ফিফা বিশ্বকাপের ইতিহাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বিশ্ব ফুটবল পরিচালনা কমিটি ফিফা পুরুষদের আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর ১৯৩০ সালে প্রথম ফিফা বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। সে সময়কার ফিফা সভাপতি জুলে রিমে এই ধারণাটি পেশ করেন। ১৯৩০ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম ফিফা বিশ্বকাপে আমন্ত্রিত হয়ে মাত্র তেরটি দল চূড়ান্ত টুর্নামেন্টে অংশ নেয়। এরপর থেকে বিশ্বকাপটি ধারাবাহিকভাবে বিস্তৃতকরণ এবং বিন্যাস পুনর্গঠন করা হয়েছে এবং বর্তমানে ৩২ দলের চূড়ান্ত টুর্নামেন্টের আগে দুই বছরব্যাপী বাছাই প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয় যেখানে বিশ্বের ২০০ টিরও বেশি দল অংশ নেয়।

১৯৩০ সালের আগে আন্তর্জাতিক ফুটবল[সম্পাদনা]

১৮৭২ সালে ইংল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ডের মধ্যে অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচের চিত্র


বিশ্বকাপের সূচনা[সম্পাদনা]

উরুগুয়ের মোন্তেবিদেওর সেন্তেনারিও স্টেডিয়াম, ১৯৩০ সালে প্রথম ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ এখানে অনুষ্ঠিত হয়


১৯৪২ ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

যুদ্ধোত্তর বছরসমূহ[সম্পাদনা]

১৯৫০ এর দশক[সম্পাদনা]

১৯৫৪ ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে বার্নের ওয়াঙ্কডরফ স্টেডিয়ামে ঘড়ি স্থাপন করা হয়


১৯৬০ এর দশক[সম্পাদনা]

১৯৭০ এর দশক[সম্পাদনা]

১৯৭৪ ফিফা বিশ্বকাপে জোহান ক্রুইফ এর খেলার একটি মুহুর্ত


বিশ শতকের শেষের দিকে[সম্পাদনা]

১৯৮০ এর দশক[সম্পাদনা]

১৯৮৬ ফিফা বিশ্বকাপ: আর্জেন্টিনার দিয়েগো ম্যারাডোনা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গোল করার মুহুর্তে



১৯৯০ এর দশক[সম্পাদনা]

একবিংশ শতাব্দী[সম্পাদনা]

২০০০ এর দশক[সম্পাদনা]

২০১০ এর দশক[সম্পাদনা]

২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানি ও আর্জেন্টিনা: গোৎজে ম্যাচের জয়সূচক গোলটি করেন


২০২০ এর দশক[সম্পাদনা]

২০২২ বিশ্বকাপ কাতারে অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বকাপ সাধারণত গ্রীষ্মের সময় অনুষ্ঠিত হলেও এটিই হবে প্রথম টুর্নামেন্ট যা গ্রীষ্মের সময় অনুষ্ঠিত হবে না। এটি ২১ নভেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

পদ্ধতির বিবর্তন[সম্পাদনা]

দলের সংখ্যা এবং প্রতিটি চূড়ান্ত টুর্নামেন্টের পদ্ধতি বছরের পর বছর ধরে যথেষ্ট পরিবর্তিত হয়েছে। বেশিরভাগ টুর্নামেন্ট প্রথমে রাউন্ড-রবিন লীগ পদ্ধতিতে গ্রুপ পর্ব এবং এরপর একক-বিদায় নকআউট পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।[১]

