মহীশূর বিমানবন্দর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মহীশূর বিমানবন্দর
Mysore Airport.jpg
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
বিমানবন্দরের ধরনসরকারি
মালিক/পরিচালকভারতীয় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ
সেবা দেয়মহীশূর, কোডাগু/কুরগ, উটি, কান্নুর, মান্ড্যা, হাসান
অবস্থানমন্দাকাল্লি, কর্ণাটক, ভারত
এএমএসএল উচ্চতা৭১৫ মিটার / ২,৩৪৭ ফুট
স্থানাঙ্ক১২°১৩′৪৮″ উত্তর ৭৬°৩৯′২১″ পূর্ব / ১২.২৩০০০° উত্তর ৭৬.৬৫৫৮৩° পূর্ব / 12.23000; 76.65583 (Mysore Airport)স্থানাঙ্ক: ১২°১৩′৪৮″ উত্তর ৭৬°৩৯′২১″ পূর্ব / ১২.২৩০০০° উত্তর ৭৬.৬৫৫৮৩° পূর্ব / 12.23000; 76.65583 (Mysore Airport)
মানচিত্র
এমওয়াইকিউ কর্ণাটক-এ অবস্থিত
এমওয়াইকিউ
এমওয়াইকিউ
এমওয়াইকিউ ভারত-এ অবস্থিত
এমওয়াইকিউ
এমওয়াইকিউ
রানওয়েসমূহ
দিকনির্দেশনা দৈর্ঘ্য পৃষ্ঠতল
মি ফুট
০৯/২৭ ১,৭৪০ ৫,৭০৯ কংক্রিট
পরিসংখ্যান (এপ্রিল ২০১৮ - মার্চ ২০১৯)
যাত্রী সংখ্যা৪৩,৭৩৮ (বৃদ্ধি১২০.৬%)
উড়ান সংখ্যা৮০৮ (বৃদ্ধি৭০.৮%)

মহীশূর বিমানবন্দর (আইএটিএ: এমওয়াইকিউআইসিএও: ভিওএমওয়াই), মন্দাকাল্লি বিমানবন্দর নামেও পরিচিত, এই বিমানবন্দরটি ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের মহীশূর শহরে পরিষেবা প্রদান করে। এটি শহরের ১০ কিলোমিটার (৬.২ মাইল) দক্ষিণে মন্দাকাল্লি গ্রামের কাছে অবস্থিত এবং ভারতীয় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের (এএআই) মালিকাধিন ও পরিচালনাধীন। বিমানবন্দরের থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত প্রতিদিন চেন্নাই, হায়দ্রাবাদ, বেঙ্গালুরু ও গোয়ায় উড়ান চলাচল করে।

বিমানবন্দরের ইতিহাস ১৯৪০-এর দশকে শুরু হয়, যখন এটি মহীশূর রাজ্যের দ্বারা নির্মিত হয়। যাত্রী পরিষেবা, ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণের উড়ান ও অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ প্রথম কয়েক দশক ধরে মহীশূর বিমানবন্দরে সংঘটিত হয়।

বহির্গমন এলাকার প্রবেশদ্বার
টার্মিনালের নিকট দৃশ্য

ইতিহাস[সম্পাদনা]

দেশীয় রাজ্য মহীশূরে ১৯৪০ সালে ২৮০ একর (১২০ হেক্টর) জমির উপর বিমানবন্দরটি স্থাপন করা হয়। ১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হওয়ার পর কর্ণাটক সরকার বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে। বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক ১৯৫০ সালে বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে।[৩] ডাকোটা বিমান ব্যবহার করে বেঙ্গালুরুতে যাত্রীবাহী পরিষেবা শুরু হয়, তবে জনগণ সড়ক পথে যাতায়াত দ্রুততর হতে দেখায়, এটি দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। এরপরে, দ্য হিন্দু চেন্নাই থেকে ব্যাঙ্গালোর হয়ে দৈনিক উড়ান শুরু করে তাদের সংবাদপত্র সরবরাহ করাতে। [৪] যাইহোক, এই উড়ান পরিষেবা মাত্র কয়েক মাস স্থায়ী হয়।[৫]

পরবর্তীতে, বিমানবন্দরটি বিদেশি পর্যটকদের বহনকারী চুক্তি ভিত্তিক উড়ান ও জওহরলাল নেহেরুর মতো দেশবাসীদের পরিবহনকারী উড়োজাহাজ দ্বারা ব্যবহৃত হয়। [৩][৫] পাশাপাশি, ভারতীয় বিমানবাহিনী বিমানবন্দরে প্রশিক্ষণ উড়ান পরিচালনা করে। [৬] আঞ্চলিক বিমান সংস্থা বায়ুদূত ১৯৫৮ সালে ডারনিয়ার ২২৮ বিমান ব্যবহার করে সপ্তাহে তিনদিন ব্যাঙ্গালোর থেকে উড়ান পরিচালনা শুরু করে। [৩] এই পরিষেবাটি বিখ্যাত ভারতীয় লেখক আর.কে. নারায়ণের উদ্বোধন করেন। সেই সময়ে মহীশূর বিমানবন্দরটি শুধুমাত্র একটি ঘাসের রানওয়ে এবং একটি টয়লেটের সাথে একক কক্ষ বিশিষ্ট টার্মিনালের সমন্বয়ে গঠিত ছিল। [৭] স্বল্প সংখ্যক যাত্রীর [৩][৫] কারণে উড়ান পরিষেবাটি ১৯৯০ সালে বন্ধ হয়ে যায়।

