নটিংহ্যাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নটিংহ্যাম
শহর এবং একত্রিত কর্তৃপক্ষ এলাকা
সিটি অফ নটিংহ্যাম
উপরের বাম থেকে:রবিন হুড, কাউন্সিল হাউস, নেট ট্রাম, কাসল রক ব্রুয়ারি, ট্রেন্ট ব্রিজ, কাসল গেট হাউস, ভোল্টন হল, ইয়ে ওল্ড জেরুজালেমের ট্রিপ এবং নটিংহ্যাম ফরেস্ট সিটি গ্রাউন্ড
নাম: "মিডল্যান্ডসের রানী"[১]
নীতিবাক্য: লাতিন: Vivit post funera virtus[২]
Shown within Nottinghamshire
Shown within Nottinghamshire
নটিংহ্যাম ইংল্যান্ড-এ অবস্থিত
নটিংহ্যাম
নটিংহ্যাম
নটিংহ্যাম যুক্তরাজ্য-এ অবস্থিত
নটিংহ্যাম
নটিংহ্যাম
নটিংহ্যাম ইউরোপ-এ অবস্থিত
নটিংহ্যাম
নটিংহ্যাম
ইংল্যান্ড
স্থানাঙ্ক: ৫২°৫৭′ উত্তর ১°০৯′ পশ্চিম / ৫২.৯৫০° উত্তর ১.১৫০° পশ্চিম / 52.950; -1.150স্থানাঙ্ক: ৫২°৫৭′ উত্তর ১°০৯′ পশ্চিম / ৫২.৯৫০° উত্তর ১.১৫০° পশ্চিম / 52.950; -1.150
সার্বভৌম রাষ্ট্রযুক্তরাজ্য
সংবিধানের দেশইংল্যান্ড
অঞ্চলইস্ট মিডল্যান্ডস
আনুষ্ঠানিক কাউন্টিনটিংহ্যামশায়ার
বসতি স্থাপন৬০০
শহরের স্থিতি১৮৯৭
প্রশাসনিক সদর দপ্তর লক্সলে হাউস
সরকার
 • ধরনএকীভূত কর্তৃপক্ষ
 • পরিচালনা পর্ষদনটিংহ্যাম সিটি কাউন্সিল
 • কাউন্সিলের নেতাক্লার জন কলিনস ( ল্যাব)
 • কার্যনির্বাহী ল্যাব
 •  এমপি
 • লর্ড মেয়রক্লার লিয়াকত আলী
আয়তন
 • শহর২৮.৮১ বর্গমাইল (৭৪.৬১ কিমি)
উচ্চতা[৩]১৫১ ফুট (৪৬ মিটার)
জনসংখ্যা (২০১৫)
 • শহর৩,২১,৫০০
 • মূল শহর৯,১৫,৯৭৭
 • মহানগর১৬,১০,০০০[৪]
 • জাতিতত্ত্ব
(২০১১ সালের আদমশুমারি)[৫]
  • .৫
সময় অঞ্চলগ্রীনিচ মান সময় (ইউটিসি+০)
 • গ্রীষ্মকালীন (দিসস)ব্রিটিশ গ্রীষ্মকালীন সময় (ইউটিসি+১)
পোস্টাল কোড এনজি
এলাকা কোড০১১৫
গ্রিড রেফারেন্স]এসকে৫৭০৪০০
ওএনএস কোড
  • ০০এফওয়াই (ওএনএস)
  • ই০৬০০০০১৮ (জিএসএস)
আইএসও ৩১৬৬-২জিবি-এনজিএম
এনইউটিএসইউকেএফ১৪
ওয়েবসাইটwww.nottinghamcity.gov.uk

নটিংহ্যাম (/ˈnɒtɪŋəm/ (এই শব্দ সম্পর্কেশুনুন) NOT-ing-əm) ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামশায়ারের একটি শহর এবং ঐকিক কর্তৃপক্ষ এলাকা। শহরটি লন্ডনের ১২৮ মাইল (২০৬ কিমি) উত্তরে, বার্মিংহামের ৪৫ মাইল (৭২ কিমি) উত্তর-পূর্বে এবং ম্যানচেস্টারের ৫৬ মাইল (৯০ কিলোমিটার) দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ইস্ট মিডল্যান্ডসে অবস্থিত।

