উইকিপিডিয়া:নির্ভরযোগ্য উৎস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

এই নির্দেশাবলী উইকিপিডিয়ার উৎসগুলোর নির্ভরযোগ্যতা একটি নির্দিষ্ট আলোচনা ।এই মূলনীতি অনুযায়ী উইকিপিডিয়ার সব প্রবন্ধ নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে লিখতে হবে।উইকিপিডিয়া:যাচাইযোগ্যতা, উইকিপিডিয়া:জীবিত ব্যক্তির জীবনীউইকিপিডিয়া:কোন মৌলিক গবেষণা নয়-এর সাথে নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি হল উইকিপিডিয়ার তিনটি প্রধান তথ্য সংক্রান্ত নিয়ম।কোনও মূল গবেষণা নয় এবং জীবিত ব্যক্তির জীবনী রচনার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সীমাবদ্ধতা আছে। উইকিপিডিয়া নিবন্ধে সমস্ত প্রধান এবং গুরুত্বপূর্ণ সংখ্যা লঘুর মতামত প্রতিফলিত হওয়া উচিত যা নির্ভরযোগ্য উৎস হিসাবে প্রকাশিত হয়েছে। এর জন্য দেখুন উইকিপিডিয়া:নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি

উইকিপিডিয়া নিবন্ধ অবশ্যই নির্ভরযোগ্য তৃতীয় পক্ষের প্রকাশিত উৎস হতে হবে।নির্ভরযোগ্য উৎস হল বিশ্বাসযোগ্য প্রকাশিত বিষয়বস্তু যা নির্ভরযোগ্য প্রকাশনা পদ্ধতির অঙ্গ; তাদের লেখকগণকে সেই বিষয় সম্পর্কে সাধারণত আস্থাভাজন ও আধিকারিক হিসেবে গণ্য করা হয়।রচনার কোনো অংশের বর্ননার প্রসঙ্গে কিভাবে নির্ভরযোগ্য একটি উৎ‍স নির্নিত হয়। তা অভিজ্ঞতা ও অনুশীলনের পর প্রতিষ্ঠিত পদ্ধতি হিসাবে গ্রহন করা হয়। একটি নিবন্ধের ক্ষেত্রে অনেক ব্যবহারকারী প্রকৃত ঘটনা নিরিক্ষণ করে,আইনি বিষয়কে বিশ্লেষণ করে,লেখাকে অবক্ষেপন করে আরও বেশি নির্ভরযোগ্য প্রকাশনা নিযুক্ত করতে থাকবে। উৎসের তথ্য সরাসরিভাবে সমর্থন করা উচিত যেমনভাবে কোনো নিবন্ধে উপস্থাপন করা হয়েছে এবং এর কোনো দাবীকে উপযুক্ত ভাবে প্রতিস্থাপিত করা উচিত। যদি কোনো উইকিপিডিয়ার নিবন্ধ কোনও নির্ভরযোগ্য উৎস না থাকে তবে, উইকিপিডিয়াতে সেই নিবন্ধ থাকা উচিত নয়।নির্দিষ্ট উৎসের নির্ভরযোগ্যতার সম্বন্ধে অনুসন্ধানের জন্য উইকিপিডিয়া আলোচনা:নির্ভরযোগ্য উৎস দেখুন।

ভূমিকা[সম্পাদনা]

নিবন্ধের তথ্য পরীক্ষা এবং নির্ভুলতা নিশ্চিতকরণের জন্য একটি খ্যাত ও নির্ভরযোগ্য, তৃতীয়-পক্ষের, ও প্রকাশিত উৎস প্রদান করা উচিত। অর্থাৎ, এর মাধ্যমে আমরা নিবন্ধে নির্ভরযোগ্য গ্রন্থকারকের বা লেখকের মতামত কেবল প্রতিফলিত করব, কোনো উইকিপিডিয়ানের ব্যাক্তিগত মতামত নয়। নিম্নে নির্দিষ্ট উদাহরণ সহযোগে নির্ভরযোগ্য উৎস এবং উৎ‍স নির্ভরযোগ্যতা যথাসম্ভব বিভিন্ন বিষয়ের আলোচনা হয়েছে। উপযুক্ত উৎস সম্পর্কে সচেতন থাকা, আমাদের সাধারণ জ্ঞান এবং সম্পাদকীয় বিচার পদ্ধতির একটি অপরিহার্য অংশ হিসাবে গণ্য করা হয়।

