দাউদ মালান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দাউদ মালান
Dawid Malan.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামদাউদ জোহানেস মালান
জন্ম (1987-09-03) ৩ সেপ্টেম্বর ১৯৮৭ (বয়স ৩২)
রোহাম্পটন, ইংল্যান্ড
ডাকনামএসি
উচ্চতা৬ ফুট ০ ইঞ্চি (১.৮৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটম্যান)
সম্পর্কসিনিয়র দাউদ মালান (পিতা)
কার্ল মালান (ভাই)
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৫–২০০৬বোল্যান্ড
২০০৬–বর্তমানমিডলসেক্স
২০১৬–বর্তমানপেশোয়ার জালমি
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ১২৯ ১২৫ ১১৫
রানের সংখ্যা ৭,৫২২ ৪,১৩৩ ২,৯৬৫
ব্যাটিং গড় ৩৭.৭৯ ৩৯.৭৪ ৩৪.৪৭
১০০/৫০ ১৬/৩৭ ৭/২১ ২/১৫
সর্বোচ্চ রান ১৮২* ১৫৬* ১১৫*
বল করেছে ২,৯৫৯ ১,০৪৯ ৩৭০
উইকেট ৪৪ ৩২ ১৯
বোলিং গড় ৪২.৬৩ ৩১.৩১ ২৩.৫৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৫/৬১ ৪/২৫ ২/১০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪৭/– ৪৩/– ৩৯/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ.কম, ২০ জুলাই ২০১৬

দাউদ জোহানেস মালান (ইংরেজি: Dawid Malan; জন্ম: ৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৮৭) ইনার লন্ডনের রোহাম্পটন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট ইংরেজ ক্রিকেটার। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে মিডলসেক্সের প্রতিনিধিত্ব করছেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলে থাকেন। এছাড়াও, ডানহাতে লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন দাউদ মালান

একই নামে পরিচিত তার বাবা দাউদ মালানও ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স বি, নর্দার্ন ট্রান্সভাল বি এবং টেডিংটনের পক্ষে ডানহাতি ব্যাটসম্যান ও ডানহাতি ফাস্ট বোলাররূপে খেলেছিলেন।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০৫-০৬ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেটে বোল্যান্ডের পক্ষে খেলেছেন। ২০০৬ সালে এমসিসি ইয়ং ক্রিকেটার্সেরও সদস্য ছিলেন তিনি। ৭ জুলাই, ২০০৬ তারিখে মিডলসেক্সের পক্ষে যোগ দেন। একইদিনে ওভালে সারে দলের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ কাপে প্রথম একাদশের সদস্যরূপে খেলেন।

২০০৭ সালে দ্বিতীয় একাদশ চ্যাম্পিয়নশীপে ৫১.০০ গড়ে ৯৬৯ রান তুলে শীর্ষস্থানীয় রান সংগ্রাহক হন।[২] জুন, ২০০৮ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে মিডলসেক্সের পক্ষে অভিষেক ঘটে। খেলায় তিনি অপরাজিত ১৩২ রান তোলেন।[৩] ৮ জুলাই, ২০০৮ তারিখে টুয়েন্টি২০ কাপের ইতিহাসে ২৪তম সেঞ্চুরি করেন। কোয়ার্টার ফাইনালে ল্যাঙ্কাশায়ার লাইটনিং দলের বিপক্ষে ৫৪ বলে ১০৩ রান তুলেন তিনি।

১৩ জুন, ২০১৬ তারিখে সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একমাত্র টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষিক্ত টাইমল মিলসের সাথে তাকেও দলের সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছিল।[৪] মিলস খেললেও তিনি খেলার সুযোগ পাননি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]