নটিংহ্যামের রবিন হুডের কিংবদন্তি এবং লেইস তৈরি, সাইকেল (উল্লেখযোগ্যভাবে রালেঘ বাইক) এবং তামাক শিল্পের সংযোগ রয়েছে। ১৮৯৭ সালে রানী ভিক্টোরিয়ার ডায়মন্ড জুবিলি উদযাপনের অংশ হিসেবে এটির শহের সনন্দ দেওয়া হয়। নটিংহ্যাম একটি পর্যটন গন্তব্য; ২০১১ সালে, দর্শকরা ১.৫ বিলিয়ন পাউন্ড ব্যয় করেছিল এখানে, যা ইংল্যান্ডের ১১১ পরিসংখ্যান অঞ্চলে মধ্যে তেরো তম সর্বোচ্চ পরিমাণ।[৬]

২০১৭ সালে, নটিংহ্যামের আনুমানিক জনসংখ্যা ছিল ৩,২৯,২০০ জন।[৭] শহরটির কেন্দ্রীয় অংশের জনসংখ্যা তার আঞ্চলিক প্রতিপক্ষের তুলনায় যথোপযুক্ত, যা তার ঐতিহাসিক এবং শক্তভাবে আঁকা শহর সীমানার জন্য দায়ী।[৮] বৃহত্তর এলাকা, যার মধ্যে শহরগুলির উপকূলে রয়েছে, তার জনসংখ্যা ৭,৬৮,৬৩৮ জন।[৯] এটি ইস্ট মিডল্যান্ডসের বৃহত্তম শহর এবং মিডল্যান্ডসের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর। এর কার্যকরী নগর এলাকাও[১০] ইস্ট মিডল্যান্ডসের বৃহত্তম, যার জনসংখ্যা ৯,১২,৪৮২ জন।[১১] নটিংহ্যাম/ডার্বি মহানগর এলাকার জনসংখ্যা ১৬,১০,০০০ জন।[৪] $৫০.৯ বিলিয়ন (২০১৪) এর জিডিপি-এর সঙ্গে মহানগরটির অর্থনীতি যুক্তরাজ্যের মধ্যে সপ্তম বৃহত্তম।[১২] গ্লোবালাইজেশন এবং ওয়ার্ল্ড সিটি রিসার্চ নেটওয়ার্ক দ্বারা এই শহরটিকে ইস্ট মিডল্যান্ডসের প্রথম পর্যাপ্ত স্তরের বিশ্ব শহর হিসাবে চিহ্নিত।[১৩]

নটিংহ্যামের একটি পুরস্কার বিজয়ী গণপরিবহন ব্যবস্থা রয়েছে,[১৪] ইংল্যান্ডে সর্বাধিক সর্বজনীন মালিকানাধীন বাস নেটওয়ার্ক রয়েছে[১৫] এবং এখানে নটিংহ্যাম রেলওয়ে স্টেশন এবং আধুনিক নটিংহ্যাম এক্সপ্রেস ট্রানজিট ট্রাম সিস্টেম দ্বারাও যাত্রী পরিষেবা প্রদান করা হয়।

