কাইল কোয়েতজার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
কাইল কোয়েতজার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম কাইল জেমস কোয়েতজার
জন্ম (১৯৮৪-০৪-১৪) ১৪ এপ্রিল ১৯৮৪ (বয়স ৩৩)
অ্যাবরদিন, অ্যাবরদিনশায়ার, স্কটল্যান্ড
ডাকনাম কস্তা
উচ্চতা ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি (১.৮০ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৩৩)
১৮ আগস্ট ২০০৮ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই ৫ মার্চ ২০১৫ বনাম বাংলাদেশ
ওডিআই শার্ট নং ১৫
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ১৩)
২ আগস্ট ২০০৮ বনাম আয়ারল্যান্ড
শেষ টি২০আই ২৮ নভেম্বর ২০১৩ বনাম নেদার‌ল্যান্ড
টি২০আই শার্ট নং ৫০
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
২০০৪-২০১১ ডারহাম
২০০৮– স্কটল্যান্ড
২০১১- নর্দাম্পটনশায়ার (দল নং ৩০)
২০১২ চিটাগং কিংস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৪ ২০ ৮৪ ১১৯
রানের সংখ্যা ৯৭১ ৪৪২ ৪,১৮৩ ৩,৩৮৪
ব্যাটিং গড় ৪৪.১৩ ২৩.২৬ ৩১.৯৩ ৩২.৮৫
১০০/৫০ ২/৬ ০/১ ৮/১৮ ৫/২১
সর্বোচ্চ রান ১৫৬ ৬২ ২১৯ ১৩৩
বল করেছে ১৫০ ৬৬ ৬৬০ ৩৯০
উইকেট
বোলিং গড় ১৬৪.০০ ১৪.২০ ৬৭.০০ ১০৩.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - - -
সেরা বোলিং ১/৩৫ ৩/২৫ ২/১৬ ১/২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৯/– ১০/– ৪১/– ৪৫/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো, ৫ মার্চ ২০১৫

কাইল জেমস কোয়েতজার (ইংরেজি: Kyle Coetzer; জন্ম: ১৪ এপ্রিল, ১৯৮৪) অ্যাবরদিনের অ্যাবরদিনশায়ারে জন্মগ্রহণকারী স্কটল্যান্ডীয় ক্রিকেটার। তিনি ক্রিকেটের সকল স্তরে স্কটল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দলে প্রতিনিধিত্ব করছেন। একসময় তিনি স্কটল্যান্ড ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব করছেন।[১] মূলতঃ ডানহাতে ব্যাটিং করলেও প্রয়োজনে ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট বোলিং করে থাকেন। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত ২০০৪ সালের আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপসহ স্কটল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৫, অনূর্ধ্ব-১৭ এবং অনূর্ধ্ব-১৯ দলেরও অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০৪ মৌসুমে ডারহামের পক্ষে ছয়টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশগ্রহণ করেন। তন্মধ্যে অভিষেক প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় ৬৭ রান সংগ্রহ করেছিলেন। এর পরের বছর আইসিসি আন্তঃমহাদেশীয় কাপ সেমি-ফাইনালে কেনিয়ার বিপক্ষে ১৩৩* রান করেছিলেন। কিন্তু ২০০৫ ও ২০০৬ সালে তার খেলা পড়তির দিকে চলে যায়। ২০০৭ সালের শুরুতে খেলার মান বৃদ্ধি পাওয়ায় ডারহাম দলে ঠাঁই হয় তার। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০০৯ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিনি ক্যাচ ধরেন যা সাবেক ক্রিকেটার ডেভিড লয়েডের মতে প্রতিযোগিতার সেরা ক্যাচরূপে আখ্যায়িত করেন। ঐ প্রতিযোগিতায় তিনি দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হন। ২০১১ সালে ডারহাম দলে স্থায়ীভাবে যোগদানের পূর্বে নর্দাম্পটনশায়ার দলে ধারে যুক্ত হন।[২] আগস্ট, ২০১২ সালে দলের সাথে নতুন করে দুই বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন।[৩]

ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

৯ জানুয়ারি, ২০১৫ তারিখে ক্রিকেট স্কটল্যান্ড কর্তৃপক্ষ কোয়েতজার-সহ স্কটল্যান্ড ক্রিকেট দলের ১৫-সদস্যের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে।[৪] ২৩ ফেব্রুয়ারি গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় খেলায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার দৃঢ়তাপূর্ণ ব্যাটিং স্বত্ত্বেও স্কটল্যান্ড দল ১১৯ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হয়। খেলায় তিনি ৮৪ বলে ৭১ রান করে দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হন। এ রানটি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে ১৯৯৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্যাভিন হ্যামিলটনের করা ৭৬ রানের পর স্কটল্যান্ডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ।[৫] দলীয় অধিনায়ক প্রিস্টন মমসেনের সাথে ৪র্থ উইকেটে স্কটল্যান্ড দল ৬০ রান করে যা বিশ্বকাপে দলের সর্বোচ্চ জুটি। এছাড়াও স্কটল্যান্ডের বিশ্বকাপের ইতিহাসে যে-কোন জুটিতে এ সংগ্রহটি চতুর্থ সর্বোচ্চ রানের জুটি।[৫] ৫ মার্চ, ২০১৫ তারিখে বাংলাদেশের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের ৪র্থ খেলায় তিনি ১৫৬ রানের বিশাল ইনিংস খেলেন। তার এ সেঞ্চুরিটি স্কটল্যান্ডের পক্ষে বিশ্বকাপে প্রথম। এছাড়াও তার এ সংগ্রহটি সহযোগী দেশগুলোর পক্ষে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান।[৬] তার একক নৈপুণ্যে বিশ্বকাপের কোন খেলায় স্কটল্যান্ড প্রথমবারের মতো ৩০০+ রান সংগ্রহ করে। পরবর্তীতে তামিম ইকবালসহ শীর্ষ ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্বে বাংলাদেশ সফলভাবে একদিনের আন্তর্জাতিকে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে ৬ উইকেটে বিজয়ী হয়।[৭]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলোয়াড়ভূক্ত পরিবার থেকে কোয়েতজার এসেছেন। তার বাবা পিটারসহ দুই ভাই শন ও স্টুয়াট স্টোনিউড-ডাইস ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষ হয়ে খেলেন। তার কাকা গ্র্যান্ট ডাগমোর ইস্টার্ন প্রভিন্সআর্জেন্টিনা ক্রিকেট দলে খেলেছেন।

সেরা ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন[সম্পাদনা]

৮ মার্চ, ২০১৩ তারিখ পর্যন্ত

ব্যাটিং বোলিং
স্কোর ধরন স্থান মৌসুম স্কোর ধরন স্থান মৌসুম
ওডিআই ১৫৬ স্কটল্যান্ড বনাম বাংলাদেশ নেলসন ২০১৫ ১-৩৫ স্কটল্যান্ড বনাম নেদারল্যান্ডস অ্যাবরদিন ২০১১
টি২০আই ৬২ স্কটল্যান্ড বনাম আয়ারল্যান্ড দুবাই ২০১২ ৩-২৫ স্কটল্যান্ড বনাম আফগানিস্তান আবুধাবি ২০১০
এফসি ১৭২ ডারহাম বনাম এমসিসি আবুধাবি ২০১০ ২-১৬ স্কটল্যান্ড বনাম কেনিয়া নাইরোবি ২০১০
এলএ ১৩৩ স্কটল্যান্ড বনাম আফগানিস্তান শারজাহ ২০১৩ ১-২৫ নর্দাম্পটনশায়ার স্টিলব্যাকস বনাম সাসেক্স শার্কস অ্যারানডেল ২০১২
টি২০ ৬৪ স্কটল্যান্ড বনাম উগান্ডা নাইরোবি ২০১০ ৩-২৫ স্কটল্যান্ড বনাম আফগানিস্তান আবুধাবি ২০১০

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Scotland v Pakistan: Kyle Coetzer excited by 'new era'। BBC Sport। ২০১৩-০৫-১৬। সংগৃহীত ২০১৩-০৫-১৯ 
  2. Niall O'Brien and Kyle Coetzer agree Northants deals। BBC Sport। ২০১১-০৮-১৭। সংগৃহীত ২০১২-১২-৩১ 
  3. Northants agree Alex Wakely, David Willey & Kyle Coetzer deals। BBC Sport। ২০১২-০৮-২৩। সংগৃহীত ২০১২-১২-৩১ 
  4. "SCOTLAND NAME FINAL 15 MAN SQUAD FOR THE ICC CRICKET WORLD CUP 2015"। সংগৃহীত ৯ জানুয়ারি ২০১৫ 
  5. Jeswant, Bishen (২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "Scotland still on 0 World Cup wins"। espncricinfo। সংগৃহীত ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  6. "Scotland's Cricket World Cup hopes ended by Bangladesh"। BBC Sport। ৫ মার্চ ২০১৫। সংগৃহীত ৫ মার্চ ২০১৫ 
  7. "Seniors set up Bangladesh's highest chase"। ESPN Cricinfo। ৫ মার্চ ২০১৫। সংগৃহীত ৫ মার্চ ২০১৫ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]