মোপলা বিদ্রোহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মোপলা বিদ্রোহ
মূল যুদ্ধ: Khilafat Movement, Mappila riots, Tenancy Movement, Non-co-operation movement
South Malabar 1921.png
South Malabar in 1921; Areas in red show Taluks affected by the rebellion.
তারিখ1921
অবস্থানMalabar
ফলাফল Rebellion suppressed
যুধ্যমান পক্ষ
Hindus, British Raj Mappila Muslims
সেনাধিপতি
Thomas T. S. Hitchcock, A. S. P. Amu Ali Musliyar, Variankunnath Kunjahammad Haji, Sithi Koya Thangal, Chembrassery Thangal, K. Moiteenkutti Haji, Konnara Thangal, Abdu Haji
হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতি
Hindus:
One lakh (100,000) were driven away from their homelands and became displaced. Many were converted to Islam, most of them women and children through murder of the men in the families.[১]
British forces:
43 troops killed, 126 troops wounded.
10,000 killed, 50,000 imprisoned, 10,000 missing

মোপলা বিদ্রোহ ("মালাবার আন্দোলন", মালায়লাম ভাষায় "മാപ്പിള ലഹള" মাপ্পিলা লাহালা নামে ও পরিচিত) ছিল ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদী শাসনের এবং তৎকালীন হিন্দুদের বিরূদ্ধে[২][৩] মুসলমান মোপলা সম্প্রদায়ের কৃষক সংগ্রাম, যা দক্ষিণ ভারতের মালাবার অঞ্চলের মাপিলা মুসলমান এবং মাপ্পিলা বিদ্রোহীদের মধ্যে পুরো ১৯ শতক ধরে এবং ২০ শতকের শুরুর দিক পর্যন্ত চলতে থাকে।[৪]। এই বিদ্রোহের সূত্রপাত ১৯২১ খ্রিষ্টাব্দে।

অ্যানি বেসান্ত জানান যে, মুসলিম মোপলারা অনেক হিন্দুকে জোর করে ধর্মান্তরিত করে এবং অনেক হিন্দুকে হত্যা করে। অনেক হিন্দুকে তাড়িয়ে দেওয়া হয় , এদের মোট সংখ্যা ১০০,০০০।[১]

মোপলা জাতীর ইতিহাস[সম্পাদনা]

সুদূর অতীতে আরব দেশ থেকে দক্ষিণ ভারতের মালাবার অঞ্চলে মোপলারা বসতি স্থাপন করে। তাদের জীবিকা ছিল প্রধানত কৃষিকাজ। জমিদারদের কাছে বর্গাভিত্তিক চাষাবাদ করতো মোপলারা। মহীশুর সুলতানদের শোষণ উতপীড়নের বিরুদ্ধেও মোপলাদের সংগ্রামের কথা 'ডিউক অফ ওয়েলিংটনে'র জীবনী হতে জানা যায়।

বিদ্রোহের কারণ[সম্পাদনা]

কেরল রাজ্যের অধিবাসী দরিদ্র মোপলাদের ওপর শাসকগোষ্ঠীর অত্যাচার ও আক্রমন এই বিদ্রোহের জন্ম দেয়। মোপলারা মূলত সমুদ্র উপকূলবর্তী মালাবার অঞ্চলের কৃষিজীবী। জমিদারের খাজনা, মহাজনের ঋনের অত্যাচার সব মিলিয়ে তীব্র অসন্তোষ দীর্ঘস্থায়ী মোপলা বিদ্রোহের সৃষ্টি করেছিল একাধিক সময়ে (১৮৭৩-১৮৯৬)।

বিদ্রোহের প্রকৃতি[সম্পাদনা]

