২০১৪ ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
২০১৪ আইসিসি বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
CWCQ2014Logo.jpg
তারিখ ১৩ জানুয়ারি, ২০১৪ – ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
ব্যবস্থাপক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল
ক্রিকেটের ধরন একদিনের আন্তর্জাতিক
লিস্ট এ ক্রিকেট
প্রতিযোগিতার ধরন রাউন্ড-রবিননক-আউট
আয়োজক নিউজিল্যান্ড নিউজিল্যান্ড
বিজয়ী  স্কটল্যান্ড (২য় শিরোপা)
অংশগ্রহণকারী ১০
খেলার সংখ্যা ৩৪
প্রতিযোগিতার সেরা
খেলোয়াড়
স্কটল্যান্ড প্রিস্টন মমসেন
সর্বোচ্চ রান সংযুক্ত আরব আমিরাত খুররম খান (৫৮১)
সর্বোচ্চ উইকেট হংকং হাসিব আমজাদ (২০)
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট www.icc-cricket.com

২০১৪ আইসিসি বিশ্বকাপ বাছাই-পর্ব (ইংরেজি: 2014 ICC World Cup Qualifier) অস্ট্রেলিয়ানিউজিল্যান্ডে যৌথভাবে ১৪ দলের[১] অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের চূড়ান্ত বাছাই ক্রিকেট প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থানীয় দুইটি দল আয়ারল্যান্ড ও আফগানিস্তান ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা লাভ করে।[২] বাছাই-পর্বের মাধ্যমে ২০০৯-১৪ বিশ্ব ক্রিকেট লীগের সমাপণ ঘটে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আয়োজিত ২০১৪ সালের ১৩ জানুয়ারি থেকে ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতাটি শুরুতে স্কটল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল।

এ প্রতিযোগিতায় স্কটল্যান্ড তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। পাশাপাশি দলটি একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার মর্যাদা পায়। সংযুক্ত আরব আমিরাত দল দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা অর্জনের পাশাপাশি দলটি একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার মর্যাদা পায়। বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন না করলেও প্রতিযোগিতায় ৩য় ও ৪র্থ স্থানলাভকারী হংকং এবং পাপুয়া নিউগিনি দল প্রথমবারের মতো একদিনের আন্তর্জাতিকের মর্যাদা পায়। এছাড়াও, প্রতিযোগিতায় বাজে ফলাফলের প্রেক্ষিতে আইসিসি’র সহযোগী সদস্য নেদারল্যান্ডস, কেনিয়া এবং কানাডা বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হয় ও ২০১৮ সাল পর্যন্ত ওডিআই মর্যাদা হারায়। কিন্তু নেদারল্যান্ডস দল স্কটল্যান্ডের পরিবর্তে ২০১৪ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা লাভ করে।

২০০৯ সালের আইসিসি বিশ্বকাপ বাছাই-পর্বে আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট দল শিরোপা লাভ করেছিল। ১০টি দেশের জাতীয় ক্রিকেট দল এ প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

ধরণ[সম্পাদনা]

আইসিসি’র সিদ্ধান্ত মোতাবেক অংশগ্রহণকারী ১০টি দলকে দুই গ্রুপে বিভক্ত করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে। প্রতি গ্রুপের শীর্ষস্থানীয় ৩টি দলকে নিয়ে সুপার সিক্স পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। গ্রুপের শীর্ষস্থানীয় দল দুইটি ফাইনালে খেলাসহ ১৪-দল নিয়ে গড়া ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করবে।[৩] এছাড়াও শীর্ষস্থানীয় ৪টি দল পরবর্তী ৪ বছরের জন্য একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মর্যাদাপ্রাপ্ত সদস্য হবে। ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম ও ৮ম স্থানীয় দল একই স্থানে থাকবে অথবা দ্বিতীয় বিভাগে অবনমিত হবে।[৪]

অংশগ্রহণকারী দলসমূহ[সম্পাদনা]

