২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
টুর্নামেন্টের বিবরণ
তারিখসমূহ১৫ জুন, ২০১১ - ২০ নভেম্বর, ২০১৩
দলসমূহ২০৩ (৬টি কনফেডারেশন থেকে)
প্রতিযোগিতার পরিসংখ্যান
ম্যাচ খেলেছে৮২০
গোল সংখ্যা২৩০৩ (ম্যাচ প্রতি ২.৮১টি)
শীর্ষ গোলদাতাবেলিজ ডিওন ম্যাককলে
নেদারল্যান্ডস রবিন ফন পার্সি
উরুগুয়ে লুইজ সুয়ারেজ
(১১ গোল)

২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব ছয়টি ফিফা কনফেডারেশন কর্তৃক আয়োজিত ফিফা বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতার সিরিজ। ৩২টি দল ২০১৪ সালে ব্রাজিলে অনুষ্ঠিতব্য ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলে অংশগ্রহণ করবে। তন্মধ্যে, স্বাগতিক ব্রাজিল ফুটবল দলের জন্য একটি স্থান সংরক্ষিত রয়েছে। বাদবাকী ৩১ দলের স্থান নিশ্চিতকরণে বাছাইপর্বের আয়োজন করা হয়। ছয়টি ফিফা কনফেডারেশনের ২০৭টি দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। ঐ কনফেডারশন থেকে সর্বাধিক সফল দলগুলোকে নির্ধারণ করা হয়েছে। খুবই সীমিত পরিসরে বাছাইপর্ব সম্পন্নের লক্ষ্যে আন্তঃকনফেডারেশনের মধ্যে স্থান-নির্ধারণী খেলার আয়োজন করতে হয়েছে। ভুটান, ব্রুনেই, গুয়ামমৌরতানিয়া বাছাইপর্বে অংশগ্রহণ করেনি। দক্ষিণ সুদান ফিফায় যোগদান করলেও অংশ নেয়নি। বাছাইপর্বে সর্বমোট ৮২০টি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ৮২৪টি খেলা আয়োজনের কথা থাকলেও বাহামামৌরিতাস নাম প্রত্যাহার করায় ৮২০টি খেলা আয়োজন করতে হয়েছে।[১][২][৩][৪] ১৫ জুন, ২০১১ তারিখে মন্তেসেরাতবেলাইজের মধ্যকার খেলার মাধ্যমে ২০১৪ সালের ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের উদ্বোধন ঘটে। বেলিজিয়ান স্ট্রাইকার ডিওন ম্যাককলে প্রথম গোলটি করেন। ২০ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখে জর্দানকে হারিয়ে উরুগুয়ে বিশ্বকাপের চূড়ান্তপর্বে অংশ নেয়ার যোগ্যতা অর্জন করে। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ ২৪ দলের মধ্যে ২৩টি দলই চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিচ্ছে।[৫]

উত্তীর্ণ দল[সম্পাদনা]