বিদ্যমান টার্মিনালটি ২০১০ সালে নির্মিত হয়, নির্মাণ শেষে বিমানবন্দরটি ২০০ জন যাত্রী পরিচালনা করতে সক্ষম হয়।[৮] বিমান সংস্থা উড়ান পরিষেবা শুরু করে, তবে খুব কম সাড়া পাওয়ার কারণে উড়ানগুলি বন্ধ করা হয় এবং বিমানবন্দরটি অব্যবহৃত অবস্থায় ছেড়ে দেওয়া হয়।[৯] কেন্দ্রীয় সরকারের উড়ান প্রকল্পের সাহায্যে উড়ান পরিষেবা আবারো কাজ শুরু হয় এবং ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত মহীশূর বিমানবন্দর থেকে ৭ টি গন্তব্যের উদ্দেশ্যে উড়ান রয়েছে।[৯][১০]

পরিকাঠাম[সম্পাদনা]

মাহীশূর বিমানবন্দরে ৩০ মিটার প্রস্ত ও ১,৭৪০ মিটার দীর্ঘ (৫,৭০৯ ফুট × ৯৮ ফুট) একটি ০৯/২৭ রানওয়ে এবং এটি এটিআর ৭২ টার্বোপ্রপ ও অনুরূপ উড়োজাহাজকে পরিষেবা প্রদানে সক্ষম।[৫] এপ্রোনে তিনটি বিমান দাঁড়ানোর স্থান রয়েছে এবং এর সঙ্গে রানওয়েটি একটি একক ট্যাক্সিওয়ে দ্বারা সংযুক্ত। [১১] মাহীশূর বিমানবন্দরের যাত্রী টার্মিনাল ৩,২৫০ বর্গ মিটার (৩৫,০০০ বর্গ ফুট) জুড়ে বিস্তৃত এবং সর্বোচ্চ ২০০ জন যাত্রী ধারণে সক্ষম।[৫] মাহীশূর সিটি বাস স্ট্যান্ড থেকে দিনে ৭ বার ভলভো বাসসমূহ উড়ানের নির্ধারিত সময়ের আগে পাওয়া যায়।[১২]

বিমান ও বিমান সংস্থা[সম্পাদনা]

বিমান সংস্থাগন্তব্যস্থল
অ্যালায়েন্স এয়ার বেঙ্গালুরু,[১৩] গোয়া, হায়দ্রাবাদ, কোচি, ম্যাঙ্গালোর [১৪][১৫]
ইণ্ডিগো হায়দ্রাবাদ[১৬]
ট্রুজেট বেলগাম,[১৭] চেন্নাই

ভবিষ্যত পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

দ্বিতীয় ধাপের সম্প্রসারণের অধীনে, রানওয়েটি ২,৭৫০ × ৪৫ মিটার (৯,০২২ ফুট × ১৪৮ ফুট) দীর্ঘ করা হবে, বোয়িং ৭৩৭এয়ারবাস এ৩২০ এর মতো জেট বিমানগুলি মহীশূর বিমানবন্দরে অবতরণ করতে সক্ষম হবে। [১৮] রেলপথের উপস্থিতির কারণে রানওয়েকে পশ্চিমে প্রসারিত করা সম্ভব নয়, পূর্বদিকে প্রসারণের জন্য ৭৬৬ নং জাতীয় জাতীয় সড়ককে স্থানান্তর করা প্রয়োজন। [১৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "traffic news Mar2K19Annex3 pdf" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ৭ জানুয়ারি ২০২০ 
  2. "traffic-news Mar2K19Annex2 pdf" (PDF)www.aai.aero। সংগ্রহের তারিখ ৭ জানুয়ারি ২০২০ 
  3. Vattam, Krishna (১৯ অক্টোবর ২০০৯)। "Tale of an airstrip: Then and now"Deccan Herald। ২১ মে ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  4. Satya, Gouri (১৯ নভেম্বর ২০১১)। "Mysore no longer connected by air"Business Standard। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  5. "Mysore airport resurrected"Business Standard। ৪ অক্টোবর ২০১০। ২১ মে ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  6. "Connect India, the AAI way" (PDF)Cruising Heights। Newsline Publications। অক্টোবর ২০১১। পৃষ্ঠা 70–71। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬[Mysore Airport] was used for scheduled flight operations by Vayudoot with Dornier aircraft till 1990. The Indian Air Force/NCC used the strip for training flights apart from sporadic use by small private charter flights. 
  7. Narayan, R. K. (১৯৯৩)। Salt & Sawdust: Stories and Table Talk। New Delhi: Penguin Books India। পৃষ্ঠা 125–126। আইএসবিএন 9780140236705 
  8. "Mysore airport inauguration on May 15"Bangalore Mirror (ইংরেজি ভাষায়)। ১১ মে ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ 
  9. "History and Future of Civil Aviation in Mysuru"Voice of Mysuru (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ 
  10. "Fresh lease of life to Mandakalli Airport"Star of Mysore (ইংরেজি ভাষায়)। ২ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ 
  11. Aerodrome Data Mysore Airport (VOMY) (PDF) (প্রতিবেদন)। Airports Authority of India। ২৯ অক্টোবর ২০১৫। পৃষ্ঠা 9–10। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১৬ 
  12. Hub, Mysuru Infra (১৩ ডিসেম্বর ২০২০)। "Volvo bus service to Mysuru Airport - A step in the right direction"Mysuru Infra Hub (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০২০ 
  13. https://orissadiary.com/alliance-air-now-connects-mysuru-bengaluru-onwards-vijayawada/
  14. "Now, fly between Mysuru and Mangaluru in one hour"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০২০ 
  15. https://starofmysore.com/mysuru-mangaluru-flight-begins-operation-from-today/
  16. "New Flights"www.goindigo.in 
  17. "TruJet to commence four UDAN services at Belgaum Airport in Jan-2020"CAPA। সংগ্রহের তারিখ ৭ জানুয়ারি ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]