২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপের সমাপণের পর এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ঐ চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতা থেকে ইতোমধ্যেই আয়ারল্যান্ডআফগানিস্তান ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। বাকী ছয়টি দলসহ ২০১১ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ দ্বিতীয় বিভাগের তৃতীয় ও চতুর্থ স্থান অধিকারী এবং ২০১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ তৃতীয় বিভাগের শীর্ষ দুই দলকে নিয়ে বিশ্বকাপ বাছাই-পর্বে অবতীর্ণ হবে।[৫]

দল যোগ্যতা
 সংযুক্ত আরব আমিরাত ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৩য় স্থান
 নেদারল্যান্ডস ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৪র্থ স্থান
 স্কটল্যান্ড ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৫ম স্থান
 কেনিয়া ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৬ষ্ঠ স্থান
 নামিবিয়া ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৭ম স্থান
 কানাডা ২০১১-১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশীপে ৮ম স্থান
 পাপুয়া নিউ গিনি ২০১১ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ দ্বিতীয় বিভাগে ৩য় স্থান
 হংকং ২০১১ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ দ্বিতীয় বিভাগে ৪র্থ স্থান
   নেপাল ২০১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ তৃতীয় বিভাগে ১ম স্থান
 উগান্ডা ২০১৩ আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লীগ তৃতীয় বিভাগে ২য় স্থান

স্থান[সম্পাদনা]

ক্রাইস্টচার্চ লিঙ্কন মাউন্ট মাউঙ্গানুই
হ্যাগলে ওভাল বার্ট সাটক্লিফ ওভাল বে ওভাল
Capacity: N/A Capacity: N/A Capacity: N/A
HagleyParkAerialPhoto.jpg Lincoln from the air 27Dec2005.jpg
New Plymouth রঙ্গিওরা কুইন্সটাউন
Pukekura Park Rangiora Recreation Ground Queenstown Events Centre
Capacity: N/A Capacity: N/A Capacity: N/A
MainPower Oval 001.JPG Queenstown-Events-Centre.jpg

আম্পায়ার[সম্পাদনা]

তিনজন ম্যাচ রেফারিসহ ১৪ সদস্যবিশিষ্ট আম্পায়ার প্রতিযোগিতার খেলাগুলো পরিচালনা করবেন। তন্মধ্যে আইসিসি’র সেরা আম্পায়ার তালিকা থেকে মারাইজ ইরাসমাসও খেলা পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন। বাদ-বাকী সকলেই আইসিসির সহযোগী ও অনুমোদন লাভকারী দেশের খেলা পরিচালনায় নিযুক্ত আম্পায়ার তালিকা থেকে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন।[৬]

খেলোয়াড়[সম্পাদনা]

 কানাডা  হংকং    নেপাল  স্কটল্যান্ড  সংযুক্ত আরব আমিরাত
 কেনিয়া  নামিবিয়া  নেদারল্যান্ডস  পাপুয়া নিউ গিনি  উগান্ডা