‘প্রকাশিত’ শব্দটি দ্বারা প্রচলিত অর্থে কাগজে মুদ্রিত প্রকাশনা, এবং ইন্টারনেটে প্রকাশিত কোনো লেখাকে বোঝানো হয়। এছাড়া অডিও, ভিডিও, এবং অন্যান্য মাল্টিমিডিয়া প্রকাশনা, যা গ্রহণযোগ্য তৃতীয়-পক্ষীয় উৎস থেকে প্রকাশিত বা প্রচারিত হয়, এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় শর্তসমূহ পূরণ করে তাও গ্রহণযোগ্য ও নির্ভরযোগ্য উৎস হিসেবে বিবেচিত হবে। লিখিত উৎসের মতো মিডিয়া (চিত্র, ভিডিও ইত্যাদি) উৎসও নির্ভরযোগ্য তৃতীয়-পক্ষীয় উৎস দ্বারা নির্মিত বা প্রচারিত, এবং যথাযথভাবে উৎস নির্দেশ করতে হবে। সেই সাথে মিডিয়ার একটি আর্কাইভড কপিও থাকা চাই। এটি প্রয়োজনীয় কিন্তু এটি নিশ্চিত করা চাই যে, এই আর্কাইভড কপিটি ইন্টারনেটের মাধ্যমে যাচাই করা সম্ভব।

উৎসের প্রকারভেদ[সম্পাদনা]

উইকিপিডিয়ার অনেক নিবন্ধ সূত্র হিসেবে বিভিন্ন জ্ঞানগর্ভ প্রকাশনার ওপর নির্ভর করে লিখিত। প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রাতিষ্ঠানিক ও পিয়ার রিভিউড প্রকাশনাগুলো সচারচর সূত্র হিসেবে সবচেয়ে বেশি নির্ভরযোগ্য। তাছাড়া কিছু নির্ভরযোগ্য জ্ঞানগর্ভ বা পাণ্ডিত্যপূর্ণ প্রকাশনাও মেয়াদউত্তীর্ণ হতে পারে, বা বিপরীত কোনো তত্ত্বের বা বিতর্কের কারণে সাম্প্রতিক কোনো গবেষণা দ্বারা প্রতিস্থাপিত হতে পারে। এসকল ক্ষেত্রে তাঁদের নিজেদের ঐকমত্যের সিদ্ধান্ত সূত্র হিসেবে দেওয়ার চেষ্টা করুন। কিছু জ্ঞানগর্ভ নিবন্ধের ক্ষেত্রেও নির্ভরযোগ্য অপ্রাতিষ্ঠানিক সূত্র নিবন্ধে ব্যবহৃত হতে পারে। নির্দিষ্ট করে উল্লেখ করতে গেলে এগুলো হচ্ছে মানসম্পন্ন মূলধারার প্রকাশনাগুলো। কোনো একটি ক্ষেত্রে কোন সূত্রটি যথাযথ তা নির্ভর করে ঐ সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ওপর। কোথাও সূত্র দ্বিমত পোষণ করলে তা লিখিত আকারে দিতে হবে।

জ্ঞানগর্ভ বা পাণ্ডিত্যপূর্ণ প্রকাশনা[সম্পাদনা]