বছর স্বাগতিক অংশগ্রহণ / খেলা (যোগ্যতা অর্জন) দল ম্যাচ প্রথম পর্ব দ্বিতীয় পর্ব চূড়ান্ত পর্ব
1930  Uruguay No Qualification (Invitational Only) 13 18 4 groups of 3 or 4 teams[s ১] knockout of 4 teams
(round 1 group winners)[s ২]
1934  Italy 32 / 27 16 17 knockout[s ৩]
1938  France 37 / 21 16[s ৪] 18 knockout[s ৩]
Tournaments of 1942 and 1946 cancelled due to World War II
1950  Brazil 34 / 19 16[s ৫] 22 4 groups of 4 teams[s ৫][s ১] group of 4 teams
(round 1 group winners)
1954   Switzerland 45 / 33 16 26 4 groups of 4 teams[s ৬][s ১] knockout of 8 teams
(round 1 group winners and runners-up)
1958  Sweden 55 / 46 16 35 4 groups of 4 teams[s ১]
1962  Chile 56 / 49 16 32 4 groups of 4 teams
1966  England 74 / 51
1970  Mexico 75 / 68
1974  West Germany 99 / 90 16 38 2 groups of 4 teams
(round 1 group winners and runners-up)
final
(round 2 group winners)[s ৭]
1978  Argentina 107 / 95
1982  Spain 109 / 103 24 52 6 groups of 4 teams 4 groups of 3 teams
(round 1 group winners and runners-up)
knockout of 4 teams
(round 2 group winners)
1986  Mexico 121 / 110 24 52 knockout of 16 teams
(round 1 group winners and runners-up, plus 4 best 3rd-placed teams)
1990  Italy 116 / 103
1994  United States 147 / 130
1998  France 174 / 168 32 64 8 groups of 4 teams knockout of 16 teams
(round 1 group winners and runners-up)
2002  South Korea
 Japan
199 / 193
2006  Germany 198 / 194
2010  South Africa 205 / 200
2014  Brazil 204 / 203
2018  Russia 210 / 208
2022  Qatar
2026  Canada
 Mexico
 United States
48 80 16 groups of 3 teams knockout of 32 teams
(round 1 group winners and runners-up)
  1. Up to 1958, ranking ties in groups were to be broken via a playoff; this only happened in 1954 and 1958. Since 1962, all ties are broken by goal average or goal difference.
  2. No third-place match was played
  3. In 1934 and 1938, draws in knockout matches were resolved via a replay. Later, drawing of lots was provided for, though never invoked. Since 1974, penalty shootouts are used.
  4. Austria pulled out after qualifying, leaving the tournament with only 15 teams
  5. India, Scotland and Turkey pulled out after qualifying, leaving the tournament with only 13 teams, and thus, one group had only 3 teams and one group had only 2 teams
  6. Each group had two seeded and two unseeded teams; the seeded teams played only unseeded teams and vice versa.
  7. The third-place match was contested by the round 2 group runners-up


বিশ্বকাপ বিজয়ী দল, অধিনায়ক এবং ম্যানেজার[সম্পাদনা]

বছর স্বাগতিক বিজয়ী দল অধিনায়ক প্রধান কোচ
১৯৩০  Uruguay  উরুগুয়ে José Nasazzi Alberto Suppici
১৯৩৪  Italy  ইতালি Giampiero Combi Vittorio Pozzo
১৯৩৮  France  ইতালি Giuseppe Meazza Vittorio Pozzo
১৯৫০  Brazil  উরুগুয়ে Obdulio Varela Juan López Fontana
১৯৫৪   Switzerland  পশ্চিম জার্মানি Fritz Walter Sepp Herberger
১৯৫৮  Sweden  ব্রাজিল Hilderaldo Bellini Vicente Feola
১৯৬২  Chile  ব্রাজিল Mauro Ramos Aymoré Moreira
১৯৬৬  England  ইংল্যান্ড Bobby Moore Alf Ramsey
১৯৭০  Mexico  ব্রাজিল Carlos Alberto Torres Mário Zagallo
১৯৭৪  West Germany  পশ্চিম জার্মানি Franz Beckenbauer Helmut Schön
১৯৭৮  Argentina  আর্জেন্টিনা Daniel Passarella César Luis Menotti
[[১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপ ফাইনাল|১৯৮২]  Spain  ইতালি Dino Zoff Enzo Bearzot
১৯৮৬  Mexico  আর্জেন্টিনা Diego Maradona Carlos Bilardo
১৯৯০  Italy  পশ্চিম জার্মানি Lothar Matthäus Franz Beckenbauer
১৯৯৪  United States  ব্রাজিল Dunga Carlos Alberto Parreira
১৯৯৮  France  ফ্রান্স Didier Deschamps Aimé Jacquet
২০০২  South Korea
 Japan
 ব্রাজিল Cafu Luiz Felipe Scolari
২০০৬  Germany  ইতালি Fabio Cannavaro Marcello Lippi
২০১০  South Africa  স্পেন ইকার ক্যাসিয়াস ভিসেন্তে দেল বস্ক
২০১৪  Brazil  জার্মানি ফিলিপ লাম জোয়াকিম লো
২০১৮  Russia  ফ্রান্স উগো লরিস দিদিয়ে দেশঁ

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Formats of the FIFA World Cup final competitions 1930–2010" (PDF)FIFA.com। ১৫ জুন ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জানুয়ারি ২০০৮