জাহাঙ্গীর মহল, ওড়ছা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ২৫°২১′০৩″ উত্তর ৭৮°৩৮′৩৯″ পূর্ব / ২৫.৩৫০৬৯৭° উত্তর ৭৮.৬৪৪২১৯° পূর্ব / 25.350697; 78.644219

জাহাঙ্গীর মহল, মুগল স্থাপত্যের সেরা এবং সবচেয়ে প্রাণবন্ত উদাহরণ।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

জাহাঙ্গীর মহল ভারতের মধ্য প্রদেশ রাজ্যের তিকমগড় জেলার ওড়ছাতে অবস্থিত একটি প্রাসাদ ও দুর্গ।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৭শ খ্রিষ্টাব্দে জাহাঙ্গির মহলের স্থাপন হয়। যখন এই অঞ্চলের শাসক বীর সিং দেও মুঘল সম্রাট জাহাঙ্গীরের উষ্ণ সংবর্ধনার প্রতীক হিসেবে এই কাঠামো নির্মাণ করেন। জাহাঙ্গির মহলের প্রবেশদ্বার, ওড়ছা একটি শৈল্পিক ও ঐতিহ্যবাহী গেটওয়ে দ্বারা চিহ্নিত। কাঠামোর সামনের দেয়াল পূর্ব দিকে মুখ করে ফিরোজা টাইলস দিয়ে ঢাকা। জাহাঙ্গির মহল একটি তিন তলা কাঠামো যা স্টাইলিশলি ঝোলানো বারান্দা, পোর্চেস, অ্যাপার্টমেন্ট দ্বারা চিহ্নিত।

জাহাঙ্গীর মহলের গম্বুজ, টিরুদ কাস্টমস অনুযায়ী নির্মিত; এর গ্র্যান্ড আইওয়ানরা যথেষ্ট বড়, যুদ্ধের হাতিদের প্রবেশ করার জন্য, এবং এই দৃশ্যের উপর উঁচু অবস্থান কামান উচ্চতর সীমার উপর দেওয়া।

আকবর তার সবচেয়ে প্রভাবশালী ছেলে প্রিন্স জাহাঙ্গীর, আব্দুল হাসান আসাফ খান এবং আবুল-ফজল ইবনে মুবারক-এর কাছে ওড়ছা শহরকে ধারণ করার জন্য প্রেরণ করেন, যা বিদ্রোহের কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে বিবেচিত হয়। জাহাঙ্গীর ১২০০০-এর একটি বাহিনী নিয়ে এসে অনেক হিংস্র এনকাউন্টার ও যুদ্ধের পর বুন্দেলা রাজত্ব বশীভূত করে। এর বিদ্রোহী শাসক বীর সিং দেও তরুণ জাহাঙ্গিরের কাছে আত্মসমর্পণ করে আকবরের সঙ্গে কোনও জোট ভাঙতে রাজি হননি কখনও। বীর সিং দেও প্রায় ৫০০০ বুন্দেলা পদাতিক এবং এক হাজার অশ্বারোহীর নিয়ন্ত্রণ ছাড়ার পর নিজেকে সামরিকভাবে দুর্বল করে দেয়। বীর সিং দেও পরে ১৬০২ সালে আবুল-ফজল ইবনে মুবারক-কে হত্যা করেন।

১৬৬৫ সালের ৪ অক্টোবর জাহাঙ্গীর মহলের সর্বোচ্চ ছাদ থেকে মুঘল পতাকা উত্তোলন করেন ১৬ বছর বয়সী ঔরঙ্গজেব। ১৬৩৫ সালে মুঘলা যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর দেবী সিংকে নতুন প্রশাসক হিসেবে বসানো হয় এবং বিদ্রোহী ঝুজহার সিং ও মুঘল সম্রাট শাহ জাহানের মৃত্যুর পর বুন্দেলা সার্বভৌম ঘোষিত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kumar, Arjun (২০০৯-০৯-২০)। "Discovery of monuments at Orchha - The Economic Times"Economictimes.indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০১-২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]