মালাবারের ওয়ালুভানাদ ও এরনাদ তালুক জুড়ে দশ লক্ষ মোপলা চাষী সশস্ত্র সংগ্রাম শুরু করে। ব্রিটিশ সেনাদের সংগে সম্মুখযুদ্ধে মোপলারা প্রাথমিক ভাবে পরাজিত হয়ে জংগলে আশ্রয় নিলেও বিভিন্ন সময় চোরাগোপ্তা আক্রমণ ও গেরিলা যুদ্ধে আঘাত হানতে থাকে। ১৮৮৫ সাল নাগাদ দ্বিতীয় মোপলা বিদ্রোহ হয় যা দমন করতে ব্রিটিশ সরকার তিন হাজার সৈন্য ও আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র নিয়োগ করে। এই দ্বিতীয় বিদ্রোহ দেড় বছর স্থায়ী হয়। বিদ্রোহীদের পরাজয় ঘটে। তাদের নির্মম ভাবে দমন করা হয় 'পিটুনি কর' বসিয়ে ও দ্বীপান্তর পাঠিয়ে। ১৮৯৪ সালে তৃতীয় মোপলা বিদ্রোহ এবং ১৮৯৬ তে চতুর্থ মোপলা বিদ্রোহ ঘটে। সবকটি বিদ্রোহই কঠোর ও নির্মম হাতে দমন করা হয়। চতুর্থ মোপলা বিদ্রোহে ভীত শাসকগোষ্ঠী জমিদারদের বর্ধিত খাজনা ও মহাজনদের সুদ নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করে, যদিও সামন্ত শ্রেনী তাদের বহু উপায়ে শাসন শোষন অব্যাহত রেখেছিল।[৫]

শেষ বিদ্রোহ[সম্পাদনা]

১৯২১ সালের আগষ্ট মাসে মোপলারা আবার বিদ্রোহী হয় ও স্বাধীন খেলাফত রাজ্য স্থাপন করে। ব্রিটিশ সরকার মালাবারে সৈন্য, ছোটবড়ো ট্যাংক, কামান, বোমা, কয়েকটি যুদ্ধজাহাজ পাঠায়। প্রথমদিকে কয়েকজন অত্যাচারী জমিদার মহাজন জনরোষে প্রাণ হারায়। ব্রিটিশ সরকার একে সাম্প্রদায়িক রূপ দেওয়ার চেষ্টা করে ও কিয়দংশে সফল হয়। দেশের বুদ্ধিজীবী মহলের বৃহৎ অংশ মোপলাদের ওপর ভয়াবহ অত্যাচার প্রসংগে নীরব থাকেন[৬]। বিদ্রোহীরা একমাস যুদ্ধ চালালেও, সরকার মোপলা এলাকাসমূহের উপর আকাশ থেকে বোমা রণতরী ও কামান থেকে নির্বিচারে গোলাবর্ষন করে প্রায় দশ হাজার সাধারণ মানুষ হত্যা করে, তাদের বাড়ীঘর, দোকান পাট ও ক্ষেতখামার ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে। ধরপাকড়, পৈশাচিক অত্যাচার ও নির্যাতনের ফলে বিদ্রোহ ব্যার্থ হয়। প্রায় একশো মোপলা প্রজাকে গ্রেফতার করে একটি মালগাড়ীতে বোঝাই করা হয় এবং দরজা বন্ধ করে তাদেরকে কালিকট প্রেরণ করার সময় হয় ষাটজনের মৃত্যু হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Besant, AnnieThe Future of Indian Politics: A Contribution To The Understanding Of Present-Day Problems P252। Kessinger Publishing, LLC। আইএসবিএন 1428626050They murdered and plundered abundantly, and killed or drove away all Hindus who would not apostatize. Somewhere about a lakh of people were driven from their homes with nothing but the clothes they had on, stripped of everything. Malabar has taught us what Islamic rule still means, and we do not want to see another specimen of the Khilafat Raj in India. 
  2. Pg 179–183, Kerala district gazetteers: Volume 4 Kerala (India), A. Sreedhara Menon, Superintendent of Govt. Presses https://books.google.com/books?id=ZF0bAAAAIAAJ
  3. Asia Times, Staff (২২ নভেম্বর ২০১৬)। "The Moplah Rebellion of 1921"www.atimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  4. Pg 461, Roland Miller, The Encyclopaedia of Islam, Vol VI , Brill 1988
  5. ভারতের বৈপ্লবিক সংগ্রামের ইতিহাস, সুপ্রকাশ রায় (২৯৭০)। মহাবিদ্রোহের পরবর্তী কৃষক বিদ্রোহ। কলকাতা: ডিএনবিএ ব্রাদার্স। পৃষ্ঠা ৮১–৮৫।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  6. মুজফফর আহমেদ, গণবাণী, প্রথম খন্ড, ৮ম সংখ্যা। "সাম্প্রদায়িকতার বিষম পরিনাম"গণশক্তি। সংগ্রহের তারিখ ২১.১২.১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

সিপাহী বিদ্রোহ ১৮৫৭

সাঁওতাল বিদ্রোহ

নীল বিদ্রোহ

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]