নাদের শাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নাদের শাহ
ইরানের শাহেনশাহ
Lion and Sun Emblem of Persia.svg
নাদের শাহর প্রতিকৃতি
রাজত্বকাল ১৭৩৬–১৭৪৭
জন্ম ১৬৮৮[১] বা ১৬৯৮[২]
জন্মস্থান দস্তগীর,[৩] (কুরাশান, ইরান)
মৃত্যু ২০ জুন ১৭৪৭[৪]
মৃত্যুস্থান কুচেন (কুরাশান, ইরান)
পূর্বসূরি তৃতীয় আব্বাস
উত্তরসূরি আদিল শাহ

নাদের শাহ আফছার বা নাদের শাহ (ফার্সি:نادر شاه افشار‎; নাদের কুলি বেগ হিসেবেও পরিচিত- نادر قلی بیگ বা তাহামাস কুলি বেগ- تهماسپ قلی خان) (নভেম্বর ১৬৮৮[১] বা আগস্ট ৬, ১৬৯৮[২] – জুন ১৯, ১৭৪৭) ইরানের শাহ হিসেবে শাসন করেছেন ও তিনি ছিলেন আফছারিদ রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা। তার প্রখর সামরিক দক্ষতার কারনে কোন কোন ইতিহাসবিদ তাকে পারস্যের নেপোলিয়ন বা দ্বিতীয় আলেক্সান্ডার হিসেবে আক্ষ্যায়িত করেছেন।[৫] নাদের শাহ তুর্কীর আফছার উপজাতীর সদস্য ছিলেন[৬] যারা প্রথম শাহ ইসমাইলের সময় থেকেই সাফাভিদ রাষ্ট্রে সামরিক রসদ সরবরাহ করতেন।[৭]

হুতাকি আফগানদের দ্বারা বিদ্রোহ শুরু হলে ইরানে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় তারা পারস্যের শাহ সুলতান হুসাইনকে সহজেই ক্ষমতাচুত্য করে। উসমানীয়রাশিয়া উভয়েই পারস্যের বিভিন্ন অঞ্চল দখল করে নেয়। ঠিক এরকম পরিস্থিতিতে নাদের শাহ ক্ষতায় আসেন। তিনি ক্ষমতায় আসার পর পারস্যের অঞ্চলগুলোকে পুনরায় একত্রিত করেন ও সেখান থেকে দখলদারীদের উচ্ছেদ করেন। তিনি এতো ক্ষমতাবান হয়ে উঠেন যে ২০০ বছর ধরে পারস্য শাসন করা সাফাভিদ রাজবংশের শেষ শাসককে পদচুত্য করার পরিকল্পনা করেন। ১৭৩৬ সালে সাফাবিধ রাজবংশের শাসককে ক্ষমতাচুত্য করে নিজেকে ইরানের শাহ হিসেবে ঘোষণা করেন। তার অনেক সামরিক অভিযান তার সাম্রাজ্য বহুগণে বৃদ্ধি করে ও চতুর্দিকে তার সাম্রাজ্যের পরিধি বাড়তে থাকে। তিনি বর্তমান ইরান, ইরাক, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, ভারত, জর্জিয়া, আর্মেনিয়া, আজারবাইজান, রাশিয়া, ওমানপারস্য উপসাগরের অঞ্চলকে তার সাম্রাজ্যের অধীনে নিয়ে আসেন কিন্তু তার সেনাবাহিনী পারস্যের অর্থনীতিতে ধ্বংস ডেকে আনে।[১]

নাদের তার আদর্শ হিসেবে মধ্য এশিয়ার আরো দুজন অন্যতম বিজেতা চেঙ্গিস খানতৈমুর লংকে অনুসরন করেন। তিনি তাদের সামরিক ক্ষমতা, তাদের রাজত্ব পরিধির ধারা ও পরবর্তীকালে তাদেরমত নিষ্ঠুরও হয়ে উঠেন। তার এই বিজয় তাকে মধ্য-প্রাচ্যের সার্বভৌম ক্ষমতাধর হিসেবে প্রতিষ্ঠা করে কিন্তু ১৭৪৭ সালে তাকে হত্যা করার পরপরই তার সাম্রাজ্য ধ্বংসের দিকে যেতে থাকে। নাদের শাহকে এশিয়ার ইতিহাসের সর্বশেষ মহান সামরিক বিজেতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়।[৮] তাকে উসমানীয়মুঘল সাম্রাজ্যের মাঝেও ইরানের ক্ষমতা পূণ:প্রতিষ্ঠার জন্য কৃতিত্ত্ব দেওয়া হয়ে থাকে।[৯][১০][১১]