  বিশ্বকাপের চূড়ান্তপর্বে অংশগ্রহণকারী দেশ
  চূড়ান্তপর্বে অংশগ্রহণ করতে ব্যর্থ দেশ
  বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেনি
  ফিফা সদস্য বহির্ভূত দেশ
দল যোগ্যতার
ধরন
যোগ্যতা
অর্জনের তারিখ
চূড়ান্তপর্বে
অংশগ্রহণ
পূর্বতন
অংশগ্রহণ
পূর্বতন
সেরা প্রদর্শন
ফিফা
র‌্যাঙ্কিং
[nb ১]
 ব্রাজিল CONMEBOL স্বাগতিক ৩০ অক্টোবর, ২০০৭ ২০বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৫৮, ১৯৬২, ১৯৭০, ১৯৯৪, ২০০২) ১১
 জাপান এএফসি ৪র্থ রাউন্ড গ্রুপ বি 1st বিজয়ী ৪ জুন, ২০১৩ 0৫বার ২০১০ ১৬-দলীয় রাউন্ড (২০০২, ২০১০) ৪৪
 অস্ট্রেলিয়া এএফসি ৪র্থ রাউন্ড গ্রুপ বি 2nd রানার্স-আপ ১৮ জুন, ২০১৩ 0৪বার ২০১০ ১৬-দলীয় রাউন্ড (২০০৬) ৫৭
 ইরান এএফসি ৪র্থ রাউন্ড গ্রুপ এ 1st বিজয়ী ১৮ জুন, ২০১৩ 0৪বার ২০০৬ গ্রুপ পর্ব (১৯৭৮, ১৯৯৮, ২০০৬) ৪৯
 দক্ষিণ কোরিয়া এএফসি ৪র্থ রাউন্ড গ্রুপ এ 2nd রানার্স-আপ ১৮ জুন, ২০১৩ 0৯বার ২০১০ ৪র্থ স্থান (২০০২) ৫৬
 নেদারল্যান্ডস উয়েফা গ্রুপ ডি বিজয়ী ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ১০বার ২০১০ রানার্স-আপ (১৯৭৪, ১৯৭৮, ২০১০) 0
 ইতালি উয়েফা গ্রুপ বি বিজয়ী ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ১৮বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৩৪, ১৯৩৮, ১৯৮২, ২০০৬) 0
 কোস্টা রিকা কনকাকাফ ৪র্থ রাউন্ড 2nd রানার্স-আপ ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ 0৪বার ২০০৬ ১৬-দলীয় রাউন্ড (১৯৯০) ৩১
 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কনকাকাফ ৪র্থ রাউন্ড 1st বিজয়ী ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ১০বার ২০১০ ৩য় স্থান (১৯৩০) ১৩
 আর্জেন্টিনা কনমেবল রাউন্ড রবিন 1st বিজয়ী ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ ১৬বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৭৮, ১৯৮৬) 0
 বেলজিয়াম উয়েফা গ্রুপ এ বিজয়ী ১১ অক্টোবর, ২০১৩ ১২বার ২০০২ ৪র্থ স্থান (১৯৮৬) 0
  সুইজারল্যান্ড উয়েফা গ্রুপ ই বিজয়ী ১১ অক্টোবর, ২০১৩ ১০বার ২০১০ কোয়ার্টার-ফাইনাল (১৯৩৪, ১৯৩৮, ১৯৫৪) 0
 জার্মানি উয়েফা গ্রুপ সি বিজয়ী ১১ অক্টোবর, ২০১৩ ১৮বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৫৪, ১৯৭৪, ১৯৯০) 0
 কলম্বিয়া কনমেবল রাউন্ড রবিন 2nd রানার্স-আপ ১১ অক্টোবর, ২০১৩ 0৫বার ১৯৯৮ ১৬-দলীয় রাউন্ড (১৯৯০) 0
 বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা উয়েফা গ্রুপ জি বিজয়ী ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ 0১বার ১৬
 রাশিয়া উয়েফা গ্রুপ এফ বিজয়ী ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ ১০বার[nb ২] ২০০২ ৪র্থ স্থান (১৯৬৬)[nb ৩] ১৯
 ইংল্যান্ড উয়েফা গ্রুপ এইচ বিজয়ী ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ ১৪বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৬৬) ১০
 স্পেন উয়েফা গ্রুপ আই বিজয়ী ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ ১৪বার ২০১০ বিজয়ী (২০১০) 0
 চিলি কনমেবল রাউন্ড রবিন ৩য় স্থান ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ 0৯বার ২০১০ ৩য় স্থান (১৯৬২) ১২
 ইকুয়েডর কনমেবল রাউন্ড রবিন ৪র্থ স্থান ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ 0৩বার ২০০৬ ১৬-দলীয় রাউন্ড (২০০৬) ২২
 হন্ডুরাস কনকাকাফ ৪র্থ রাউন্ড ৩য় স্থান ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ 0৩বার ২০১০ গ্রুপ পর্ব (১৯৮২, ২০১০) ৩৪
 নাইজেরিয়া কাফ ৩য় রাউন্ড বিজয়ী ১৬ নভেম্বর, ২০১৩ 0৫বার ২০১০ ১৬-দলীয় রাউন্ড (১৯৯৪, ১৯৯৮) ৩৩
 কোত দিভোয়ার কাফ ৩য় রাউন্ড বিজয়ী ১৬ নভেম্বর, ২০১৩ 0৩বার ২০১০ গ্রুপ পর্ব (২০০৬, ২০১০) ১৭
 ক্যামেরুন কাফ ৩য় রাউন্ড বিজয়ী ১৭ নভেম্বর, ২০১৩ 0৭বার ২০১০ কোয়ার্টার-ফাইনাল (১৯৯০) ৫৯
 ঘানা কাফ ৩য় রাউন্ড বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ 0৩বার ২০১০ কোয়ার্টার-ফাইনাল (২০১০) ২৩
 আলজেরিয়া কাফ ৩য় রাউন্ড বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ 0৪বার ২০১০ গ্রুপ পর্ব (১৯৮২, ১৯৮৬, ২০১০) ৩২
 গ্রিস উয়েফা প্লে-অফ বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ 0৩বার ২০১০ গ্রুপ পর্ব (১৯৯৪, ২০১০) ১৫
 ক্রোয়েশিয়া উয়েফা প্লে-অফ বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ 0৪বার ২০০৬ ৩য় স্থান (১৯৯৮) ১৮
 পর্তুগাল উয়েফা প্লে-অফ বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ 0৬বার ২০১০ ৩য় স্থান (১৯৬৬) ১৪
 ফ্রান্স উয়েফা প্লে-অফ বিজয়ী ১৯ নভেম্বর, ২০১৩ ১৪বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৯৮) ২১
 মেক্সিকো কনকাকাফ ব ওএফসি প্লে-অফ বিজয়ী ২০ নভেম্বর, ২০১৩ ১৫বার ২০১০ কোয়ার্টার-ফাইনাল (১৯৭০, ১৯৮৬) ২৪
 উরুগুয়ে CONMEBOLএএফসি ব কনমেবল প্লে-অফ বিজয়ী ২০ নভেম্বর, ২০১৩ ১২বার ২০১০ বিজয়ী (১৯৩০, ১৯৫০) 0

