২০১৩-১৪ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ভারত সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৩-১৪ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ভারত সফর
Flag of Australia.svg
অস্ট্রেলিয়া
Flag of India.svg
ভারত
তারিখ ১০ অক্টোবর, ২০১৩ – ২ নভেম্বর, ২০১৩
অধিনায়ক জর্জ বেইলি মহেন্দ্র সিং ধোনি
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৭-ম্যাচের সিরিজ ভারত ৩–২ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জর্জ বেইলি (৪৭৮) রোহিত শর্মা (৪৯১)
সর্বাধিক উইকেট মিচেল জনসন (৭)
জেমস ফকনার (৭)
রবিচন্দ্রন অশ্বিন (৯)
সিরিজ সেরা রোহিত শর্মা (ভারত)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ১-ম্যাচের সিরিজ ভারত ১–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান অ্যারন ফিঞ্চ (৮৯) যুবরাজ সিং (৭৭)
সর্বাধিক উইকেট ক্লিন্ট ম্যাককে (২) বিনয় কুমার (৩)
ভুবনেশ্বর কুমার (৩)
সিরিজ সেরা ভারত যুবরাজ সিং
২০১২-১৩ (পূর্ববর্তী) (পরবর্তী) নির্ধারিত হয়নি →

অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ক্রিকেট দল ১০ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখ পর্যন্ত ভারত সফর করে। সফরে দলটি ১টি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলাসহ ৭টি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সিরিজে ভারতীয় দলের মোকাবেলা করে।[১] পিঠের আঘাতপ্রাপ্তির জন্য অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার মাইকেল ক্লার্কের পরিবর্তে কলাম ফার্গুসন অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া, দলের নেতৃত্বভার জর্জ বেইলি গ্রহণ করেন।[২]

দ্বিতীয় একদিনের আন্তর্জাতিক খেলায় অস্ট্রেলিয়ার প্রথম পাঁচজন ব্যাটসম্যানই পঞ্চাশ বা তদূর্ধ্ব রান সংগ্রহ করেছেন যা একদিনের ক্রিকেট ইতিহাসে অন্য কোন দলই এ সক্ষমতা প্রদর্শন করতে পারেননি।[৩]

দলের সদস্য[সম্পাদনা]

টি২০আই ওডিআই
 অস্ট্রেলিয়া  ভারত  অস্ট্রেলিয়া  ভারত

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

একমাত্র টি২০আই[সম্পাদনা]

১০ অক্টোবর
১৯:০০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
অস্ট্রেলিয়া 
২০১/৭ (২০ ওভার)
 ভারত
২০২/৪ (১৯.৪ ওভার)
অ্যারন ফিঞ্চ ৮৯ (৫২)
বিনয় কুমার ৩/২৬ (৪ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • নিক ম্যাডিনসনের টি২০আইয়ে অভিষেক ঘটে।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১৩ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
অস্ট্রেলিয়া 
৩০৪/৮ (৫০ ওভার)
 ভারত
২৩২ (৪৯.৪ ওভার)
জর্জ বেইলি ৮৫ (৮২)
যুবরাজ সিং ২/৩৪ (৬ ওভার)
বিরাট কোহলি ৬১ (৮৫)
জেমস ফকনার ৩/৪৭ (৮ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১৬ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
অস্ট্রেলিয়া 
৩৫৯/৫ (৫০ ওভার)
 ভারত
৩৬২/১ (৪৩.৩ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ওডিআইয়ের ইতিহাসে প্রথম দল হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম পাঁচজন ব্যাটসম্যানই অর্ধ-শতক রান করেছেন।
  • বিরাট কোহলি ভারতের পক্ষে দ্রুততম সেঞ্চুরি করেন ৫২ বলে।
  • একদিনের ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন।

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১৯ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
ভারত 
৩০৩/৯ (৫০ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
৩০৪/৬ (৪৯.৩ ওভার)
মহেন্দ্র সিং ধোনি ১৩৯* (১২১)
মিচেল জনসন ৪/৪৬ (১০ ওভার)
অ্যাডাম ভোজেস ৭৬* (৮৮)
বিনয় কুমার ২/৫০ (৮.৩ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

২৩ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
অস্ট্রেলিয়া 
২৯৫/৮ (৫০ ওভার)
 ভারত
২৭/০ (৪.১ ওভার)
জর্জ বেইলি ৯৮ (৯৪)
মোহাম্মদ শমী ৩/৪২ (৮ ওভার)
শিখর ধাওয়ান ১৪* (১২)
মিচেল জনসন ০/১০ (২.১ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়
  • বৃষ্টিজনিত কারণে ভারতের ইনিংস ৪.১ ওভারে থেমে যায়।

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২৬ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
বল মাঠে গড়ানো ছাড়াই খেলা পরিত্যক্ত
বড়বাটি স্টেডিয়াম, কটক
আম্পায়ার: নাইজেল লং (ইংল্যান্ড) ও এস. রবি (ভারত)
  • বহিঃমাঠ ভেজা থাকায় কোন খেলা হয়নি