  • নিবন্ধসমূহ সম্ভব হলে মাধ্যমিক সূত্রের ওপর ভিত্তি করে লিখিত হতে হবে। উইকিপিডিয়ানদের অবশ্যই কোনো বিষয়ের প্রাথমিক উৎসের ওপর নির্ভর করা চলবে না, বা প্রাথমিক সূত্রের ওপর ভিত্তি করে লেখা চলবে না। বিস্তারিত জানতে দেখুন উইকিপিডিয়া:কোনো মৌলিক গবেষণা নয়
  • যেসকল বিষয়বস্তু নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞদের দ্বারা সমর্থিত তা গ্রহণযোগ্য উৎস হিসেবে বিবেচিত হয়। এর অর্থ হচ্ছে গ্রহণযোগ্য পিয়ার-রিভিউড সূত্রের মাধ্যমে, বা যথেষ্ট পরিচিত কোনো প্রাতিষ্ঠানিক প্রকাশনায় প্রকাশিত সূত্রসমূহ নির্ভরযোগ্য সূত্র হিসেবে বিবেচিত।
  • Finished Ph.D. dissertations, which are publicly available, are considered publications by scholars and are routinely cited in footnotes. They have been vetted by the scholarly community; most are available via interlibrary loan. UMI has published two million dissertations since 1940. Dissertations in progress are not vetted and are not regarded as published. They are not reliable sources as a rule.
  • The scholarly acceptance of a source can be verified by confirming that the source has entered mainstream academic discourse, for example by checking the scholarly citations it has received in citation indexes. A corollary is that journals not included in a citation index, especially in fields well covered by such indexes, should be used with caution, though whether it is appropriate to use will depend on the context.
  • Isolated studies are usually considered tentative and may change in the light of further academic research. The reliability of a single study depends on the field. Studies relating to complex and abstruse fields, such as medicine, are less definitive. Avoid undue weight when using single studies in such fields. Meta-analyses, textbooks, and scholarly review articles are preferred when available, so as to provide proper context.

সংবাদ সংস্থা[সম্পাদনা]

মানসম্পন্ন ও মূলধারার সংবাদ সংস্থাগুলো থেকে আসা বিষয়বস্তু নির্ভরযোগ্য, এবং এগুলো থেকে আপনাকে সূত্র উল্লেখ করতে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

  • কোনো প্রাতিষ্ঠানিক বিষয়ের ওপর জ্ঞানগর্ভ, এবং জ্ঞানগর্ভ ছাড়াও মানসম্পন্ন সূত্রও গ্রহণযোগ্য। এটি সম্পূর্ণ বিষয়ের ওপর নির্ভর করে।
  • যখন কোনো গুজবের ব্যাপারে তথ্য দিচ্ছেন যার সংবাদ হিসেবে মূল্য আছে, তখন অবশ্যই তা নিরপেক্ষ উৎসের দ্বারা যাচাইকৃত হবার পর দিন। উইকিপিডিয়া একটি বিশ্বকোষ এবং এটি যাচাইযোগ্য তথ্যই শুধু গ্রহণ করে। উইকিপিডিয়া কোনো কুৎসা বা গুজব রটানোর স্থান নয়।
  • কিছু সংবাদ মাধ্যম উইকিপিডিয়ার নিবন্ধকে তাঁদের প্রতিবেদনের তথ্যসূত্র হিসেবে উল্লেখ করতে পারে। তাই সার্কুলার সূত্রীকরণের (circular sourcing) ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।[১]

স্বপ্রকাশিত উৎস[সম্পাদনা]

চরমপন্থী ও প্রান্তীক উৎস[সম্পাদনা]

Questionable sources are those with a poor reputation for checking the facts, or with no editorial oversight. Such sources include websites and publications expressing views that are widely acknowledged as extremist, or promotional in nature, or which rely heavily on rumors and personal opinions. Questionable sources should only be used as sources of material on themselves, especially in articles about themselves. Questionable sources are generally unsuitable as a basis for citing contentious claims about third parties.

Self-published sources (online and paper)[সম্পাদনা]

Anyone can create a website or pay to have a book published, then claim to be an expert in a certain field. For that reason self-published media—whether books, newsletters, personal websites, open wikis, blogs, personal pages on social networking sites, Internet forum postings, or tweets—are largely not acceptable.

"Blogs" in this context refers to personal and group blogs. Some newspapers host interactive columns that they call blogs, and these may be acceptable as sources so long as the writers are professional journalists or are professionals in the field on which they write and the blog is subject to the newspaper's full editorial control. Posts left by readers may never be used as sources.

Self-published material may, in some circumstances, be acceptable when produced by an established expert on the topic of the article whose work in the relevant field has previously been published by reliable third-party publications. Self-published sources should never be used as third-party sources about living persons, even if the author is a well-known professional researcher or writer; see WP:BLP#Reliable sources.