এটি একটি প্রধান ক্রীড়া কেন্দ্র, এবং অক্টোবর ২০১৫ সালে, 'ইংলিশ স্পোর্টস হোম' নামে পরিচিত ছিল শহরটি।[১৬] ন্যাশনাল আইস সেন্টার, হলম পিয়ারপ্রন্ট ন্যাশনাল ওয়াটারসপোর্টস সেন্টার, এবং ট্রেন্ট ব্রিজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট গ্রাউন্ডটি শহরে বা শহরের আশেপাশে অবস্থিত। শহরটি দুটি পেশাদার লিগ ফুটবল দলের আবাসস্থল; ১৯৭৯ এবং ১৯৮০ সালে ব্রায়ান ক্লাফ এবং পিটার টেলরের অধীনে ইউইএফএ ইউরোপিয়ান কাপের বিখ্যাত দুইবারের বিজয়ী নোটিশ কাউন্টি এবং নটিংহ্যাম ফরেস্ট বিশ্বের প্রাচীনতম পেশাদার লিগ ক্লাব। এই শহরে পেশাদার রাগবি, আইস হকি এবং ক্রিকেট দল রয়েছে এবং এটিপি ও ডাব্লুটিএ ট্যুরের জন্য আন্তর্জাতিক টেনিস প্রতিযোগিতা এগন নটিংহ্যাম ওপেন রয়েছে। যুক্তরাজ্যের প্রথম ফুটবলের শহর হিসেবে নটিংহ্যামের নামকরণের এক বছর পর এই পুরস্কারটি এসেছিল।[১৭]

১১ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে, ইউনেস্কোর দ্বারা নটিংহ্যামকে "সাহিত্যের শহর" শিরোনাম প্রদান করা হয় ডাবলিন, এডিনবার্গ, মেলবোর্ন এবং প্রাগ শহরের সঙ্গে, যা বিশ্বের কিছু মুষ্টিমেয় শহর পেয়েছে।[১৮] এই শিরোনামটি নটিংহ্যামের সাহিত্যিক ঐতিহ্যকে প্রতিফলিত করে, যা লর্ড বায়রন, ডি এইচ লরেন্স এবং অ্যালান সিলিটো'সহ এই শহরটির সাথে সাথে সমসাময়িক সাহিত্য সম্প্রদায়, একটি প্রকাশনা শিল্প এবং একটি কবিতার দৃশ্যের সাথে যুক্ত।[১৯]

শহরে দুটি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে- নটিংহ্যাম ট্রেন্ট ইউনিভার্সিটি এবং নটিংহ্যাম ইউনিভার্সিটি। এছাড়াও আইন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ক্যাম্পাস এই শহরে রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Nottingham, "The Queen City of the Midlands," The official guide, Sixth Edition (1927)"। Nottinghamshire History। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০১৫ 
  2. "A brief A-Z of Nottingham"। Atschool.eduweb.co.uk। ১৬ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০১০ 
  3. "Population of Nottingham"। Mongabay.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৭ 
  4. "British Urban Pattern: Population Data (Epson)" (PDF)Espon.eu। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৭ 
  5. "Key Statistics for Local Authorities"Ons.gov.uk। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ 
  6. "Release Edition Reference Tables"। ONS। ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১১ আগস্ট ২০১৪ 
  7. "ONS Mid-Year Population Estimates 2017"Nottingham Insight। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১৯ 
  8. "Urban Audit - City Profiles - Nottingham"। Urban Audit। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  9. "UNITED KINGDOM: Urban Areas in England"City Population। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১৯ 
  10. "Archive:European cities – the EU-OECD functional urban area definition"Eurostat Statistics Explained। Eurostat। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  11. "Population on 1 January by age groups and sex - functional urban areas"Eurostat - Data Explorer। Eurostat। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  12. "Global city GDP 2014". Brookings Institution. Retrieved 9 April 2015.
  13. "Global city GDP 2014". Brookings Institution. Retrieved 9 April 2015.
  14. "Global city GDP 2014". Brookings Institution. Retrieved 9 April 2015.
  15. "Our Companies – NCT"। Transdev UK। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ 
  16. "Nottingham named as 'Home of English Sport'"BBC News 
  17. "Nottingham chosen as first City of Football"BBC News 
  18. Tom Norton (১১ ডিসেম্বর ২০১৫)। "Nottingham named UNESCO City of Literature"Nottingham Post। ২২ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ জানুয়ারি ২০১৬ 
  19. "Welcome to Nottingham UNESCO City of Literature"Nottingham UNESCO City of Literature। ৫ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]