কলিন্স ওবুয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কলিন্স ওবুয়া
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকলিন্স ওমন্ডি ওবুয়া
জন্ম (1981-07-27) ২৭ জুলাই ১৯৮১ (বয়স ৩৮)
নাইরোবি, কেনিয়া
ডাকনামকলো
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ স্পিন
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
সম্পর্কডেভিড ওবুয়া (ভাই)
কেনেডি ওটিয়েনো (ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২৩)
১৫ আগস্ট ২০০১ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই১৩ মার্চ ২০১৩ বনাম কানাডা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৩ওয়ারউইকশায়ার
২০০৬/০৭কেনিয়া সিলেক্ট
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি এলএ টি২০আই
ম্যাচ সংখ্যা ৯৮ ৫০ ১৪৭ ১৬
রানের সংখ্যা ১,৯৫১ ২,২৬২ ২,৭৪৮ ২২৫
ব্যাটিং গড় ২৬.৩৬ ৩০.১৬ ২৫.৬৮ ১৮.৭৫
১০০/৫০ ০/১১ ২/১৩ ১/১৫ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৯৮* ১০৩ ১০৬ ৫০
বল করেছে ১,৮৩৮ ৪,১২৬ ২,৮২৭ ১২২
উইকেট ৩৫ ৬৬ ৫৮
বোলিং গড় ৪৬.৭৭ ৩৮.৯০ ৪৩.৫০ ২৪.৪০
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a n/a
সেরা বোলিং ৫/২৪ ৫/৯৭ ৫/২৪ ৩/১৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪২/– ৩৬/– ৫৭/– ৭/–
উৎস: ESPNCricinfo, ১৮ মার্চ ২০১৩

কলিন্স ওমন্ডি ওবুয়া (ইংরেজি: Collins Omondi Obuya; জন্ম: ২৭ জুলাই, ১৯৮১) নাইরোবিতে জন্মগ্রহণকারী কেনীয় ক্রিকেটার। ডানহাতি ব্যাটসম্যানলেগ স্পিন বোলার হিসেবে কেনিয়া জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলে আসছেন। বর্তমানে তিনি দলের অধিনায়কত্ব পালন করছেন। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে দলের সেরা সাফল্য হিসেবে সেমি-ফাইনালে উত্তরণে অন্যান্য খেলোয়াড়দের সাথে তিনিও সমান দক্ষতা প্রদর্শন করেছেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

নাইরোবিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়ের নেপথ্যে ওবুয়ার অবদান ছিল অবিসংবাদিত। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ঐ খেলায় তিনি ২৪ রানের বিনিময়ে নিজস্ব সেরা ৫ উইকেট দখল করেন ও ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন। বিশ্বকাপে তিনি ২৮.৭৬ রান গড়ে ১৩ উইকেট লাভ করেন।[১] এরফলে তিনি ২০০৩ মৌসুমে কাউন্টি ক্রিকেটে খেলার জন্য ওয়ারউইকশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের সাথে এক বছর মেয়াদের চুক্তিতে আবদ্ধ হন।

অ্যাপেনডিসাইটিসে আক্রান্ত হওয়ায় ২০০৪ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে পারেননি। অপর্যাপ্ত খেলায় অংশগ্রহণের ফলে প্রথমে বোলিং নিয়ে তাকে সমস্যায় পড়তে হয়। পরে ব্যাটিংয়ের দিকে নজর দেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তার সর্বোচ্চ রান হচ্ছে ১০৩। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০১১ সালের আইসিসি বিশ্বকাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অপরাজিত ৯৮ রান করে ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]