৬ষ্ঠ ওডিআই[সম্পাদনা]

৩০ অক্টোবর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
অস্ট্রেলিয়া 
৩৫০/৬ (৫০ ওভার)
 ভারত
৩৫১/৪ (৪৯.৩ ওভার)
জর্জ বেইলি ১৫৬ (১১৪)
রবিচন্দ্রন অশ্বিন ২/৬৪ (১০ ওভার)
বিরাট কোহলি ১১৫* (৬৬)
মিচেল জনসন ২/৭২ (১০ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়
  • ক্রিকেটের ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান অতিক্রমণের মাধ্যমে জয়।

৭ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২ নভেম্বর
১৩:৩০ (দিন/রাত)
প্রতিবেদন
ভারত 
৩৮৩/৬ (৫০ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
৩২৬ (৪৫.১ ওভার)
রোহিত শর্মা ২০৯ (১৫৮)
জেভিয়ার ডোহার্টি ২/৭৪ (১০ ওভার)
জেমস ফকনার ১১৬ (৭৩)
মোহাম্মদ শামি ৩/৫২ (৮.১ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়
  • সর্বোচ্চ রান করেও অস্ট্রেলিয়া ব্যর্থ হয়।
  • জেমস ফকনার দ্রুততম অস্ট্রেলীয় হিসেবে সেঞ্চুরি করেন - ৫৭ বলে।
  • রোহিত শর্মা’র ২০৯ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ওডিআই রান।
  • রোহিত শর্মা ১৬ ছক্কা হাঁকান ও বিশ্বরেকর্ড গড়েন (পূর্বতন: শেন ওয়াটসন - ১৫ ছক্কা)।
  • গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ১৮ বলে ৫০ রান ওডিআই ক্রিকেটে দ্বিতীয় দ্রুততম সমতাসূচক অর্ধ-শতক।
  • ভারত ৭ খেলার সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে বিজয়ী হয় (২ খেলা বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত)।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

ওডিআই
ব্যাটিং[৪]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
রোহিত শর্মা  ভারত ৪৯১ ১২২.৭৫ ২০৯
জর্জ বেইলি  অস্ট্রেলিয়া ৪৭৮ ৯৫.৬০ ১৫৬
বিরাট কোহলি  ভারত ৩৪৪ ১১৪.৬৬ ১১৫*
শিখর ধাওয়ান  ভারত ২৮৪ ৫৬.৮০ ১০০
গ্লেন ম্যাক্সওয়েল  অস্ট্রেলিয়া ২৪৮ ৪১.৩৩ ৯২
বোলিং[৫]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
রবিচন্দ্রন অশ্বিন  ভারত ৫৬ ৩৭.২২ ২/৫১
রবীন্দ্র জাদেজা  ভারত ৬০ ৪১.৮৭ ৩/৭৩
বিনয় কুমার  ভারত ৪৩.৩ ৪৩.১২ ২/৫০
মোহাম্মদ শমী  ভারত ২৪.১ ২২.৮৫ ৩/৪২
মিচেল জনসন  অস্ট্রেলিয়া ৪১.১ ৩৩.৪২ ৪/৪৬
টি২০আই
ব্যাটিং[৬]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
অ্যারন ফিঞ্চ  অস্ট্রেলিয়া ৮৯ ৮৯.০০ ৮৯
যুবরাজ সিং  ভারত ৭৭ ৭৭*
নিক ম্যাডিনসন  অস্ট্রেলিয়া ৩৪ ৩৪.০০ ৩৪
শিখর ধাওয়ান  ভারত ৩২ ৩২.০০ ৩২
বিরাট কোহলি  ভারত ২৯ ২৯.০০ ২৯
বোলিং[৭]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
বিনয় কুমার  ভারত ৮.৬৬ ৩/২৬
ভুবনেশ্বর কুমার  ভারত ১১.৬৬ ৩/৩৫
ক্লিন্ট ম্যাককে  অস্ট্রেলিয়া ২৫.০০ ২/৫০
রবীন্দ্র জাদেজা  ভারত ২৩.০০ ১/২৩
জেভিয়ার ডোহার্টি  অস্ট্রেলিয়া ২৪.০০ ১/২৪

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia to tour India for seven ODIs, one T20"ESPNcricinfo। ESPN EMEA। জুলাই ৩, ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৬, ২০১৩ 
  2. "Australia captain Michael Clarke out of India tour with back injury"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১০-০২ 
  3. "Top five catapult Australia to 359". ESPN Cricinfo. Retrieved 2013-10-16.
  4. "Records / Australia in India ODI Series, 2013/14 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-২২ 
  5. "Records / Australia in India ODI Series, 2013/14 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-২২ 
  6. "Records / India v Australia T20I Match, 2013/14 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-২২ 
  7. "Records / India v Australia T20I Match, 2013/14 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০১-২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]