জোয়েল গার্নার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জোয়েল গার্নার
JOEL GARNER.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজোয়েল গার্নার
ডাকনামবিগ বার্ড
উচ্চতা৬ ফুট ৮ ইঞ্চি (২.০৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি ব্যাটসম্যান
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৬০)
১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৭ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১২-১৫ মার্চ ১৯৮৭ বনাম নিউজিল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২১)
১৬ মার্চ ১৯৭৭ বনাম পাকিস্তান
শেষ ওডিআই২৮ মার্চ ১৯৮৭ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৭৫-১৯৮৭বার্বাডোস
১৯৭৭-১৯৮৬সমারসেট
১৯৮২-১৯৮৩সাউথ অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫৮ ৯৮ ২১৪ ২৫৬
রানের সংখ্যা ৬৭২ ২৩৯ ২৯৬৪ ১০২৩
ব্যাটিং গড় ১২.৪৪ ৯.১৯ ১৬.৭৪ ১১.৭৫
১০০/৫০ ০/১ ০/০ ১/৮ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৬০ ৩৭ ১০৪ ৫৯
বল করেছে ১৩১৬৯ ৫৩৩০ ৩৯৮২৯ ১৩৩৫৯
উইকেট ২৫৯ ১৪৬ ৮৮১ ৩৯৭
বোলিং গড় ২০.৯৭ ১৮.৮৪ ১৮.৫৩ ১৬.৬১
ইনিংসে ৫ উইকেট ৪৮ ১০
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৬/৫৬ ৫/৩১ ৮/৩১ ৬/২৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪২/০ ৩০/০ ১২৯/০ ৭১/০
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৯ অক্টোবর ২০১৭

জোয়েল গার্নার (জন্ম: ১৬ ডিসেম্বর, ১৯৫২) ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন ক্রিকেটার।[১] ৬ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার এই খেলোয়ার "বিগ জোয়েল" বা "বিগ বার্ড" হিসেবেও পরিচিত ছিলেন।

ক্রিকেটে প্রধানতঃ তিনি একজন ফাস্ট বোলার ছিলেন। টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে লম্বা বোলারদের অন্যতম ছিলেন গার্নার। তিনি, মাইকেল হোল্ডিং, এন্ডি রবার্টস, কলিন ক্রফট এবং পরবর্তিতে ম্যালকম মার্শাল এর মত ফাস্ট বোলারদের সাথে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল এমন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছিল যে টানা ১৫ বছর তারা কোন টেস্ট সিরিজ হারেনি।[২]

১৯৭৭ থেকে ১৯৮৭ খ্রিঃ খেলা ৫৮ টেস্টে তিনি ২৫৯টি উইকেট নিয়েছেন মাত্র ২০.৯৮ গড়ে, যা টেস্ট ইতিহাসের অন্যতম সেরা বোলিং পরিসংখ্যান।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তিনি তার উচ্চতাকে ব্যবহার করে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছিলেন (৯৮ ম্যাচে ১৪৬ উইকেট ৩.০৯ ইকোনমি রেটে)। ইয়র্কার, বাড়তি বাউন্স আর সুইংয়ের মিশেলে তার বল খেলা ব্যাটসম্যানদের জন্য ছিল অনেক কষ্টসাধ্য। ১০০-এর বেশি ওয়ানডে উইকেটধারী বোলারদের মধ্যে ২০ এর নিচে গড় একমাত্র তার।

১৯৭৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৩৮ রানে ৫ উইকেট[৩] নিয়ে তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের টানা ২য় বিশ্বকাপ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। এই ম্যাচে একটি স্পেলে তিনি মাত্র ৪ রানে ৫ উইকেট নেন, যার মধ্যে তিনি ২ বার হ্যাট্রিক এর দ্বারপ্রান্তে ছিলেন।

তিনি বার্বাডোজের হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজে, শেফিল্ড শিল্ডে সাউথ অস্ট্রেলিয়ার হয়ে এবং সমারসেটের হয়ে ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে খেলতেন। ভিভ রিচার্ড এবং ইয়ান বোথামের সঙ্গে তিনি সমারসেটের অন্যতম সেরা সময়ে খেলেছেন।

তিনি ১৯৮০ সালের উইজডেন ক্রিকেটার অফ দা ইয়ার ছিলেন।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]