এলটন চিগুম্বুরা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এলটন চিগুম্বুরা
Elton Chigumbura fielding.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম এলটন চিগুম্বুরা
জন্ম (১৯৮৬-০৩-১৪) ১৪ মার্চ ১৯৮৬ (বয়স ২৯)
কেওয়েকেওয়ে, জিম্বাবুয়ে
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ভূমিকা অল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ৬১) ৬ মে ২০০৪ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট ১২ নভেম্বর ২০১৪ বনাম বাংলাদেশ
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ৭৮) ২০ এপ্রিল ২০০৪ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই ৭ মার্চ ২০১৫ বনাম আয়ারল্যান্ড
ওডিআই শার্ট নং ৪৭
টি২০আই অভিষেক ২৮ নভেম্বর ২০০৬ বনাম বাংলাদেশ
শেষ টি২০আই ২১ মার্চ ২০১৪ বনাম সংযুক্ত আরব আমিরাত
টি২০আই শার্ট নং ৪৭
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
২০১০ নর্দাম্পটনশায়ার
২০০৬– নর্দান্স
২০০৫–২০০৬ মনিকাল্যান্ড
২০০৯- ম্যাশোনাল্যান্ড
২০০৯- ম্যাশোনাল্যান্ড ঈগলস
২০১৩ সিলেট রয়্যালস
২০১৪ বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৪ ১৭৩ ৯২ ২৭০
রানের সংখ্যা ৫৬৯ ৩,৪৬৮ ৫,০১৯ ৫,৫৬০
ব্যাটিং গড় ২১.০৭ ২৪.৯৪ ৩৩.২৩ ২৭.৫২
১০০/৫০ –/৩ ১/১৭ ৬/৩৩ ২/২৯
সর্বোচ্চ রান ৮৬ ৯০ ১৮৬ ১০৯*
বল করেছে ১,৮০৬ ৪,১৯৫ ১০,৯৩০ ৬,৪০০
উইকেট ২১ ৯৭ ২০৬ ১৬৩
বোলিং গড় ৪৬.০০ ৪২.৫৩ ২৮.৬৬ ৩৭.২৩
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৫/৫৪ ৪/২৮ ৫/৩৩ ৬/২৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬/– ৬০/– ৪০/– ৯০/–
উত্স: Cricinfo, ১ মার্চ ২০১৫

এলটন চিগুম্বুরা (ইংরেজি: Elton Chigumbura; জন্ম: ১৪ মার্চ, ১৯৮৬) কেওয়েকেওয়ে শহরে জন্মগ্রহণকারী জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটার। বর্তমানে জিম্বাবুয়ে দলের পাশাপাশি ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে নর্দাম্পটনশায়ার ক্লাবের পক্ষ হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটাঙ্গনে যুক্ত রয়েছেন। এছাড়াও তিনি জিম্বাবুয়ের একদিনের আন্তর্জাতিক ও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক দলের অধিনায়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ম্যাশোনাল্যান্ড ক্রিকেট দলের পক্ষ হয়ে চিগুম্বুরা প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন। তখন তার বয়স ছিল মাত্র পনের বছর। এরপর জিম্বাবুয়ে দলের পক্ষ হয়ে পর দু’টি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেন। তন্মধ্যে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চার উইকেট দখল করে অপ্রত্যাশিতভাবে দলকে জয়ের মুখ দেখান।

এপলটন ক্রিকেট ক্লাবে স্বল্পকালীন অবস্থান করে ১৫ মার্চ, ২০১০ তারিখে বিদেশী খেলোয়াড় হিসেবে নর্দাম্পটনশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবে খেলার জন্য স্বাক্ষর করেন।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

বিদ্রোহী খেলোয়াড়দের অনুপস্থিতিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২০ এপ্রিল, ২০০৪ সালে শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন। এরপর আঠারো বছর বয়সে শ্রীলঙ্কা সফরে প্রথম টেস্ট খেলেন।

টেস্ট ক্রিকেট থেকে স্বেচ্ছা নির্বাসনের পূর্বে ২০০৫ সাল পর্যন্ত তিনি ৬টি টেস্ট খেলেন। কিন্তু ব্যাটিংয়ে দারুণভাবে ব্যর্থ ছিলেন। ১২ ইনিংসের ৫টিতেই শূন্য রান ছিল তার। ৭১ রানের একটি অর্ধ-শতক করেছিলেন চট্টগ্রামে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। এরপর তার নিজ সেরা ৫/৫৪ লাভ করেন।

