২০১৩ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
২০১৩ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর
Flag of Sri Lanka.svg
শ্রীলঙ্কা
Flag of South Africa.svg
দক্ষিণ আফ্রিকা
তারিখ ২০ জুলাই, ২০১৩ – ৬ আগস্ট, ২০১৩
অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (শেষ ৩ ওডিআই)
দীনেশ চন্ডিমাল (প্রথম ২ ওডিআই ও টি২০আই)
এবি ডি ভিলিয়ার্স
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ শ্রীলঙ্কা ৪–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান কুমার সাঙ্গাকারা (৩৭২) জেপি ডুমিনি (১৬৫)
সর্বাধিক উইকেট অজন্তা মেন্ডিস (১০) মরনে মরকেল (৭)
সিরিজ সেরা কুমার সাঙ্গাকারা (শ্রীলঙ্কা)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ২–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান কুমার সাঙ্গাকারা (৯৮) জেপি ডুমিনি (১৩২)
সর্বাধিক উইকেট সচিত্র সেনানায়েকে (৫) ওয়েন পারনেল (৪)
মরনে মরকেল (৪)
সিরিজ সেরা জেপি ডুমিনি (দক্ষিণ আফ্রিকা)
২০০৬ (পূর্ববর্তী) (পরবর্তী) ২০১৪

দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল ২০ জুলাই থেকে ৬ আগস্ট, ২০১৩ তারিখ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা সফর করে। সফরকারী দলটি ৫টি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এবং ৩টি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করে।[১] সম্প্রচার স্বত্ত্বের কারণে উভয় সিরিজের নামকরণ করা হয়েছে ডায়ালগ কাপওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত ত্রি-দেশীয় সিরিজের চূড়ান্ত খেলায় শ্রীলঙ্কা দল ধীরগতিতে বোলিং করায় ওডিআই অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস প্রথম দু’টি ওডিআইয়ে খেলতে পারেননি। দলের অন্যান্য সদস্যদেরকে ম্যাচ ফি’র ৪০% অর্থ জরিমানা করা হয়।[২] ম্যাথিউসের পরিবর্তে দীনেশ চন্ডিমাল অধিনায়কত্ব করেন। ২৩ বছর বয়সে অধিনায়কের দায়িত্ব পাবার ফলে তিনি শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়কের মর্যাদার আসন গ্রহণ করেন।[৩]

দলের সদস্য[সম্পাদনা]

একদিনের আন্তর্জাতিক টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক
 শ্রীলঙ্কা[৪]  দক্ষিণ আফ্রিকা  শ্রীলঙ্কা  দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি একাদশ ব দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ[সম্পাদনা]

১৭ জুলাই
৯:৩০
স্কোরকার্ড
জেপি ডুমিনি ৯২ (১০০)
থিসারা পেরেরা ২/৪৯ (১০ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকান্স ৭৩ রানে বিজয়ী
কোল্টস ক্রিকেট ক্লাব মাঠ, কলম্বো, শ্রীলঙ্কা
আম্পায়ার: রোহিত কট্টাহাচ্চি (শ্রীলঙ্কা) ও রবীন্দ্র উইমালাসিরি (শ্রীলঙ্কা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২০ জুলাই
১৪:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৩২০/৫ (৫০ ওভার)
 দক্ষিণ আফ্রিকা
১৪০ (৩১.৫ ওভার)
কুমার সাঙ্গাকারা ১৬৯ (১৩৭)
মরনে মরকেল ২/৩৪ (১০ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কুমার সাঙ্গাকারা’র ১৬৯ রান শ্রীলঙ্কার মাটিতে যে-কোন শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৩ জুলাই
১৪:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২২৩/৯(৪৯.২/৪৯.২ ওভার)
 দক্ষিণ আফ্রিকা
১০৪/৫ (২১/২১ ওভার)
দীনেশ চন্ডিমাল ৪৩ (৫১)
মরনে মরকেল ৩/৩৪ (১০ ওভার)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির জন্য শ্রীলঙ্কার ইনিংস শেষ হয় ৪৯.২ ওভারে। পুণরায় বৃষ্টি নামলে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস ২৯ ওভারে সীমাবদ্ধ রাখা হয়। পরে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসকে ২১ ওভারে নিয়ে আসা হয়।

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৬ জুলাই
১৪:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা 
২২৩/৭ (৫০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১৬৭ (৪৩.২ ওভার)
ডেভিড মিলার ৮৫* (৭২)
অজন্তা মেন্ডিস ৩/৩৫ (১০ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • শ্রীলঙ্কার পক্ষে অ্যাঞ্জেলো পেরেরার ওডিআই অভিষেক হয়।

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

২৮ জুলাই
১৪:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা 
২৩৮ (৪৮.৪ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
২৩৯/২ (৪৪ ওভার)
জেপি ডুমিনি ৯৭ (১২১)
অজন্তা মেন্ডিস ৪/৫১ (৯.৪ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

৩১ জুলাই
১৪:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৩০৭/৪ (৫০ ওভার)
 দক্ষিণ আফ্রিকা
১৭৯ (৪৩.৫ ওভার)
  • শ্রীলঙ্কা টসে বিজয়ী হয়ে ব্যাটিং করে।

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টি২০আই[সম্পাদনা]

২ আগস্ট
১৯:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা 
১১৫/৬ (২০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১০৩/৯ (২০ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ইমরান তাহির এবং ডেভিড উইসের টি২০ অভিষেক ঘটে।

২য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৪ আগস্ট
১৯:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা 
১৪৫/৬ (২০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১২৩/৭ (২০ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৩য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৬ আগস্ট
১৯:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা 
১৬৩/৩ (২০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১৬৪/৪ (১৮.১ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

সম্প্রচার ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

টেলিভিশন সম্প্রচার দেশ মন্তব্য
টেন স্পোর্টস  পাকিস্তান
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
 শ্রীলঙ্কা
আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতা সম্প্রচার করে
টেন ক্রিকেট  বাংলাদেশ
 ভারত
সুপারস্পোর্ট  দক্ষিণ আফ্রিকা
 জিম্বাবুয়ে

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "South Africa tour of Sri Lanka 2013"। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০১৩ 
  2. "Mathews suspended for two ODIs for slow over-rate in Trinidad"। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০১৩ 
  3. "Chandimal becomes youngest Sri Lanka ODI captain"। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০১৩ 
  4. "Sri Lanka National Squad for the 1st & 2nd ODI against South Africa"। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০১৩ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]