২০১৮ ভারত ক্রিকেট দলের ইংল্যান্ড সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০১৮ ভারত ক্রিকেট দলের ইংল্যান্ড সফর
Flag of England.svg
ইংল্যান্ড
Flag of India.svg
ভারত
তারিখ ৩ জুলাই – ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
অধিনায়ক জো রুট (টেস্ট)
ইয়ন মর্গ্যান (ওডিআই ও টি২০আই)
বিরাট কোহলি
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ৪–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জস বাটলার (৩৪৯) বিরাট কোহলি (৫৯৩)
সর্বাধিক উইকেট জেমস অ্যান্ডারসন (২৪) ইশান্ত শর্মা (১৮)
সিরিজ সেরা স্যাম কারেন (ইংল্যান্ড), বিরাট কোহলি (ভারত)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ২–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জো রুট (২১৬) বিরাট কোহলি (১৯১)
সর্বাধিক উইকেট আদিল রশিদ (৬) কুলদীপ যাদব (৯)
সিরিজ সেরা জো রুট (ইংল্যান্ড)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ ভারত ২–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জস বাটলার (১১৭) রোহিত শর্মা (১৩৭)
সর্বাধিক উইকেট ডেভিড উইলি (৩) হার্দিক পাণ্ড্য (৬)
সিরিজ সেরা রোহিত শর্মা (ভারত)

ভারত ক্রিকেট দল পাঁচটি টেস্ট ক্রিকেট, তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক এবং তিনটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলার জন্য ইংল্যান্ড সফর করে, যা জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৮-এ অনুষ্ঠিত হয়।

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

টেস্ট ওডিআই টি২০আই
 ইংল্যান্ড  ভারত  ইংল্যান্ড  ভারত  ইংল্যান্ড  ভারত

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টি২০আই[সম্পাদনা]

৩ জুলাই ২০১৮
১৭.৩০ (দিন/রাত)
ইংল্যান্ড 
১৫৯/৮ (২০ ওভার)
 ভারত
১৬৩/২ (১৮.২ ওভার)
জস বাটলার ৬৯ (৪৬)
কুলদীপ যাদব ৫/২৪ (৪ ওভার)
লোকেশ রাহুল ১০১* (৫৪)
আদিল রশিদ ১/২৫ (৪ ওভার)

২য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৬ জুলাই ২০১৮
১৭.৩০ (দিন/রাত)
ভারত 
১৪৮/৫ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৪৯/৫ (১৯.৪ ওভার)
অ্যালেক্স হেলস ৫৮* (৪১)
উমেশ যাদব ২/৩৬ (৪ ওভার)
ইংল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী
সোফিয়া গার্ডেন্স, কার্ডিফ
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: অ্যালেক্স হেলস (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • জ্যাক বল (ইংল্যান্ড) তার টি২০আই অভিষেক হয়।
  • মহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত) তার ৫০০তম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে।