২৬ মে, ২০১৫ তারিখে পাকিস্তান সফরে ৩ খেলার ওডিআই সিরিজের ১ম ওডিআইয়ে স্বাগতিক পাকিস্তানের বিপক্ষে চিগুম্বুরা তার প্রথম সেঞ্চুরি করেন।[২] লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় ৯৫ বলে করা ১১৭ রানের ইনিংস স্বত্ত্বেও তার দল ৪১ রানের ব্যবধানে পরাজিত হয়। কিন্তু দলের ধীরগতিতে বোলিংয়ের কারণে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করায় পরবর্তী দুই খেলায় অংশগ্রহণের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।[৩] ফলে পরবর্তী দুই খেলায় চিগুম্বুরার অনুপস্থিতিতে দলকে নেতৃত্ব দেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা[৪]

ওডিআই সেঞ্চুরি[সম্পাদনা]

এলটন চিগুম্বুরার ওডিআই সেঞ্চুরি
ক্রমিক রান প্রতিপক্ষ মাঠ সাল ফলাফল
১১৭  পাকিস্তান গাদ্দাফি স্টেডিয়াম, লাহোর ২০১৫ পরাজয়

অধিনায়কত্ব[সম্পাদনা]

মে, ২০১০ তারিখে তিনি প্রসপার উতসেয়া’র পরিবর্তে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক মনোনীত হন। তিনি ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে দলকে নেতৃত্ব দেন। দূর্বল কানাডাকেনিয়ার বিরুদ্ধে জয়লাভ করলেও কোয়ার্টার ফাইনালে প্রবেশ করতে ব্যর্থ হয় দলটি।[৫] কিন্তু কয়েকমাস পর বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায় দলের খারাপ ফলাফলের দরুণ ২৪ জুন তারিখে তার পরিবর্তে ব্রেন্ডন টেলরকে জিম্বাবুয়ের অধিনায়কত্ব প্রদান করা হয়।[৬] টেস্ট ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের প্রত্যাবর্তনের পর দলটি হারারে স্পোর্টস ক্লাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিপক্ষে খেলতে নামে। ৪ আগস্ট, ২০১১ তারিখে অনুষ্ঠিত একমাত্র টেস্টে তিনি তিন উইকেট লাভ করেন।[৭][৮] কিন্তু হাঁটুর আঘাতপ্রাপ্তির জন্য পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত টেস্টে দলের বাইরে ছিলেন।[৯]

২৪ জুলাই, ২০১৪ তারিখে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সিদ্ধান্তমাফিক সকল স্তরের ক্রিকেটে পরিবর্তনের অংশ হিসেবে চিগুম্বুরাকে ওডিআই এবং টি২০ দলের অধিনায়ক ও ব্রেন্ডন টেলরকে টেস্টের অধিনায়কত্ব প্রদান করা হয়। এছাড়াও কোচিং কাঠামোয় পরিবর্তনের অংশ হিসেবে স্টিফেন ম্যানগোঙ্গোকে প্রধান কোচের দায়িত্বভার অর্পণ করা হয়।[১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Northants sign all-rounder Elton Chigumbura BBC Sport. 2010-03-15. Retrieved 2010-03-15.
  2. "Malik ton, Riaz aggression give Pakistan big win"ESPNCricinfo। সংগৃহীত ২৬ মে ২০১৫ 
  3. "Chigumbura suspended for two ODIs"ESPNCricinfo। সংগৃহীত ২৭ মে ২০১৫ 
  4. "Zimbabwe face stiffer test without Chigumbura"ESPNCricinfo। সংগৃহীত ২৮ মে ২০১৫ 
  5. "Chigumbura wants to step down as captain"ESPNcricinfo। ৩০ এপ্রিল ২০১১। সংগৃহীত ১৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  6. "Taylor named Zimbabwe captain"ESPNcricinfo। ২৪ জুন ২০১১। সংগৃহীত ১৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  7. Moonda, Firdose (৮ আগস্ট ২০১১)। "Zimbabwean Captain Brendan Taylor hails historic victory"ESPNCricinfo। সংগৃহীত ৯ আগস্ট ২০১১ 
  8. "Bangladesh tour of Zimbabwe, 2011 / Scorecard: Only Test"ESPNcricinfo। সংগৃহীত ১৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  9. "Chigumbura advised MRI scan for knee"ESPNcricinfo। ১ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ১৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  10. "Chigumbura named Zimbabwe's limited-overs captain"ESPNcricinfo। ২৪ জুলাই ২০১৪। সংগৃহীত ৩ আগস্ট ২০১৪ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী
প্রসপার উতসেয়া
ওডিআই ও টি২০আই অধিনায়ক
২০১০-২০১১
উত্তরসূরী
ব্রেন্ডন টেলর
পূর্বসূরী
ব্রেন্ডন টেলর
ওডিআই ও টি২০আই অধিনায়ক
২০১৪-
উত্তরসূরী
বর্তমান