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

১০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৮০/৮ (৫০ ওভার)
 উগান্ডা
২০৭/৫ (৫০ ওভার)
শাইমন আনোয়ার ৫৯ (৪১)
ফারুক ওচিমি ২/৩৭ (৯ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ৭৩ রানে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মাউনগানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
হংকং 
২৪২/৯ (৫০ ওভার)
 কেনিয়া
২৪০/৬ (৫০ ওভার)
ইরফান করিম ১৩০* (১৬৪)
ইরফান আহমেদ ৩/৩২ (৬ ওভার)
হংকং ২ রানে বিজয়ী
ক্রাইস্ট’স কলেজ ক্রিকেট ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও মিক মারটেল (অস্ট্রেলিয়া)
  • কেনিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
পাপুয়া নিউ গিনি 
১৭১ (৪৭.২ ওভার)
 স্কটল্যান্ড
১৭৪/৩ (২৭.১ ওভার)
মাহুরু দাই ৪৩ (৫৫)
সাফিয়ান শরীফ ৪/২৪ (৮.২ ওভার)
ম্যাট মাচান ৬৭ (৪৫)
বনি মোরিয়া ১/১৮ (৩ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৭ উইকেটে বিজয়ী
সেন্ট অ্যান্ড্রু’জ কলেজ, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
  • স্কটল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নামিবিয়া 
২৩১/৯ (৫০ ওভার)
   নেপাল
২২৭/৯ (৫০ ওভার)
নিকোলাস সোলৎজ ৭৯ (১১০)
সোমপাল কমি ৪/৩৬ (১০ ওভার)
বিনোদ ভান্ডারি ৬৫ (৬০)
জেজে স্মিত ৩/৩৭ (১০ ওভার)
নামিবিয়া ৪ রানে বিজয়ী
বারউড পার্ক, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
  • নামিবিয়া টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১০ জানুয়ারি
১১:০০
স্কোরকার্ড
কানাডা 
২১২ (৪৯.৩ ওভার)
 নেদারল্যান্ডস
১৭৩ (৪২.৪ ওভার)
নীতিশ কুমার ১০৭ (১২৬)
মুদাসসর বুখারি ৪/৪৪ (১০ ওভার)
কানাডা ৩৯ রানে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মাউনগানুই
আম্পায়ার: রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা) ও পল উইলসন (অস্ট্রেলিয়া)
  • কানাডা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস 
১৮৯ (৪৭.২ ওভার)
 সংযুক্ত আরব আমিরাত
১৯০/৪ (৪০.২ ওভার)
আমজাদ আলী ৭০ (৮৬)
ভিভিয়ান কিংমা ১/১৭ (৭ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ৬ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মাউনগানুই
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৭৫/৮ (৫০ ওভার)
 নামিবিয়া
২১২ (৪৯.২ ওভার)
জেরি স্নাইম্যান ৭৩ (৯৩)
রবার্ট টেলর ৪/৪১ (১০ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৬৩ রানে বিজয়ী
ক্রাইস্ট’স কলেজ ক্রিকেট ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
২৬৫/৮ (৫০ ওভার)
 কেনিয়া
২৬৯/৯ (৪৯.৫ ওভার)
অনীল মন্ডল ৬২ (৬৫)
এলিজাহ ওটিয়েনো ২/৪০ (১০ ওভার)
মরিস ওমা ৭৩ (৭৩)
শক্তি গৌচান ৪/২৮ (১০ ওভার)
  • নেপাল টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
পাপুয়া নিউ গিনি 
২০৫ (৪৫ ওভার)
 হংকং
১৬৩ (৪০ ওভার)
মাহুরু দাই ৩৯ (৩৯)
ইরফান আহমেদ ৬/২৭ (৭ ওভার)
হাসিব আমজাদ ৬৪ (৮৭)
রেমন্ড হাউদা ৫/২৯ (৯ ওভার)
পাপুয়া নিউ গিনি ৪২ রানে বিজয়ী
বারউড পার্ক, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও মিক মারটেল (অস্ট্রেলিয়া)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১১ জানুয়ারি
১১:০০
স্কোরকার্ড
উগান্ডা 
২৪৫/৮ (৫০ ওভার)
 কানাডা
১৭৪ (৪৫.২ ওভার)
হামজা সালেহ ৭৯ (৮৪)
খুররম চৌহান ৩/৩২ (১০ ওভার)
জিমি হংস্র ৪৮ (৮৭)
রজার মুকাসা ২/১৩ (৪ ওভার)
উগান্ডা ৭১ রানে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মাউনগানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • উগান্ডা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

দল খে ফহ এনআরআর পয়েন্ট
 স্কটল্যান্ড +১.৬৬৩
 হংকং +১.০৬৯
 সংযুক্ত আরব আমিরাত +০.৮৪৮
 কানাডা −২.০৬৬
   নেপাল −১.৫৬৭

     সুপার সিক্স পর্বে উত্তীর্ণ দলসমূহ

খেলার সময়সূচী / ফলাফল[সম্পাদনা]

১৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৯৭/৮ (৫০ ওভার)
   নেপাল
১৯৫ (৪৮.১ ওভার)
শাইমন আনোয়ার ১০৯ (৯৬)
বসন্ত রেগমি ৩/৪৩ (১০ ওভার)
শরদ বিশ্বকর ৫৪ (৮৭)
কামরান শাহজাদ ৩/৪৬ (১০ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ১০২ রানে বিজয়ী
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও মাইক মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: শাইমন আনোয়ার (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • নেপাল টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
হংকং 
২৬৩/৭ (৫০ ওভার)
 স্কটল্যান্ড
২৪৬ (৪৮.৪ ওভার)
ইরফান আহমেদ ৭৫ (১২৩)
ইয়ান ওয়ার্ডল ৩/৫৭ (১০ ওভার)
প্রিস্টন মমসেন ১১৮ (১০৯)
নাদিম আহমেদ ৪/৩৭ (৯.৪ ওভার)
হংকং ১৭ রানে বিজয়ী
কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার, কুইন্সটাউন
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: প্রিস্টন মমসেন (স্কটল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৫ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৮৬/৬ (৫০ ওভার)
 কানাডা
২০৬/৬ (৫০ ওভার)
আমজাদ আলী ৯১ (১১৮)
খুররম চোহান ৩/৬৫ (১০ ওভার)
জিমি হংস্র ১০০* (১১৯)
খুররম খান ২/৩৫ (৯ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ৮০ রানে বিজয়ী।
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: খুররম খান (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৪৯/৭ (৫০ ওভার)
   নেপাল
১৫৯ (৪৬.১ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৯০ রানে বিজয়ী
কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার, কুইন্সটাউন
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও বিনীত কুলকার্নি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: ফ্রেডি কোলম্যান (স্কটল্যান্ড)
  • নেপাল টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৭ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কানাডা 
১৭১ (৪৮ ওভার)
 হংকং
১৭৩/১ (২৫.২ ওভার)
ইরফান আহমেদ ১০০* (৮৫)
জেরেমি গর্ডন ১/২৬ (৭ ওভার)
হংকং ৯ উইকেটে বিজয়ী
কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার, কুইন্সটাউন
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: ইরফান আহমেদ (হংকং)
  • কানাডা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৯ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
১৫০ (৪৯.৩ ওভার)
 হংকং
১৫৪/০ (৩৩.২ ওভার)
বসন্ত রেগমি ৪৫ (৭৯)
হাসিব আমজাদ ৪/৪০ (৯.৩ ওভার)
হংকং ১০ উইকেটে বিজয়ী
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: মাইক মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া) ও পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: ইরফান আহমেদ (হংকং)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৯ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৬৫/৬ (২৮ ওভার)
 সংযুক্ত আরব আমিরাত
২১২ (২৬.৫ ওভার)
খুররম খান ৮৭ (৫৪ ওভার)
আয়ান ওয়ার্ডল ৩/৩৫ (৬ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৫৩ রানে বিজয়ী
কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার, কুইন্সটাউন
আম্পায়ার: বিনীত কুলকার্নি (ভারত) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: কালাম ম্যাকলিওড (স্কটল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে খেলা ২৮ ওভারে নিয়ে আসা হয়।
২১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কানাডা 
২৫৫/৯ (৪১ ওভার)
   নেপাল
২৪৩/৮ (৪১ ওভার)
রাজা-উর-রেহমান ৮৯ (৮৭)
সোমপাল কামি ৩/৬৪ (৮ ওভার)
কানাডা ১২ রানে বিজয়ী
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও মাইক মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: রাজা-উর-রেহমান (কানাডা)
  • কানাডা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
৩৪১/৯ (৫০ ওভার)
 কানাডা
১৭১ (৩৯.২ ওভার)
কালাম ম্যাকলিওড ১৭৫ (১৪১)
খুররম চোহান ৫/৬৮ (১০ ওভার)
হামজা তারিক ৭১ (৭০)
সাফিয়ান শরীফ ২/২৩ (৮.২ ওভার)
স্কটল্যান্ড ১৭০ রানে বিজয়ী
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: কালাম ম্যাকলিওড (স্কটল্যান্ড)
  • কানাডা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৪৯ (৪৮.১ ওভার)
 হংকং
২২৭ (৪৯.৪ ওভার)
খুররম খান ৭৮ (৬৮)
হাসিব আমজাদ ৩/৩৩ (৯.১ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ২২ রানে বিজয়ী
কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার, কুইন্সটাউন
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: খুররম খান (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

দল খে ফহ এনআরআর পয়েন্ট
 পাপুয়া নিউ গিনি +১.০৯৫
 নামিবিয়া +০.৫৭৪
 কেনিয়া +০.৪০১
 নেদারল্যান্ডস +০.৩৭০
 উগান্ডা −২.২৫৯