৩য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৮ জুলাই ২০১৮
১৪.০০
ইংল্যান্ড 
১৯৮/৯ (২০ ওভার)
 ভারত
২০১/৩ (১৮.৪ ওভার)
জেসন রয় ৬৭ (৩১)
হার্দিক পাণ্ড্য ৪/৩৮ (৪ ওভার)
রোহিত শর্মা ১০০* (৫৬)
ডেভিড উইলি ১/৩৭ (৩ ওভার)
  • ভারত টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • দীপক চাহার (ভারত) তার টি২০আই অভিষেক হয়।
  • মহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত) প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট এবং টি২০আইতে সামগ্রিকভাবে পঞ্চাশ ক্যাচ নিয়ে প্রথম উইকেট রক্ষক হয়েছেন।
  • রোহিত শর্মা (ভারত) টি-টোয়েন্টিতে ২,০০০ রান করা সামগ্রিক পঞ্চম খেলোয়াড় এবং দ্বিতীয় ভারতীয় হয়েছেন। তিনিও দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হয়েছিলেন তিন সেঞ্চুরি টি২০আইতে।
  • টি২০আইতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এটিই ছিল সর্বোচ্চ সফল রান তাড়া।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১২ জুলাই ২০১৮
১২.৩০
ইংল্যান্ড 
২৬৮ (৪৯.৫ ওভার)
 ভারত
২৬৯/২ (৪০.১ ওভার)
জস বাটলার ৫৩ (৫১)
কুলদীপ যাদব ৬/২৫ (১০ ওভার)
রোহিত শর্মা ১৩৭* (১১৪)
মঈন আলী ১/৬০ (৮.১ ওভার)
  • ভারত টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • সিদ্ধার্থ কল (ভারত) তার ওডিআই অভিষেক হয়।
  • কুলদীপ যাদব (ভারত) ওডিআইতে প্রথম পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১৪ জুলাই ২০১৮
১১:০০
ইংল্যান্ড 
৩২২/৭ (৫০ ওভার)
 ভারত
২৩৬ (৫০ ওভার)
জো রুট ১১৩* (১১৬)
কুলদীপ যাদব ৩/৬৮ (১০ ওভার)
ইংল্যান্ড ৮৬ রানে জয়ী
লর্ডস, লন্ডন
আম্পায়ার: ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) ও অ্যালেক্স ওয়ার্ফ (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: জো রুট (ইংল্যান্ড)

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১৭ জুলাই ২০১৮
১২:৩০
ভারত 
২৫৬/৮ (৫০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
২৬০/২ (৪৪.৩ ওভার)
বিরাট কোহলি ৭১ (৭২)
ডেভিড উইলি ৩/৪০ (৯ ওভার)
জো রুট ১০০* (১২০)
শার্দুল ঠাকুর ১/৫১ (১০ ওভার)
ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে জয়ী
হেডিংলি, লিডস
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: আদিল রশিদ (ইংল্যান্ড)

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

তিনদিনের খেলা: এসেক্স বনাম ভারত[সম্পাদনা]

২৫–২৭ জুলাই ২০১৮
৩৯৫ (১০০.২ ওভার)
দিনেশ কার্তিক ৮২ (৯৫)
পল ওয়াল্টার ৪/১১৩ (২১ ওভার)
৩৫৯/৮ঘো (৯৪ ওভার)
পল ওয়াল্টার ৭৫ (১২৩)
উমেশ যাদব ৪/৩৫ (১৮ ওভার)
৮৯/২ (২১.২ ওভার)
লোকেশ রাহুল ৩৬* (৬৪)
ম্যাট কুইন ১/৫ (৪ ওভার)
খেলা ড্র
কাউন্টি ক্রিকেট গ্রাউন্ড, চেলমসফর্ড
আম্পায়ার: নিক কুক (ইংল্যান্ড) ও রবার্ট হোয়াইট (ইংল্যান্ড)
  • ভারত টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • মূলত ম্যাচটি চার দিনের খেলা হওয়ার কথা ছিল, তবে এর কারণে এটি কমিয়ে তিন দিন করা হয়েছিল ব্রিটিশ দ্বীপপুঞ্জে তাপ তরঙ্গ

