মজিদ হক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মজিদ হক
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরাণা মজিদ হক খান
জন্ম (1983-02-11) ১১ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৩ (বয়স ৩৬)
পৈসলি, রেনফ্রিউশায়ার, স্কটল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
সম্পর্কওমর হোসেন (চাচাতো ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২৮)
১৭ ডিসেম্বর ২০০৬ বনাম বাংলাদেশ
শেষ ওডিআই২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ বনাম আফগানিস্তান
ওডিআই শার্ট নং৭৭
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ )
১২ সেপ্টেম্বর ২০০৭ বনাম পাকিস্তান
শেষ টি২০আই২৮ নভেম্বর ২০১৩ বনাম নেদারল্যান্ডস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫৩ ২১ ১৯ ১৪৮
রানের সংখ্যা ৫৬৫ ৬৪ ৬৪৫ ১,৪১৩
ব্যাটিং গড় ১৭.১২ ১২.৮০ ২৫.৮০ ১৭.৮৮
১০০/৫০  –/৩  –/– ১/১  –/৬
সর্বোচ্চ রান ৭১ ২১* ১২০* ৭১
বল করেছে ২,৫৭৩ ৪৫০ ৩,৪৬৫ ৬,৩৩৫
উইকেট ৬০ ২৮ ৬০ ১৪১
বোলিং গড় ৩২.১০ ১৬.৮৫ ২২.৪১ ৩৬.২৬
ইনিংসে ৫ উইকেট  –
ম্যাচে ১০ উইকেট  –  –  –  –
সেরা বোলিং ৫/৫৪ ৩/২০ ৬/৩২ ৫/৫৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১০/– ৪/– ১০/– ১৯/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

রাণা মজিদ হক খান (জন্ম: ১১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮৩) রেনফ্রিউশায়ারের পৈসলি এলাকায় জন্মগ্রহণকারী স্কটিশ ক্রিকেটারস্কটল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য মজিদ খান বামহাতি ব্যাটসম্যান ও অফ স্পিন বোলার। স্কটল্যান্ডের পক্ষে অনূর্ধ্ব-১৭, অনূর্ধ্ব-১৯ ও অনূর্ধ্ব-২৩ পর্যায়ে ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মজিদের এক চাচাতো ভাই ওমর হোসেন তার সাথে কেলবার্ন ক্রিকেট ক্লাবে খেলেছেন। এছাড়াও তারা ফার্গাসলাই ক্রিকেট ক্লাবে খেলেন ও বর্তমানে ক্লাইডেসডেল ক্রিকেট ক্লাবে খেলছেন। কর্মজীবনে একটি অ্যাকাউন্টেন্সি ফার্মে কর্মরত রয়েছেন। ২০ জুলাই, ২০০২ তারিখে স্কটল্যান্ড দলের পক্ষে ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশীপের খেলায় ইংল্যান্ড বোর্ড একাদশের বিপক্ষে অভিষেক ঘটে তার।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে দলের প্রাথমিক তালিকায় ওমরসহ তাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তাদের উভয়কেই দলের চূড়ান্ত তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য শারীরিক যোগ্যতাকে প্রাধান্য দেয়ার শর্ত আরোপ করা হয়।[১] ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত ২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ড দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন।

দুবাই ও কেনিয়া সফরে দলের সদস্য হন। এছাড়াও, ২০০৭ সালের বিশ্ব ক্রিকেট লীগ প্রথম বিভাগ প্রতিযোগিতায় রানার্স-আপ হওয়া স্কটল্যান্ড দলকে সহায়তা করেন তিনি। ২০০৭ সালের শেষদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত টুয়েন্টি২০ চ্যাম্পিয়নশীপেও দলের সদস্য ছিলেন।

ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

৯ জানুয়ারি, ২০১৫ তারিখে ক্রিকেট স্কটল্যান্ড কর্তৃপক্ষ কাইল কোয়েতজারকে অধিনায়কত্ব করে তাদের ১৫-সদস্যের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে।[২] দলে তিনিও অন্যতম সদস্য মনোনীত হন। ২৬ ফেব্রুয়ারি তারিখে অনুষ্ঠিত গ্রুপ-পর্বের ৩য় খেলায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৯ম উইকেটে অ্যালাসডেয়ার ইভান্সকে সাথে নিয়ে স্কটল্যান্ডের একদিনের ইতিহাসে ৬২ রানের সেরা জুটি গড়েন।[৩] এরফলে প্রথমবারের মতো স্কটল্যান্ড দল বিশ্বকাপে দুই শতাধিক রানের কোটা অতিক্রম করলেও[৩] তার দল মাত্র ১ উইকেটের ব্যবধানে পরাজিত হয়। কিন্তু, ১১ মার্চ, ২০১৫ তারিখে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. timesonline
  2. "SCOTLAND NAME FINAL 15 MAN SQUAD FOR THE ICC CRICKET WORLD CUP 2015"। ৯ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০১৫ 
  3. McGlashan, Andrew (২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "History for Afghanistan, heartbreak for Scotland"ESPNcricinfo। ESPN Sports Media। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  4. "Cricket World Cup 2015: Scotland send home Majid Haq"। BBC Sport। ১১ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০১৫ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]