Self-published and questionable sources as sources on themselves[সম্পাদনা]

Self-published or questionable sources may be used as sources of information about themselves, especially in articles about themselves, without the requirement that they be published experts in the field, so long as:

  1. the material is not unduly self-serving;
  2. it does not involve claims about third parties;
  3. it does not involve claims about events not directly related to the subject;
  4. there is no reasonable doubt as to its authenticity;
  5. the article is not based primarily on such sources.

Reliability in specific contexts[সম্পাদনা]

Biographies of living persons[সম্পাদনা]

Editors must take particular care when writing biographical material about living persons, for legal reasons and in order to be fair. Remove unsourced or poorly sourced contentious material immediately if it is about a living person, and do not move it to the talk page. This applies to any material related to living persons on any page in any namespace, not just article space.

Primary, secondary, and tertiary sources[সম্পাদনা]

Wikipedia articles should be based mainly on reliable secondary sources.

Tertiary sources such as compendia, encyclopedias, textbooks, and other summarizing sources may be used to give overviews or summaries, but should not be used in place of secondary sources for detailed discussion. Wikipedia articles are tertiary sources and should not be used as sources within articles, nor should any mirrors or forks of such articles be accepted as reliable sources for any purpose.

Primary sources, on the other hand, are often difficult to use appropriately. While they can be reliable in many situations, they must be used with caution in order to avoid original research.

Quotations[সম্পাদনা]

The accuracy of quoted material is paramount; the accuracy of quotations from living persons is especially sensitive. Quotations should be cited to the original source if possible; when secondary sources are used, those that cite the original source should be preferred over those that don't. Partisan secondary sources should be viewed with suspicion if they lack neutral corroboration.

It is important to make clear the actual source of the text as it appears in the article.

Academic consensus[সম্পাদনা]

The statement that all or most scientists or scholars hold a certain view requires reliable sourcing. Without a reliable source that claims a consensus exists, individual opinions should be identified as those of particular, named sources. Editors should avoid original research especially with regard to making blanket statements based on novel syntheses of disparate material. The reliable source needs to claim there is a consensus, rather than the Wikipedia editor. For example, even if every scholarly reliable source located states that the sky is blue, it would be improper synthesis to write that there is a scientific consensus that the sky is blue, unless sources cited also make such a claim.

Usage by other sources[সম্পাদনা]

How accepted, high-quality reliable sources use a given source provides evidence, positive or negative, for its reliability and reputation. The more widespread and consistent this use is, the stronger the evidence. For example, widespread citation without comment for facts is evidence of a source's reputation and reliability for similar facts, while widespread doubts about reliability weigh against it. If outside citation is the main indicator of reliability, particular care should be taken to adhere to other guidelines and policies, and to not represent unduly contentious or minority claims. The goal is to reflect established views of sources as far as we can determine them.

Statements of opinion[সম্পাদনা]

Some sources may be considered reliable for statements as to their author's opinion, but not for statements of fact without attribution. A prime example of this are Op-ed columns in mainstream newspapers. These are reliable sources, depending on context, but when using them, it is better to attribute the material in the text to the author.

Note that otherwise reliable news sources—for example, the website of a major news organization—that publish in a "blog" style format for some or all of its content may be as reliable as if published in a more "traditional" 20th-century format.

There is an important exception to sourcing statements of fact or opinion: Never use self-published books, zines, websites, webforums, blogs and tweets as a source for material about a living person, unless written or published by the subject of the biographical material. "Self-published blogs" in this context refers to personal and group blogs; see WP:BLP#Sources and WP:BLP#Using the subject as a self-published source.

Other examples[সম্পাদনা]

See উইকিপিডিয়া:Reliable source examples for examples of the use of statistical data, advice by subject area (including history, physical sciences, mathematics and medicine, law, business and commerce, popular culture and fiction), and the use of electronic or online sources.


আরও দেখুন[সম্পাদনা]


পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. A variety of these incidents have been documented by Private Eye and others and discussed on Wikipedia, where incorrect details from articles added as vandalism or otherwise have appeared in newspapers

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]