নুয়ান কুলাসেকারা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নুয়ান কুলাসেকারা
Nuwan Kulasekara.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকুলাসেকারা মুদিয়েনসেলাগে দীনেশ নুয়ান কুলাসেকারা
জন্ম (1982-07-22) ২২ জুলাই ১৯৮২ (বয়স ৩৬)
নিত্তামবুয়া, শ্রীলঙ্কা
ডাকনামকুলে
উচ্চতা৫ ফুট ৮ ইঞ্চি (১.৭৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০০)
৪ এপ্রিল ২০০৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৬ মার্চ ২০১৩ বনাম বাংলাদেশ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১১৮)
১৮ নভেম্বর ২০০৩ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই৮ জুলাই ২০১৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই শার্ট নং৫৫
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০২-২০০৪গালে ক্রিকেট ক্লাব
২০০৪-২০১১কোল্টস ক্রিকেট ক্লাব
২০১১-বর্তমানচেন্নাই সুপার কিংস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি লিস্ট এ
ম্যাচ সংখ্যা ২০ ১৪৪ ৮৩ ২২৪
রানের সংখ্যা ৩৮১ ১,০৬২ ১,৫৭১ ১,৫৮৪
ব্যাটিং গড় ১৫.২৪ ১৬.৮৫ ১৭.৮৫ ১৭.৪০
১০০/৫০ ০/১ ০/৩ ০/৪ ০/৫
সর্বোচ্চ রান ৬৪ ৭৩ ৯৫ ৮৪
বল করেছে ৩,৩৪৫ ৬,৬৭১ ১২,০১১ ১০,২৪৬
উইকেট ৪৬ ১৬০ ২৬৪ ২৭৯
বোলিং গড় ৩৫.৭৮ ৩২.৩৩ ২৩.৯৪ ২৭.১৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a
সেরা বোলিং ৪/২১ ৫/২২ ৭/২৭ ৫/২২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/– ৩৩/– ৩২/– ৫৪/–
উৎস: Cricinfo, ৮ জুলাই ২০১৩

কুলাসেকারা মুদিয়েনসেলাগে দীনেশ নুয়ান কুলাসেকারা (সিংহলি: නුවන් කුලසේකර; জন্ম: ২২ জুলাই, ১৯৮২) নিত্তামবুয়া এলাকায় জন্মগ্রহণকারী শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারআন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য কুলাসেকারা মূলতঃ ফাস্ট-মিডিয়াম বোলাররূপে খেলায় অংশগ্রহণ করে থাকেন। গামপাহা এলাকাধীন বন্দরনায়েকে কলেজের সাবেক ছাত্র নুয়ান কুলাসেকারা একসময় বিশ্বের ১নং ওডিআই বোলার ছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮ নভেম্বর, ২০০৩ তারিখে ডাম্বুলায় অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। তিনি ১৯ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট লাভ করেন ও অন্যান্য বোলাররা সহায়তা করলে ইংল্যান্ড দল মাত্র ৮৮ রানে অল-আউট হয়। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে শ্রীলঙ্কা ১৪ ওভারেরও কম বল খেলে ১০ উইকেটের ব্যবধানে বিশাল বিজয় অর্জন করে।

টেস্ট ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন ৪ এপ্রিল, ২০০৫ তারিখে। নিউজিল্যান্ডের নেপিয়ারে অনুষ্ঠিত টেস্ট খেলায় নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের বিপক্ষে তিনি একটিমাত্র উইকেট দখল করেন ও শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন। খেলাটি ড্র হয়েছিল। মে, ২০০৬ তারিখে তিনি তার প্রথম টেস্ট অর্ধ-শতক করেন লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ৫ম দিনে তার দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কা পরাজয়বরণ থেকে রক্ষা পায়।

২০১১ সালে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের চেন্নাই সুপার কিংস কর্তৃপক্ষ $১,০০,০০০ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে তার সাথে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়।

অর্জনসমূহ[সম্পাদনা]

৭২৭ র‌েটিং নিয়ে ২০০৯ সালে কয়েকমাসের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিশ্বের ১নং বোলাররূপে আসীন ছিলেন। বর্তমানে তিনি একদিনের আন্তর্জাতিক ও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক - উভয় ধরণের ক্রিকেটেই ষষ্ঠ অবস্থানের রয়েছেন উইকেটের ভিতরে ও বাইরে সুইং বোলিংয়ের জন্যে। ১৮ জানুয়ারি, ২০১৩ তারিখে ব্রিসবেনে অনুষ্ঠিত তৃতীয় একদিনের আন্তর্জাতিকে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো পাঁচ উইকেট লাভ করেন। ২২ রানের বিনিময়ে পাঁচ উইকেট লাভ তার সেরা বোলিং পরিসংখ্যান।

অন্যদিকে ২ মার্চ, ২০১২ তারিখে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত একদিনের আন্তর্জাতিকে অস্ট্রেলীয় ডেন ক্রিশ্চিয়ানের এলবিডব্লিউতে হ্যাট্রিক পূর্ণের সর্বশেষ শিকারে পরিণত হন তিনি।[১] দলীয় সঙ্গী থিসারা পেরেরা, সচিত্র সেনানায়েকেওহ্যাট্রিক পূর্ণের সাথে জড়িত ছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]