     সুপার সিক্স পর্বে যোগ্যতালাভকারী দলসমূহ

খেলার সময়সূচী / ফলাফল[সম্পাদনা]

১৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
উগান্ডা 
১৫২ (৪৬.১ ওভার)
 নেদারল্যান্ডস
১৫৫/৩ (৩০.১ ওভার)
রজার মুকাসা ৪৪ (৫৬)
মাইকেল রিপন ৪/১৫ (১০ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৭ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: মাইকেল রিপন (নেদারল্যান্ডস)
  • উগান্ডা ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কেনিয়া 
২৪৯/৯ (৫০ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
২৫০/২ (৪২.৫ ওভার)
কলিন্স ওবুয়া ১০৬ (১২০)
রেমন্ড হাউদা ৪/৫০ (৯ ওভঅর)
আসাদ ভালা ১০৫* (১০৯)
নেহেমিয়া ওধিয়াম্বো ১/৪৩ (১০ ওভার)
পাপুয়া নিউগিনি ৮ উইকেটে বিজয়ী
পুকেকুরা পার্ক, নিউ প্লাইমাউথ
আম্পায়ার: শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: আসাদ ভালা (পাপুয়া নিউগিনি)
  • পাপুয়া নিউগিনি টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৫ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নামিবিয়া 
২৫৩/৬ (৫০ ওভার)
 নেদারল্যান্ডস
১৬২ (৩৬.৫ ওভার)
নামিবিয়া ৯১ রানে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও পল উইলসন (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: জেরি স্নাইম্যান (নামিবিয়া)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
উগান্ডা 
১০৫ (৩৫.৫ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
১০৭/১ (১৭ ওভার)
রজার মুকাসা ৩৩ (৩৯)
চার্লস আমিনি ৬/২৯ (১০ ওভার)
পাপুয়া নিউগিনি ৯ উইকেটে বিজয়ী
পুকেকুরা পার্ক, নিউ প্লাইমাউথ
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: চার্লস আমিনি (পাপুয়া নিউগিনি)
  • পাপুয়া নিউগিনি টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৭ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কেনিয়া 
১৮৬/৮ (৫০ ওভার)
 নামিবিয়া
১৮৭/৮ (৪৮.৫ ওভার)
স্টিভ টিকোলো ৪৭ (৮২)
জেজে স্মিট ৩/২৩ (১০ ওভার)
নামিবিয়া ২ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: জেজে স্মিট (নামিবিয়া)
  • কেনিয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৯ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কেনিয়া 
২৫৩/৫ (৫০ ওভার)
 উগান্ডা
২০৬/৮ (৫০ ওভার)
কেনিয়া ৪৭ রানে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: স্টিভ টিকোলো (কেনিয়া)
  • কেনিয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
১৯ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস 
৩২৩/৪ (৫০ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
১৯৩ (৩৭.২ ওভার)
জেক ভারে ৯৬ (৫৯)
মুদাসসর বুখারি ৩/১৫ (৯ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ১৩০ রানে বিজয়ী
পুকেকুরা পার্ক, নিউ প্লাইমাউথ
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: এরিক সার্কজিনস্কি (Neth)
  • নেদারল্যান্ডস ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২১ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নামিবিয়া 
১৬১/৯ (৩৬ ওভার)
 উগান্ডা
৬১ (১৭.৫ ওভার)
নামিবিয়া ১০০ রানে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: লুইজ ফন ডার ওয়েস্টহুইজেন (নামিবিয়া)
  • উগান্ডা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নামিবিয়া 
১৬৩ (৪৮.৪ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
১৬৪/২ (২৫ ওভার)
জেরি স্নাইম্যান ৫৪ (৯৪)
মাহুরু দাই ৩/৩৪ (১০ ওভার)
পাপুয়া নিউগিনি ৮ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: লেগা সিয়াকা (পাপুয়া নিউগিনি)
  • নামিবিয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৩ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস 
২৬৫/৬ (৫০ ওভার)
 কেনিয়া
২৬৬/৬ (৩৫.৪ ওভার)
Iইরফান করিম ১০৮ (৮৪)
আহসান মালিক ৩/৫৪ (৮.৪ ওভার)
কেনিয়া ৪ উইকেটে বিজয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: বিনীত কুলকার্নি (ভারত) ও মিকি মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ইরফান করিম (কেনিয়া)
  • কেনিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

