মিরাট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মিরাট
মহানগরী[১]
Martyr MemorialPracheen Bada Mandir in Hastinapur
Basilica of Our Lady of GracesSt. John's Church, Meerut
উপর থেকে নিচে; বাম থেকে ডানে: শহীদ মেমোরিয়াল, প্রচীন বাদা মন্দির হস্তিনপুর, আমাদের লেডি অফ গ্রাসেসের বেসিলিকা, সেন্ট। জনস চার্চ, মীরুত
মিরাট ভারত-এ অবস্থিত
মিরাট
মিরাট
মিরাট উত্তর প্রদেশ-এ অবস্থিত
মিরাট
মিরাট
স্থানাঙ্ক: ২৮°৫৯′ উত্তর ৭৭°৪২′ পূর্ব / ২৮.৯৯° উত্তর ৭৭.৭০° পূর্ব / 28.99; 77.70স্থানাঙ্ক: ২৮°৫৯′ উত্তর ৭৭°৪২′ পূর্ব / ২৮.৯৯° উত্তর ৭৭.৭০° পূর্ব / 28.99; 77.70
দেশ ভারত
রাজ্যউত্তর প্রদেশ
বিভাগমিরাট
জেলামিরাট
সরকার
 • শাসকমিরাট পৌর কর্পোরেশন
 • নগরাধ্যক্ষসুনিতা ভার্মা (বিএসপি)
 • বিভাগীয় কমিশনারঅনিতা মিশ্রম, আইএএস
 • জেলা ম্যাজিস্ট্রেটঅনিল ধিংরা, আইএএস
 • পুলিশের সিনিয়র সুপারিনটেনডেন্টআখিলেশ কুমার, আইপিএস
 • পৌর কমিশনারমনোজ কুমার চৌহান, পিসি
আয়তন
 • মহানগরী[১]১৪১.৯৪ কিমি (৫৪.৮০ বর্গমাইল)
উচ্চতা২২৪.৬৫৯ মিটার (৭৩৭.০৭০ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১১)[২]
 • মহানগরী[১]১৩,০৯,০২৩
 • ক্রম২৬
 • জনঘনত্ব৯২০০/কিমি (২৪০০০/বর্গমাইল)
 • মহানগর[৩]১৪,২৪,৯০৮
ভাষা
 • সরকারীহিন্দি হরিয়াণি পাঞ্জাবী এবং উর্দু খড়ি বোলি
সময় অঞ্চলআইএসআই (ইউটিসি+৫:৩০)
PIN২৫০ ০xx
টেলিফোন কোড৯১- ১২১- XXXX XXX
যানবাহন নিবন্ধনইউপি-১৫
ওয়েবসাইটmeerut.nic.in
[৪]

মিরাট (এই শব্দপ্রমাণ সম্পর্কে (সাহায্য করুন) তথ্য, আইএএসটি: মেরাহা), ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের একটি শহর।[৫] এটি এই অঞ্চলের একটি প্রাচীন শহর এবং কাছাকাছি পাওয়া সিন্ধু সভ্যতার প্রত্নস্থল এই এলাকায় প্রাচীন বসতি স্থাপনের কথা উল্লেখ করে। শহরটি জাতীয় রাজধানী নতুন দিল্লীর ৭০ কিলোমিটার (৪৩ মাইল) উত্তরে এবং রাজ্যের রাজধানী লখনৌেয়ের উত্তর-পশ্চিম ৪৫৩ কিলোমিটার (২৮১ মাইল) উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত।[৬]

২০১১ সালের হিসাবে মিরাট ভারতের ৩৩ তম জনবহুল শহুরে এলাকা এবং ২৬ তম জনবহুল শহর।[৭][৮] এটি বিশ্বের বৃহত্তম শহর ও শহুরে অঞ্চলের তালিকায় ২০০৬ সালে ২৯২ তম স্থান পেয়েছে এবং অনুমান করা হচ্ছে ২০২০ সালে এটি ২৪২ পদে স্থান পাবে।[৯] শহরটি ১৪১.৮৯ কিলোমিটার (৫৪.৭৮ বর্গ মাইল)[১০] পৌর এলাকায় (২০০১ সালের হিসাবে) এবং ৩৫.৬৮ বর্গ কিমি (৩,৫৬৮.০৬ হেক্টর) ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় আচ্ছাদিত।[১১] এই শহরটি ক্রীড়া সামগ্রীর বৃহত্তম প্রযোজক এবং ভারতে বাদ্যযন্ত্রগুলির বৃহত্তম প্রযোজক। এই শহরটি উত্তর প্রদেশের উত্তর অঞ্চলের শিক্ষা কেন্দ্র, এবং "স্পোর্টস সিটি অফ ইন্ডিয়া" হিসাবেও পরিচিত। ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনের বিরুদ্ধে ১৮৫৭ সালের বিদ্রোহের শুরু স্থান হিসাবে এটি বিখ্যাত ছিল।

শব্দের উৎপত্তি[সম্পাদনা]

শহরটি হয়তো 'মায়রাস্ট্র' (সংস্কৃত: মায়রাত্র্র), ময়াসুর রাজ্যের রাজধানী, মন্ডোদারের পিতা ও রাবণের শ্বশুরের নাম বহন করে। এই নাম হয়তো মৈরাষ্ট্র , মাই-দন্ত-ক-খেরা, মৈরাথ এবং মিরাটের মধ্যে পরিবর্তিত হতে পারে।

