিসাব করা হয় সে কি পরিমান রান দিয়েছেকে কতগুলো উইকেট নিয়েছে দিয়ে ভাগ করার মাধ্যমে।[১] বোলার কত রান দিয়েছে তা নির্ণয় করা হয়, বোলার যখন বোলিং করছিল তখন বিপক্ষ দলের ব্যাটসম্যান কত রান করেছে তা দিয়ে, কিন্তু এর মাঝে যদি কোন বাই রান, লেগ বাই রান[২] অথবা পেনাল্টি রান[৩] একজন বোলার কোন উইকেটের সম্পূর্ণ কৃতিত্ব পাই যখন তারা বোলিং করার সময় ব্যাটসম্যান আউট হয় বোল্ড, কট, হিট উইকেট, লেগ বিফোর উইকেট অথবা স্ট্যাম্পিংয়ের দ্বারা। [৪]

রেকর্ড[সম্পাদনা]

বোলিং গড় বের করার ক্ষেত্রে একেক পরিসংখ্যানবিদের কৌশল একেক রকম।

টেস্ট ক্রিকেটে জর্জ লোহম্যানের রয়েছে ১০.৭৫ রেটের সর্বনিম্ন ও সেরা বোলিং গড়। ভিন্ন ভিন্ন কৌশল হওয়া সত্তেও এই ব্যাপারে ইএসপিএনক্রিকইনফো, আলমানাক এবং ক্রিকেট আর্কাইভ একমত পোষণ করেছে।[৫][৬][৭] যদি যোগ্যতার ব্যাপারে কোন বিভাগ করা না থাকত, তাহল উইলফ বার্বার, এ এন হর্নবি এবং ব্রুস মারে- এই তিনজনের মাঝে ড্র হয়ে যেত কারণ তারা শুধুমাত্র একটি টেস্ট ম্যাচ খেলে কোন রান না দিয়ে একটি করে উইকেট নিয়েছেন। এবং তাদের বোলিং গড় হল শূন্য। [৮]

ওয়ান ডে ক্রিকেটে, ইএসপিএনক্রিকইনফো এবং ক্রিকেট আর্কাইভের ভিন্ন কৌশলের কারণে রেকর্ডধারীও ভিন্ন। ইএসপিএন ক্রিক ইনফোর কৌশল হচ্ছে সবচেয়ে কঠিন, সর্বনিম্ন ১০০০ বল করা লাগবে। আর এই হিসাবে জোল গার্নার হলেন রেকর্ডধারী কারণ তার বোলিং গড় হল ১৮.৮৪।[৯] ক্রিকেট আর্কাইভের কৌশল একটু সহজতর, সর্বনিম্ন ৪০০ বল করা লাগবে। আর এই হিসাবে জন স্নো হলেন রেকর্ডধারী, কারণ তার বোলিং গড় হল ১৬.৫৭।[১০]

টি২০ খেলার ক্ষেত্রেও এই দুই ওয়েবসাইটের ভিন্ন মত পাওয়া যায়। কিন্তু এই ক্ষেত্রে সহজ হল ইএসপিএন ক্রিক ইনফো, সর্বনিম্ন ৩০ বল, এবং ৮.২০ গড় নিয়ে জর্জ ও'ব্রায়ান হলেন রেকর্ডধারী। অন্যদিকে কঠিন হল ক্রিকেট আরকাইভ, সর্বনিম্ন ২০০ বল, এবং আন্দ্রে বোথা ৮.৭৬ গড় নিয়ে রেকর্ডধারী।[১১][১২]

আন্তর্জাতিক মহিলা ক্রিকেটের ক্ষেত্রেও এই দুই ওয়েবসাইটের দ্বিমত চালু রয়েছে। ইএসপিএন ক্রিক ইনফোর মতে মহিলা টেস্ট ক্রিকেট-এ বেটি উইলসনের রয়েছে সেরা গড়, তা হল ১১.৮০,[১৩] অন্যদিকে ক্রিকেট আর্কাইভের মতে ৫.৭৮ গড় নিয়ে মেরি স্পিয়ার্স হল সেরা।[১৪] মহিলা ওডিআইয়ে, ক্রিকেট আর্কাইভের মতে ৯.৫২ গড় নিয়ে ক্যারোলিন বার্স সেরা,[১৫] এবং ইএসপিএন ক্রিকইনফো’র মতে ১২.৫৩ গড় নিয়ে গিল স্মিথ সেরা।[১৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. van Staden (2008), p. 2.
  2. "Understanding byes and leg byes"। BBC Sport। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  3. "Law 42 (Fair and unfair play)"Marylebone Cricket Club। ২০১০। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  4. "The Laws of Cricket (2000 Code 4th Edition – 2010)"। Marylebone Cricket Club। ২০১০। পৃ: 42–49। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  5. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CATest নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; WTest নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  7. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CITest নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  8. "Records / Test matches / Bowling records / Best career bowling average (without qualification)"। ESPNcricinfo। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  9. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CIODI নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  10. "ODI Lowest Career Bowling Average"। CricketArchive। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  11. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CIT20I নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  12. "International Twenty20 Lowest Career Bowling Average"। CricketArchive। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  13. "Records / Women's Test matches / Bowling records / Best career bowling average"। ESPNcricinfo। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  14. "Women's Test Lowest Career Bowling Average"। CricketArchive। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  15. "Women's ODI Lowest Career Bowling Average"। CricketArchive। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩ 
  16. "Records / Women's One-Day Internationals / Bowling records / Best career bowling average"। ESPNcricinfo। সংগৃহীত ৬ জানুয়ারি ২০১৩