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

১–৫ আগস্ট ২০১৮
২৮৭ (৮৯.৪ ওভার)
জো রুট ৮০ (১৫৬)
রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৪/৬২ (২৬ ওভার)
২৭৪ (৭৬ ওভার)
বিরাট কোহলি ১৪৯ (২২৫)
স্যাম কারেন ৪/৭৪ (১৭ ওভার)
১৮০ (৫৩ ওভার)
স্যাম কারেন ৬৩ (৬৫)
ইশান্ত শর্মা ৫/৫১ (১৩ ওভার)
১৬২ (৫৪.২ ওভার)
বিরাট কোহলি ৫১ (৯৩)
বেন স্টোকস ৪/৪০ (১৪.২ ওভার)
ইংল্যান্ড ৩১ রানে জয়ী
এজবাস্টন, বার্মিংহাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও ক্রিস গফানি (নিউজিল্যান্ড)
ম্যাচসেরা: স্যাম কারেন (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • এটি ছিল ইংল্যান্ডের ১,০০০তম টেস্ট ম্যাচ।
  • জো রুট (ইংল্যান্ড) অভিষেকের পর থেকে টেস্টে (৫ বছর, ২৩১ দিন) ৬,০০০ রান করার জন্য সময়ের দিক থেকে দ্রুততম ব্যাটসম্যান হয়েছেন।
  • বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড) টেস্টে তার ১০০ তম উইকেট নিয়েছে।

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

৯–১৩ আগস্ট ২০১৮
১০৭ (৩৫.২ ওভার)
রবিচন্দ্রন অশ্বিন ২৯ (৩৮)
জেমস অ্যান্ডারসন ৫/২০ (১৩.২ ওভার)
৩৯৬/৭ঘো (৮৮.১ ওভার)
ক্রিস উকস ১৩৭* (১৭৭)
হার্দিক পাণ্ড্য ৩/৬৬ (১৭.১ ওভার)
১৩০ (৪৭ ওভার)
রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৩৩* (৪৮)
জেমস অ্যান্ডারসন ৪/২৩ (১২ ওভার)
ইংল্যান্ড একটি ইনিংস এবং ১৫৯ রানে দ্বারা জয়ী
লর্ডস, লন্ডন
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা)
ম্যাচসেরা: ক্রিস উকস (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে প্রথম দিন কোনও খেলা সম্ভব হয়নি।
  • বৃষ্টিপাতের কারণে ২য় দিন মাত্র ৩৫.২ ওভারের খেলা সম্ভব হয়েছিল এবং খেলাটি দিনের প্রথম দিকে শেষ হয়েছিল bad light.
  • অলি পোপ (ইংল্যান্ড) তার টেস্ট অভিষেক হয়।
  • মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) অন-ফিল্ড আম্পায়ার হিসাবে তাঁর ৫০তম টেস্টে দায়িত্ব পান।
  • ক্রিস উকস (ইংল্যান্ড) টেস্টে তার প্রথম সেঞ্চুরি এবং তার ১,০০০তম রান।
  • জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড) টেস্টে লর্ডসে তার ১০০ তম উইকেট নিয়েছিলেন।

৩য় টেস্ট[সম্পাদনা]

১৮–২২ আগস্ট ২০১৮
৩২৯ (৯৪.৫ ওভার)
বিরাট কোহলি ৯৭ (১৫২)
জেমস অ্যান্ডারসন ৩/৬৪ (২৫.৫ ওভার)
১৬১ (৩৮.২ ওভার)
জস বাটলার ৩৯ (৩২)
হার্দিক পাণ্ড্য ৫/২৮ (৬ ওভার)
৩৫২/৭ঘো (১১০ ওভার)
বিরাট কোহলি ১০৩ (১৯৭)
আদিল রশিদ ৩/১০১ (২৭ ওভার)
৩১৭ (১০৪.৫ ওভার)
জস বাটলার ১০৬ (১৭৬)
জসপ্রীত বুমরাহ ৫/৮৫ (২৯ ওভার)
ভারত ২০৩ রানে জয়ী
ট্রেন্ট ব্রিজ, নটিংহ্যাম
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ক্রিস গফানি (নিউজিল্যান্ড)
ম্যাচসেরা: বিরাট কোহলি (ভারত)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ঋষভ পন্ত (ভারত) তার টেস্ট অভিষেক হয়।
  • অজিঙ্কা রাহানে (ভারত) টেস্টে তার ৩,০০০ তম রান।
  • জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড) টেস্টে ভারতের বিপক্ষে তাঁর ১০০ তম উইকেট নিয়েছিলেন।
  • হার্দিক পাণ্ড্য (ভারত) তার প্রথম টেস্টে পাঁচ উইকেট নিয়েছিল।
  • জস বাটলার (ইংল্যান্ড) টেস্টে তার ১,০০০তম রান এবং প্রথম সেঞ্চুরিটি করেছিল।
  • স্টুয়ার্ট ব্রড (ইংল্যান্ড) টেস্টে ৪,০০০ রান সংগ্রহ এবং ৪০০ উইকেট শিকারকারী পঞ্চম খেলোয়াড় হয়ে উঠেছে।