যোগ্যতা নির্ধারণী প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

রিও দি জেনিরোর মারিনা দ্যঁ গ্লোরিয়ায় বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

নির্বাহী কমিটি ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপের প্রাথমিক ড্রয়ের তারিখ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত অনুমোদন করে। এরফলে অতীতের প্রতিযোগিতাগুলোর চেয়ে ছয় মাস পূর্বেই তা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও, কনফেডারেশনগুলো তাদের সুবিধাজনক সময়ে প্রতিযোগিতা আয়োজনের বিষয়টিও অনুমোদ করে। ৩০ জুলাই, ২০১১ তারিখে ব্রাজিলের রিও দি জেনিরোর মারিনা দ্যঁ গ্লোরিয়ায় বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ বিশ্বকাপের জন্য কনফেডারেশনগুলোয় নিম্নবর্ণিত দলের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়।[৬]

  • এএফসি (এশিয়া): ৪ অথবা ৫
  • কাফ (আফ্রিকা): ৫
  • কনকাকাফ (উত্তর, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবিয়): ৩ অথবা ৪
  • কনমেবল (দক্ষিণ আমেরিকা): ৪ অথবা ৫ (+ ব্রাজিল স্বাগতিক হওয়ায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে ৫ অথবা ৬)
  • ওএফসি (ওশেনিয়া): ০ অথবা ১
  • উয়েফা (ইউরোপ): ১৩

উয়েফা ও কাফের নির্দিষ্টসংখ্যক দল নির্ধারণ করা থাকলেও অন্যান্য কনফেডারেশনগুলোকে এএফসি’র ৫ম স্থান অধিকারী দল বনাম কনমেবলের ৫ম স্থান অধিকারী দল ও কনকাকাফের বনাম ওএফসি’র ১ম স্থান অধিকারী দলের মধ্যকার খেলার ফলাফলের উপর নির্ভর করতে হয়। ড্রয়ের মাধ্যমে চার দলকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে হয়।

যোগ্যতার সংক্ষিপ্ত বিবরণী[সম্পাদনা]

World Map FIFA2.svg
কনফেডারেশন শুরুতে দলসংখ্যা বাছাই উত্তীর্ণ বিদায়ী দল চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণ বাছাই শুরুর তারিখ বাছাইয়ের শেষ তারিখ
এএফসি ৪৩ ৩৯ ২৯ জুন, ২০১১ ২০ নভেম্বর, ২০১৩
কাফ ৫২ ৪৭ ১১ নভেম্বর, ২০১১ ১৯ নভেম্বর, ২০১৩
কনকাকাফ ৩৫ ৩১ ১৫ জুন, ২০১১ ২০ নভেম্বর, ২০১৩
কনমেবল ৯+১ ৫+১ ৫+১ ৭ অক্টোবর, ২০১১ ২০ নভেম্বর, ২০১৩
ওএফসি ১১ ১১ ২২ নভেম্বর, ২০১১ ২০ নভেম্বর, ২০১৩
উয়েফা ৫৩ ১৩ ৪০ ১৩ ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২ ১৯ নভেম্বর, ২০১৩
সর্বমোট ২০৩+১ ৩১+১ ১৭২ ৩১+১ ১৫ জুন, ২০১১ ২০ নভেম্বর, ২০১৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "2014 FIFA World Cup – Statistics"। FIFA। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  2. "Rio ready to welcome the world"। FIFA। ২৬ জুলাই ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  3. "Bahamas withdraw from 2014 World Cup Qualifiers"। FIFA। ২২ আগস্ট ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০১১ 
  4. "Mauritius withdraw from FIFA World Cup qualifiers"। FIFA। ৩১ অক্টোবর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১১ 
  5. "Who has the hardest World Cup 2014 draw?"The Guardian। ১৮ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  6. "Qualifiers"। FIFA। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১১ 

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. The rankings are shown as of 17 October 2013. These are the rankings used for the final draw.
  2. This is the 3rd appearance of Russia at the FIFA World Cup. However FIFA considers Russia as the successor team of the USSR.
  3. Russia's best result is group stage in 1994 and 2002. However FIFA considers Russia as the successor team of the USSR.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:2014 FIFA World Cup qualifiers