অন্য বর্নণা মতে মায়া (সূরা), একজন বিশিষ্ট স্থপতি হিসাবে রাজা যুধিষ্ঠিরের কাছ থেকে জমি পেয়েছিলেন, যার উপর মিরাট শহর এখন অবস্থিত এবং তিনি এই স্থানটি মায়ারাষ্ট্র নামে উল্লেখ করেন, পরে সময়ের সাথে সাথে মায়ারাষ্ট্র নামটি থেকে মিরাট নামটির উৎপত্তি হয়। এছাড়াও বলা হয় শহরটি ইন্দ্রপ্রস্থের রাজা মহীপালের রাজত্বের একটি অংশ গঠন করত এই শহরটি এবং তার নাম মিরাট শব্দটির সাথে যুক্ত।[১২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রাচীন যুগ[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

শিল্প[সম্পাদনা]

রামলালের সংগীত পুরানমাল কা (পুরানমালের সংগীত) বইয়ের প্রচ্ছদ। বইটি ১৮৭৯ সালে শহরটি থেকে প্রকাশিত হয়।

মিরাট বিভিন্ন ঐতিহ্যগত এবং আধুনিক শিল্পের সঙ্গে পশ্চিমা উত্তর প্রদেশের গুরুত্বপূর্ণ শিল্প শহরগুলির মধ্যে অন্যতম।[৫] ঐতিহ্যগতভাবে তাঁতের কাজ এবং কাঁচি শিল্পের জন্য পরিচিত।[১৩] উত্তর ভারতে প্রথম শহরগুলির মধ্যে মিরাট ছিল একটি, যেখানে ১৯ শতকের সময় প্রকাশনা সংস্থা স্থাপন করা হয়েছিল। শহরটি ১৮৬০ এবং ১৮৭০ এর দশকে বাণিজ্যিক প্রকাশনার একটি প্রধান কেন্দ্র ছিল।[১৪]

মিরাট এমন একটি সমৃদ্ধ কৃষি এলাকা যেখানে কৃষির জন্য উপযুক্ত নয় এমন বহু জমি রয়েছে। দিল্লির নিকটবর্তী হওয়ার কারণে এটি শিল্পের জন্য আদর্শ স্থান। এটি ৫২০ টি ক্ষুদ্র, ছোট এবং মাঝারি মাপের শিল্পের স্থান।[১৫] ২০০৬ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত মিরাটে প্রায় ১৫,৪১০ টি ছোট ইউনিট এবং ৭,৯২২ কুটিরশিল্পসহ প্রায় ২৩,৫৭১ টি শিল্প ইউনিট রয়েছে।[১৬]

শহরে বিদ্যমান শিল্পগুলির মধ্যে টায়ার, বস্ত্র, ট্রান্সফরমার, চিনি, মদ, রাসায়নিক, প্রকৌশল, কাগজ, প্রকাশনা এবং ক্রীড়া সামগ্রী উৎপাদন অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।[১৩][১৭][১৫] সম্ভাব্য শিল্প হিসাবে আইটি এবং আইটিইএস অন্তর্ভুক্ত।[১৮]

উত্তর প্রদেশ রাজ্য শিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন (ইউপিএসআইডিসি) শহরের দুটি শিল্প এস্টেট স্থাপন করেছে, এগুলি হল- পার্তাপুর ও উদ্যোগপুরম।[১৯][২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Six cities to get metropolitan status"Times of India। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৭ 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; cen11city নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; cen11ua নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "Meerut Municipal Corporation e-Newsletter April 2017" (PDF)Meerut Municipal Corporation e-Newsletter: 2। এপ্রিল ২০১৭। 
  5. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; ch3 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CDPcityprofile নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  7. "Welcome to the National Capital Region(U.P)"। ১১ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০১৮ 
  8. "NCR - DelhiLive"। ২ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০১৮ 
  9. "A to Z of world's largest cities and urban areas - Largest cities and urban areas M to R"। সংগ্রহের তারিখ August 2013  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  10. "Area, Population and Density of Cities and Towns of India – 2001, CHAPTER II - Area and Density – All Cities and Towns" (PDF)। Ministry of Urban Development, Government of India। ২ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  11. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; cbh নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  12. Jagdish Kumar Pundir (১৯৯৮)। Banking, Bureaucracy, and Social Networks: Scheduled Castes in the Process of Development। Sarup & Sons। পৃষ্ঠা 49–50। আইএসবিএন 9788176250245 
  13. CDP 2006, Executive Summary, Section 3.1.3 - Economic Base, p. 15
  14. Swapan Chakravorty, Abhijit Gupta, Jadavpur University Department of English (২০০৪)। Print areas: book history in India। Orient Blackswan। আইএসবিএন 978-81-7824-082-4। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  15. "Industrial Directory, District-Meerut" (pdf)। Meerut Official Website। পৃষ্ঠা 29। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০১১ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  16. CDP 2006, Chapter 3 - City Profile, Section 3.5.1 - Industries, p. 46।
  17. CDP 2006, Chapter 1 - Indtroduction, Section 1.1 - Background, p. 31।
  18. CDP 2006, Chapter 5 - SWOT Analysis, Section 5.3 - Opportunity, p. 58।
  19. "Industrial Area Description – UPSIDC"। UPSIDC। ৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১১ 
  20. "Industrial Area Description – UPSIDC"। UPSIDC। ৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]