টিমোথি হাটন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টিমোথি হাটন
Flickr - Siebbi - Timothy Hutton.jpg
২০০৭ সালে হাটন
স্থানীয় নাম
Timothy Hutton
জন্ম
টিমোথি টার্কিন হাটন

(1960-08-16) ১৬ আগস্ট ১৯৬০ (বয়স ৫৯)
মালিবু, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পেশাঅভিনেতা, পরিচালক
কার্যকাল১৯৬৫–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীডেবরা উইঙ্গার
(বি. ১৯৮৬; বিচ্ছেদ. ১৯৯০)

অরোর গিসকার্ড ডেস্টাইং
(বি. ২০০০; বিচ্ছেদ. ২০০৯)
সন্তান

টিমোথি টার্কিন হাটন (ইংরেজি: Timothy Tarquin Hutton; জন্ম: ১৬ আগস্ট ১৯৬০)[১] হলেন একজন মার্কিন অভিনেতা ও পরিচালক। তিনি একাডেমি পুরস্কারের শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগের সর্বকনিষ্ঠ পুরস্কার গ্রহীতা। তিনি ২০ বছর বয়সে অর্ডিনারি পিপল (১৯৮০) চলচ্চিত্রে কনরাড জ্যারেট চরিত্রে অভিনয় করে এই পুরস্কার অর্জন করেন।[২] এরপর থেকে তিনি নিয়মিত চলচ্চিত্র ও টেলিভিশনে অভিনয় করছেন। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হল নাট্যধর্মী ট্যাপস (১৯৮১), গোয়েন্দা চলচ্চিত্র দ্য ফ্যালকন অ্যান্ড দ্য স্নোম্যান (১৯৮৫) এবং ভীতিপ্রদ দ্য ডার্ক হাফ (১৯৯৩)।

২০০০ থেকে ২০০২ সালের মধ্যে তিনি এঅ্যান্ডই টেলিভিশনের নাট্যধর্মী ধারাবাহিক আ নিরো উল্‌ফ মিস্ট্রি-এ আর্চি গুডউইন চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০০৮ থেকে ২০১২ সালে তিনি টিএনটি টেলিভিশনের নাট্যধর্মী ধারাবাহিক লেভারেজ-এ নাথান ফোর্ড চরিত্রে অভিনয় করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

হাটন ১৯৬০ সালের ১৬ই আগস্ট ক্যালিফোর্নিয়ার মালিবু শহরে জন্মগ্রহণ করেন।[১] তার পিতা জিম হাটন এবং মাতা ম্যারিলিন অ্যাডামস (প্রদত্ত নাম: পুল) ছিলেন একজন শিক্ষক। হাটনের যখন তিন বছর বয়স, তখন তার পিতামাতার বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তার মাতা তাকে ও তার বড় বোন হেইডিকে (জ. ১৯৫৯) নিয়ে বোস্টন চলে যান। হাটনের যখন ১২ বছর বয়স তখন তারা পুনরায় ক্যালিফোর্নিয়ায় ফিরে আসেন।

১৯৭৬ সালে হাটনের যখন ১৬ বছর বয়স, তখন তিনি তার পিতাকে খুঁজে পান এবং তার সাথে লস অ্যাঞ্জেলেস চলে যান। ফেয়ারফ্যাক্স হাই স্কুলের নাথান ডেট্রয়েটের সাথে স্কুলে মঞ্চস্থ গাইজ অ্যান্ড ডলস্‌ মঞ্চনাটকে অভিনয় করার পর তিনি অভিনেতা হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন। তার পিতা মাতা দুজনেই অনুপ্রেরণায় তিনি টেলিভিশনে কাজ শুরু করেন।[৩]

১৯৭৯ সালের ২রা জুন জিম হাটন লস অ্যাঞ্জেলেসে যকৃতের ক্যান্সারে মারা যান। ১৯৮১ সালে হাটন অর্ডিনারি পিপল ছবিতে তার অভিনয়ের জন্য প্রাপ্ত একাডেমি পুরস্কার তার পিতাকে উৎসর্গ করেন।[৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

