জেপি ডুমিনি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জেপি ডুমিনি
JP Duminy.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম জ্যঁ-পল ডুমিনি
জন্ম (১৯৮৪-০৪-১৪) ১৪ এপ্রিল ১৯৮৪ (বয়স ৩০)
স্ট্র্যান্ডফন্টেইন, কেপ টাউন, দক্ষিণ আফ্রিকা
ডাকনাম জেপি, কোপ
ব্যাটিংয়ের ধরণ বামহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি অফব্রেক
ভূমিকা ব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ৩০২) ১৭ ডিসেম্বর ২০০৮ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১০ বনাম ভারত
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ৭৭) ২০ আগস্ট ২০০৪ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই ২২ জানুয়ারি ২০১২ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই শার্ট নং ২১
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
২০০৩-বর্তমান কেপ কোবরাজ/ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স বোল্যান্ড (দল নং ২৪)
২০০১-২০০৪ ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স
২০০৩ ডেভন
২০০৯-২০১০ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স
২০১১-বর্তমান ডেকান চার্জার্স
কর্মজীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৭ ৯৪ ৭৫ ১৫১
রানের সংখ্যা ৭৮৯ ২,৬০১ ৫,০২৯ ৪,১৪০
ব্যাটিং গড় ৩৭.৫৭ ৪০.০১ ৫০.৭৯ ৩৮.৬৯
১০০/৫০ ২/৪ ৩/১৫ ১৫/২৫ ৩/২৯
সর্বোচ্চ রান ১৬৬ ১৫০* ২০০* ১২৯
বল করেছে ৮৭৫ ১,২৩৪ ৩,২২২ ১,৮৯২
উইকেট ১২ ২৭ ৪৩ ৩৯
বোলিং গড় ৪২.৫০ ৩৮.২২ ৪২.৭৬ ৪০.১০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a
সেরা বোলিং ৩/৮৯ ৩/৩১ ৫/১০৮ ৩/৩১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪/– ৩৯/– ৫৫/– ৫২/–
উত্স: Cricinfo, ১৩ নভেম্বর ২০১২

জ্যঁ-পল ডুমিনি (ইংরেজি: Jean-Paul Duminy; জন্ম: ১৪ এপ্রিল, ১৯৮৪) কেপ টাউনের স্ট্যান্ডফন্টেইনে জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার। সংক্ষেপে তিনি জেপি ডুমিনি নামে বৈশ্বিকভাবে পরিচিত।[১] দক্ষিণ আফ্রিকা দলে বামহাতি ব্যাটসম্যান ও ডানহাতি অফ স্পিন বোলার হিসেবে খেলে থাকেন। কেপে জন্মগ্রহণ করলেও বড় হয়েছেন ওয়েস্টার্ন কেপে[১] বর্তমানে ঘরোয়া ক্রিকেটে নিজ রাজ্য দল কেপ কোবরাজে খেলছেন।

ক্রীড়া জীবন[সম্পাদনা]

শীর্ষসারির ব্যাটসম্যানরূপে ডুমিনি সফলতা লাভ করেছেন, দক্ষ ফিল্ডার ও কার্যকর পরিবর্তিত বোলাররূপে পরিচিত পেয়েছেন। ২০০৪ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষিক্ত হয়েছেন। আঘাতপ্রাপ্ত সহ-অধিনায়ক অ্যাশওয়েল প্রিন্সের পরিবর্তে ডুমিনির টেস্ট অভিষেক ঘটে ১৭ ডিসেম্বর, ২০০৮ তারিখে পার্থের ওয়াকায়অপরাজিত অর্ধ-শতকের পাশাপাশি দ্বিতীয় ইনিংসের জয়সূচক রানটি আসে এবি ডি ভিলিয়ার্সের সাথে অবিচ্ছিন্ন জুটি বেঁধে। পরের টেস্টে নীচের সারির ব্যাটসম্যানদের নিয়ে প্রথম সেঞ্চুরী করেন। বক্সিং ডে টেস্টের খেলাটিতে ২০০ রানের মধ্যে ৭ উইকেট পড়ে যায়। এ অবস্থায় ডেল স্টেইনকে (৭৬) সাথে নিয়ে ১৮০ রান করেন। এর মাধ্যমে গ্রেইমপিটার পোলকের অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সৃষ্ট রেকর্ডটি ভেঙ্গে ফেলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ৬২ রানে এগিয়ে থেকে ৯ উইকেটের বিজয় অর্জন করে। এরফলে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথমবারের মতো সিরিজ জয় করে। পাশাপাশি ১৬ বছরের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া নিজ মাটিতে প্রথমবারের মতো হারে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ Peter Roebuck (21 December 2008)। "Steely youths score greatest win"The Sydney Morning Herald। smh.com.au। সংগৃহীত 2008-12-28 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]