প্রারম্ভিক জীবন[উৎস সম্পাদনা]

নাদের শাহ দস্তগীর দূর্গনগরে আফছারের কেরেক্লু গোত্রে জন্মগ্রহন করেন।[৩] তার পিতা এমাম কুলি ছিলেন একজন গবাদিপশু পালক যিনি মাঝে মাঝে উষ্ট্রচালক ও কোটম্যাকার[১২] হিসেবেও কাজ করতেন। নাদের যখন ছোট তখন তার পিতা মৃত্যুবরণ করেন।[১৩] কিংবদন্তী অনুসারে নাদের ও তার মাতা উজবেক বা তুর্কী দ্বারা দাস হিসেবে কাজ শুরু করেন কিন্তু নাদের পালাতে সক্ষম হন। তিনি এরপর একটি সৈন্যবাহিনীতে যোগদান করেন ও পরবর্তীকালে এর প্রধান হয়ে উঠেন। আফছার উপজাতীয় গোত্রের সর্দারের পৃষ্ঠপোষকতায় তার পদমর্যাদা বাড়তে শুরু করে ও তিনি ক্ষমতাশালী সামরিক ব্যক্তিত্ত্বে পরিনত হন। নাদের স্থানীয় গোত্রপ্রধান বাবা আলী বেগের দুই কন্যাকে বিয়ে করেন।[১]

তথ্যসূত্র[উৎস সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ Ernest Tucker (মার্চ ২৯, ২০০৬)। "Nāder Shāh 1736-47"Encyclopædia Iranica 
  2. ২.০ ২.১ Nader's exact date of birth is unknown but August 6 is the "likeliest" according to Axworthy p.17 (and note) and The Cambridge History of Iran (Vol. 7 p.3); other biographers favour 1688.
  3. ৩.০ ৩.১ http://histories.cambridge.org/extract?id=chol9780521200950_CHOL9780521200950A002
  4. http://www.iranicaonline.org/articles/afsharids-dynasty
  5. Biography of Nadir Shah Afshar "The Persian Napoleon" (1688-1747)
  6. Michael Axworthy's biography of Nader, The Sword of Persia (I.B. Tauris, 2006), pp. 17-19: "His father was of lowly but respectable status, a herdsman of the Afshar tribe ... The Qereqlu Afshars to whom Nader's father belonged were a semi-nomadic Turcoman tribe settled in Greater Khorasan in north-eastern Iran ... The tribes of Khorasan were for the most part ethnically distinct from the Persian-speaking population, speaking Turkic or Kurdish languages. Nader's mother tongue was a dialect of the language group spoken by the Turkic tribes of Iran and Central Asia, and he would have quickly learned Persian, the language of high culture and the cities as he grew older. But the Turkic language was always his preferred everyday speech, unless he was dealing with someone who knew only Persian."
  7. Stephen Erdely and Valentin A. Riasanovski. The Uralic and Altaic Series, Routledge, 1997, ISBN 0-7007-0380-2, p. 102
  8. Cambridge History of Iran Vol.7, p.59
  9. Vali Nasr, "The Shia Revival: How Conflicts within Islam Will Shape the Future" (New York 2006)
  10. "Nadir Shah"। Encyclopædia Britannica Online। সংগৃহীত ২০১০-০৯-২৪ 
  11. Durand, Sir Henry Mortimer (১৯০৮)। Nadir Shah। A. Constable and co. ltd। পৃ: 352। সংগৃহীত ২০১০-০৯-২৪ 
  12. Axworthy p.17
  13. Axworthy p.20

উৎস[উৎস সম্পাদনা]

  • Michael Axworthy, The Sword of Persia: Nader Shah, from Tribal Warrior to Conquering Tyrant Hardcover 348 pages (26 July 2006) Publisher: I.B. Tauris Language: English ISBN 1-85043-706-8
  • The Cambridge History of Iran, Volume 7 (Cambridge University Press, 1968)

আরো পড়ুন[উৎস সম্পাদনা]

  • Lawrence Lockhart Nadir Shah (London, 1938)
  • Ernest Tucker, Nadir Shah's Quest for Legitimacy in Post-Safavid Iran Hardcover 150 pages (4 October 2006) Publisher: University Press of Florida Language: English ISBN 0-8130-2964-3
  • Michael Axworthy, Iran: Empire of the Mind: A History from Zoroaster to the Present Day (Paperback) ISBN 0-14-103629-X Publisher Penguin 6 November 2008

বহিঃসংযোগ[উৎস সম্পাদনা]

পূর্বসূরী
তৃতীয় আব্বাস
পারস্যের শাহ
১৭৩৬–১৭৪৭
উত্তরসূরী
আদিল শাহ আফছার