৪র্থ টেস্ট[সম্পাদনা]

৩০ আগস্ট–৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
২৪৬ (৭৬.৪ ওভার)
স্যাম কারেন ৭৮ (১৩৬)
জসপ্রীত বুমরাহ ৩/৪৬ (২০ ওভার)
২৭৩ (৮৪.৫ ওভার)
চেতেশ্বর পুজারা ১৩২* (২৫৭)
মঈন আলী ৫/৬৩ (১৬ ওভার)
২১৭ (৯৬.১ ওভার)
জস বাটলার ৬৯ (১২২)
মোহাম্মদ শামি ৪/৫৭ (১৬ ওভার)
১৮৪ (৬৯.৪ ওভার)
বিরাট কোহলি ৫৮ (১৩০)
মঈন আলী ৪/৭১ (২৬ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬০ রানে জয়ী
রোজ বোল, সাউদাম্পটন
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: মঈন আলী (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) অন-ফিল্ড আম্পায়ার হিসাবে তাঁর ৫০তম টেস্টে দায়িত্ব পান।
  • ইশান্ত শর্মা টেস্টে ২৫০ ও উইকেট টেস্টে ৫০ উইকেট শিকারকারী ভারতের পক্ষে সপ্তম বোলার হয়েছেন।
  • বিরাট কোহলি (ভারত) টেস্টে তার ৬,০০০ তম রান করেছে।

৫ম টেস্ট[সম্পাদনা]

৭–১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
৩৩২ (১২২ ওভার)
জস বাটলার ৮৯ (১৩৩)
রবীন্দ্র জাদেজা ৪/৭৯ (৩০ ওভার)
২৯২ (৯৫ ওভার)
রবীন্দ্র জাদেজা ৮৬* (১৫৬)
মঈন আলী ২/৫০ (১৭ ওভার)
৪২৩/৮ঘো (১১২.৩ ওভার)
অ্যালাস্টেয়ার কুক ১৪৭ (২৮৬)
হনুমা বিহারী ৩/৩৭ (৯.৩ ওভার)
৩৪৫ (৯৪.৩ ওভার)
লোকেশ রাহুল ১৪৯ (২২৪)
জেমস অ্যান্ডারসন ৩/৪৫ (২২.৩ ওভার)
ইংল্যান্ড ১১৮ রানে জয়ী
দি ওভাল, লন্ডন
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
ম্যাচসেরা: অ্যালাস্টেয়ার কুক (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • হানুমা বিহারী (ভারত) তার টেস্ট অভিষেক হয়।
  • অ্যালাস্টেয়ার কুক (ইংল্যান্ড) তাঁর ১৬১ তম এবং শেষ টেস্ট খেলেছেন।
  • অজিঙ্কা রাহানে (ভারত) তাঁর ৫০তম টেস্টে খেলেছেন।
  • ঋষভ পন্ত (ভারত) টেস্টে তার প্রথম সেঞ্চুরিটি করেছিলেন, ইংল্যান্ডের টেস্টে সেঞ্চুরির প্রথম ভারতীয় উইকেটরক্ষক হয়েছিলেন।
  • জেমস অ্যান্ডারসন একজন ফাস্ট বোলার (৫৬৪) দ্বারা সর্বাধিক টেস্ট উইকেটের রেকর্ড তৈরি করেছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]