স্থান নির্ধারণী খেলা[সম্পাদনা]

১ম স্থান নির্ধারণী
২৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
১৭১/৯ (৫০ ওভার)
 নেদারল্যান্ডস
১৭২/৩ (৩১.৫ ওভার)
শরদ বিশ্বকর ৪২ (৯০)
আহসান মালিক ৩/২১ (৪ ওভার)
এরিক সারজিস্কি ৫৬ (৭৩)
বসন্ত রেগমি ২/৫০ (১০ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৭ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: এরিক সারজিস্কি (নেদারল্যান্ডস)
  • নেদারল্যান্ডস ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২য় স্থান নির্ধারণী
২৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
উগান্ডা 
১৪৯ (৪৯.৫ ওভার)
 কানাডা
১১৯/১ (২৯ ওভার)
হামজা সালেহ ৩৩ (৬৩)
পার্থ দেশাই ৪/২৯ (১০ ওভার)
কানাডা ৫৯ রানে বিজয়ী (ডি/এল)
বে ওভাল ২, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: পার্থ দেশাই (কানাডা)
  • কানাডা ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কানাডার ইনিংস চলাকালে ২৯ ওভারের সময় বৃষ্টি আঘাত হানে। জয়ের জন্য দরকার ছিল ৬০ রান।
৯ম স্থান নির্ধারণী
২৮ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল   
২৪০ (৪৯.৪ ওভার)
 উগান্ডা
৮০ (৩৬.৩ ওভার)
রিচার্ড ওকিয়া ১৯ (৩৬)
সাগর পান ৩/১৮ (৮.৩ ওভার)
নেপাল ১৬০ রানে বিজয়ী
বে ওভাল ২, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: আহসান রাজা (পাকিস্তান) ও শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: পৃথু বাস্কোতা (নেপাল)
  • নেপাল ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
৭ম স্থান নির্ধারণী
২৮ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কানাডা 
২১০ (৫০ ওভার)
 নেদারল্যান্ডস
২১২/২ (৩৬.৪ ওভার)
রাজা-উর-রেহমান ৮৮ (১০৫)
মাইকেল রিপন ৪/৩৭ (১০ ওভঅর)
এরিক সার্জিনস্কি ৭৫* (১১৬)
পার্থ দেশাই ১/৩৪ (১০ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৮ উইকেটে বিজয়ী
বে ওভাল, মাউন্ট মোঙ্গানুই
আম্পায়ার: রুচিরা পল্লিয়াগুরু (শ্রীলঙ্কা) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: মাইকেল রিপন (নেদারল্যান্ডস)
  • কানাডা ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

সুপার সিক্স[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

দল খে ফহ এনআরআর পয়েন্ট
 সংযুক্ত আরব আমিরাত +০.৭৩৭
 স্কটল্যান্ড +০.৪৯৫
 হংকং +০.৫৬৮
 পাপুয়া নিউ গিনি −০.৪৯৫
 কেনিয়া −০.২০১
 নামিবিয়া −১.০৩৫

     চিহ্নিত দলগুলো ফাইনাল খেলাসহ ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা লাভ করে।

খেলার সূচীপত্র / ফলাফল[সম্পাদনা]

২৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
হংকং 
২৫৪/৮ (৫০ ওভার)
 কেনিয়া
২২৩/৪ (৪৫.২ ওভার)
ইরফান করিম ৮২ (৯৮)
ইরফান আহমেদ ২/৫০ (৮ ওভার)
কেনিয়া ১০ রানে বিজয়ী (ডি/এল)
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) বিনীত কুলকার্নি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: লামেক অনিয়াঙ্গো (কেনিযা)
  • কেনিয়া ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কেনিয়ার ইনিংস চলাকালীন ৪৫.২ ওভারের সময় বৃষ্টি নামে। তখন তাদের স্কোর ছিল ২১৩।
২৬ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৮০ (৪৮.৩ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
১৩০ (২৮.৩ ওভার)
খুররম খান ১৩৮ (১৪৫)
উইলি গাভেরা ৩/৩৯ (৯.৩ ওভার)
চার্লস আমিনি ৪৯ (৪৪)
আমজাদ জাভেদ ৪/২৬ (৯.৩ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৫০ রানে বিজয়ী।
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: ক্রিস গাফানি (নিউজিল্যান্ড) ও মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: খুররম খান (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • পাপুয়া নিউগিনি ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৬-২৭ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৭৯/৯ (৫০ ওভার)
 নামিবিয়া
২৫৮/৯ (৫০ ওভার)
ম্যাট মাচান ৭৮ (৬১)
বার্নার্ড শোলজ ৩/৫৫ (১০ ওভার)
স্কটল্যান্ড ২১ রানে বিজয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: ম্যাট মাচান (স্কটল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • নামিবিয়ার ইনিংস চলাকালে ১২.১ ওভারের সময় বৃষ্টি নামে ও সংরক্ষিত দিনে খেলা শেষ হয়।
২৮ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
হংকং 
২৮৩/৯ (৫০ ওভার)
 নামিবিয়া
২০৭ (৪৩.৩ ওভার)
নিজাকত খান ৮৫ (১১৪)
লুইজ ক্লাজিঙ্গা ৪/৬৫ (১০ ওভার)
হংকং ৭৯ রানে বিজয়ী
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: নিজাকত খান (হংকং)
  • হংকং ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৮ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৪৬/৮ (৫০ ওভার)
 কেনিয়া
২৩৩ (৪৯.৩ ওভার)
মরিস অউমা ৪২ (৫১)
মোহাম্মদ নাভিদ ৩/৪০ (১০ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৩ রানে বিজয়ী।
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও এনামুল হক (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: আমজাদ জাভেদ (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • কেনিয়া ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
২৮ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৮৮/৯ (৫০ ওভার)
 পাপুয়া নিউ গিনি
২৩৬ (৪৫.১ ওভার)
প্রেস্টন মমসেন ৯৪ (১০৫)
রেমন্ড হাউদা ২/৪৮ (৭ ওভার)
বানি মোরিয়া ৫৭ (৭৬)
রব টেলর ৩/৪৫ (৯.১ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৫২ রানে বিজয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও মিক মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: প্রেস্টন মমসেন (স্কটল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
৩০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত 
২৬৩ (৪৯.৫ ওভার)
 নামিবিয়া
২২৭/৯ (৫০ ওভার)
খুররম খান ৪৯ (৮২)
লুইজ ক্লাজিঙ্গা ৫/৩৬ (৮.৫ ওভার)
সারেল বার্গার ৫৪ (১০২)
আমজাদ জাভেদ ৩/৩৫ (১০ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩৬ রানে বিজয়ী।
রঙ্গিওরা ওভাল, রঙ্গিওরা
আম্পায়ার: যোহান ক্লোয়েত (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও এনামুল হক (বাংলাদেশ)
সেরা খেলোয়াড়: খুররম খান (সংযুক্ত আরব আমিরাত)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
৩০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
কেনিয়া 
২৬০ (৫০ ওভার)
 স্কটল্যান্ড
২৬১/৭ (৪৯.৩ ওভার)
প্রেস্টন মমসেন ৭৮ (৯৭)
টমাস ওদোয়ো ৩/৫৩ (৯.৩ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৩ উইকেটে বিজয়ী
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: পিটার নিরো (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও বিনীত কুলকার্নি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: প্রেস্টন মমসেন (স্কটল্যান্ড)
  • কেনিয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
৩০ জানুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
পাপুয়া নিউ গিনি 
২৫৫/৮ (৫০ ওভার)
 হংকং
২৫৯/৭ (৩৬.১ ওভার)
ইরফান আহমেদ ৯০ (৮২)
উইলি গাভেরা ৩/৫৩ (৮ ওভার)
হংকং ৩ উইকেটে বিজয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: ক্রিস গাফানি (নিউজিল্যান্ড) ও মিক মার্টেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ইরফান আহমেদ (হংকং)
  • পাপুয়া নিউগিনি ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

ফাইনাল[সম্পাদনা]