হাটনের অভিনয় জীবন শুরু হয় কয়েকটি টেলিভিশন চলচ্চিত্রে অভিনয় দিয়ে, তন্মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য হল এবিসি চ্যানেলের ফ্রেন্ডলি ফায়ার (১৯৭৯)। একই বছর তিনি রস হান্টার পরিচালিত এনবিসি চ্যানেলের দ্য বেস্ট প্লেস টু বি টিভি চলচ্চিত্রে ডোনা রিডের চরিত্রের পুত্রের ভূমিকায় অভিনয় করেন। তিনি পরের বছর সিবিএস চ্যানেলের ভালেরি বারতিনেল্লির সাথে ইয়ং লাভ, ফার্স্ট লাভ এবং হ্যাল লিন্ডেনের সাথে ফাদার ফিগার টিভি চলচ্চিত্রে কাজ করেন। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র অর্ডিনারি পিপল (১৯৮০) ছবিতে কনরাড জ্যারেট চরিত্রে অভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার অর্জন করেন। তিনি এই বিভাগে পুরস্কারপ্রাপ্ত সর্বকনিষ্ঠ অভিনেতা। এছাড়া এই কাজের জন্য তিনি বর্ষসেরা নবীন তারকা অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার লাভ করেন। এই ছবির সফলতার পরপরই তিনি এবিসি চ্যানেলের সমাদৃত অ লং ওয়ে হোম (১৯৮১) টিভি চলচ্চিত্রে ব্রেন্ডা ভাক্কারোর সাথে অভিনয় করেন।

হাটনের পরবর্তী চলচ্চিত্র নাট্যধর্মী ট্যাপস (১৯৮১)। এতে তিনি জর্জ সি. স্কট, শন পেনটম ক্রুজের সাথে অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটি সমালোচক ও দর্শকদের কাছে প্রশংসিত হয়। তার পরবর্তী কয়েক বয়ছের চলচ্চিত্রসমূহ, আইসম্যান (১৯৮৪), ড্যানিয়েল (১৯৮৪), টার্ক ওয়ান এইটি টু (১৯৮৫), মেড ইন হেভেন (১৯৮৭) ও কিউঅ্যান্ডএ (১৯৯০) বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়। এই সময়ে তার একমাত্র হিট চলচ্চিত্র ছিল গোয়েন্দাধর্মী দ্য ফ্যালকন অ্যান্ড দ্য স্নোম্যান (১৯৮৫)। এতে তিনি আবার শন পেনের সাথে অভিনয় করেন।

১৯৮৪ সালে তিনি দ্য কারস ব্যান্ডের "দ্য ড্রাইভ" গানের ভিডিও পরিচালনা করেন।

২০০০ থেকে ২০০২ সালের মধ্যে তিনি এঅ্যান্ডই টেলিভিশনের নাট্যধর্মী ধারাবাহিক আ নিরো উল্‌ফ মিস্ট্রি-এ আর্চি গুডউইন চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০০৮ থেকে ২০১২ সালে তিনি টিএনটি টেলিভিশনের নাট্যধর্মী ধারাবাহিক লেভারেজ-এ নাথান ফোর্ড চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০১৪ সালে তিনি জন রিডলি পরিচালিত এবিসি চ্যানেলের নাট্যধর্মী আমেরিকান ক্রাইম ধারাবাহিকে ফেলিসিটি হফম্যানের বিপরীতে অভিনয় করেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Timothy Hutton"বায়োগ্রাফি (ইংরেজি ভাষায়)। ২০ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৮ 
  2. "Oldest/Youngest Acting Nominees and Winners"একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস। মার্চ ১, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১৮ 
  3. কুক, ব্রুস, "Doing What Comes Naturally।" আমেরিকান ফিল্ম, মার্চ ১৯৮১, পৃ. ৬২–৬৫, ৭৪।
  4. "Academy Awards Acceptance Speeches - Timothy Hutton"অস্কারএকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৮ 
  5. আন্দ্রিভা, নেলি (৯ মে ২০১৪)। "ABC Picks Up 'Selfie', 'Forever', Jeff Lowell Comedy, 'Galavant', 'The Whispers', 'How To Get Away With Murder', 'American Crime', 'Black-ish' To Series"ডেডলাইন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]