ফাইনাল
১ ফেব্রুয়ারি
১০:৩০
স্কোরকার্ড
স্কটল্যান্ড 
২৮৫/৫ (৫০ ওভার)
 সংযুক্ত আরব আমিরাত
২৪৪/৯ (৫০ ওভার)
প্রিস্টন মমসেন ১৩৯* (১৪৯)
মঞ্জুলা গুরুগে ৩/৬৭ (১০ ওভার)
স্কটল্যান্ড ৪১ রানে বিজয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
সেরা খেলোয়াড়: প্রিস্টন মমসেন (স্কটল্যান্ড)
  • স্কটল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

চূড়ান্ত অবস্থান[সম্পাদনা]

অবস্থান দল
১ম  স্কটল্যান্ড
২য়  সংযুক্ত আরব আমিরাত
৩য়  হংকং
৪র্থ  পাপুয়া নিউ গিনি
৫ম  কেনিয়া
৬ষ্ঠ  নামিবিয়া
৭ম  নেদারল্যান্ডস
৮ম  কানাডা
৯ম    নেপাল
১০ম  উগান্ডা
  •      চিহ্নিত দলসমূহ ২০১৫ ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলাসহ ২০১৮ সাল পর্যন্ত একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।[৪]
  •      চিহ্নিত দলসমূহ ২০১৮ সাল পর্যন্ত একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।[৪]
  •      চিহ্নিত দলসমূহ ২০১৮ সাল পর্যন্ত একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলার মর্যাদা হারায়।[৭]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

সর্বাধিক রান[সম্পাদনা]

খেলোয়াড় দল খেলা ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
খুররম খান  সংযুক্ত আরব আমিরাত ৫৮১ ৭২.6২ ১৩৮ 4
প্রিস্টন মমসেন  স্কটল্যান্ড ৫২০ ৮৬.৬৬ ১৩9*
কালাম ম্যাকলিওড  স্কটল্যান্ড ৪০১ ৫৭.১২ ১৭৫
স্বপ্নীল পাতিল  সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩৬৪ ৫২.০০ ৯৯*
ইরফান আহমেদ  হংকং ৩৬৩ ৭২.৬০ ১০০*
ওয়েজলি বারেসি  নেদারল্যান্ডস ৩১৮ ৭৯.৫০ ১৩৭*
এরিক সারজিনস্কি  নেদারল্যান্ডস ৩১৭ ১৫৮.৫০ ১২৯*

সর্বাধিক উইকেট[সম্পাদনা]

খেলোয়াড় দল খেলা ওভার উইকেট গড় সেরা বোলিং ৪-উইঃ ইকোনোমি
হাসিব আমজাদ  হংকং ৬৩ ২০ ১৫.৪০ ৪/৩৩ ৪.৮৮
লুইজ ক্লাজিঙ্গা  নামিবিয়া ৫০.৪ ১৮ ১৪.৮৮ ৫/৩৬ ৫.২৮
মঞ্জুলা গুরুগে  সংযুক্ত আরব আমিরাত ৬৫ ১৬ ১৮.৩১ ৪/৩৯ ৪.৫০
ইয়ান ওয়ার্ডল  স্কটল্যান্ড ৭০.১ ১৬ ২৩.৩৭ ৩/৩২ ৫.৩৩
ক্রিস্টি ভিলজোয়েন  নামিবিয়া ৫৩.৫ ১৪ ১৯.০০ ৪/৩৩ ৪.৯৪
খুররম চৌহান  কানাডা ৪৭.৫ ১৪ ২০.৬৪ ৫/৬৮ ৬.০৪
সাফিয়ান শরীফ  স্কটল্যান্ড ৭২.২ ১৪ ২৩.৯২ ৪/৫৫ ৪.৬৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ICC annual conference: Associates included in 2015 World Cup | Cricket News | Cricinfo ICC Site"। ESPN Cricinfo। 1 January 1970। সংগৃহীত 29 June 2011।
  2. http://www.espncricinfo.com/ci-icc/content/current/story/521049.html
  3. "Overview"ICC official site। সংগ্রহের তারিখ 04 Dec 2013  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  4. "Scotland and UAE battle lock horns in final of ICC CWCQ 2014"International Cricket Council। ৩১ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১৪ 
  5. "ICC spells out 2015 WC qualification plan"ESPNcricinfo। ১১ অক্টোবর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১১ 
  6. "Match officials" 
  7. http://www.espncricinfo.com/ci/content/story/714845.html

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]