আন্দ্রে নেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আন্দ্রে নেল
Andre Nel Bfdefence.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআন্দ্রে নেল
জন্ম (1977-07-15) ১৫ জুলাই ১৯৭৭ (বয়স ৪১)
জার্মিস্টন, দক্ষিণ আফ্রিকা
উচ্চতা৬ ফুট ৪ ইঞ্চি (১.৯৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৮১)
৭ সেপ্টেম্বর ২০০১ বনাম জিম্বাবুয়ে
শেষ টেস্ট৭ আগস্ট ২০০৮ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৬৫)
১২ মে ২০০১ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই৩ সেপ্টেম্বর ২০০৮ বনাম ইংল্যান্ড
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ )
২১ অক্টোবর ২০০৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টি২০আই১৯ সেপ্টেম্বর ২০০৮ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
নর্দাম্পটনশায়ার
এসেক্স
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স
সাউদার্ন রক্স
হাইভেল্ড লায়ন্স
সারে
টাইটান্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০আই এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৩৬ ৭৯ ২২০
রানের সংখ্যা ৩৩৭ ১২৭ ৪৮২
ব্যাটিং গড় ৯.৯১ ১২.৭০ - ১১.৪৭
১০০/৫০ ০/০ ০/০ -/- ০/১
সর্বোচ্চ রান ৩৪ ৩০* - ৫৮
বল করেছে ৭,৬৩০ ৩,৮০১ ৪৮ ১০,৬৫৪
উইকেট ১২৩ ১০৬ ৩০২
বোলিং গড় ৩১.৮৬ ২৭.৬৮ ২১.০০ ২৬.০৩
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৬/৩২ ৫/৪৫ ২/১৯ ৬/২৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৬/– ২১/– ১/– ৪৯/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ২ এপ্রিল ২০১৮

আন্দ্রে নেল (ইংরেজি: André Nel; জন্ম: ১৫ জুলাই, ১৯৭৭) জার্মিস্টন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০১ থেকে ২০০৮ সময়কালে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে সকল স্তরের ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে নর্দাম্পটনশায়ার, এসেক্স, সারে; ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স, সাউদার্ন রক্স, টাইটান্স, হাইভেল্ড লায়ন্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিং করতেন। এছাড়াও নিচেরসারিতে কার্যকরী ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে ভূমিকা পালন করতেন তিনি।

৭ সেপ্টেম্বর, ২০০১ তারিখে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক ঘটে তার। ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর নেয়ার পরও কাউন্টি ক্রিকেটে সারে দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। ২৫ মার্চ, ২০০৯ তারিখে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজের অবসরের কথা ঘোষণা করেন আন্দ্রে নেল। [১]

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ শেষে অত্যন্ত উঁচুমানের আক্রমণধর্মী ও মর্যাদা সম্পন্ন খেলোয়াড়ের স্বীকৃতি পান। এ সময় তিনি ইংরেজ কাউন্টি দল এসেক্সের পক্ষে যোগ দেন। এরপূর্বে অবশ্য ২০০৫ সালে নর্দাম্পটনশায়ারের পক্ষে খেলেছেন ও ২০০৬ সালে প্রো ৪০ প্রতিযোগিতায় সারের বিপক্ষে অংশ নিয়েছিলেন।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে বিশেষ প্রাধিকারপ্রাপ্ত দল মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের পক্ষে খেলার জন্য চুক্তিবদ্ধ হন তিনি। দলটিতে স্বদেশী ডোয়েন ব্র্যাভো’র স্থলাভিষিক্ত হন। ১৮ মে, ২০০৮ তারিখে ডেকান চার্জার্সের বিপক্ষে খেলা শেষে জাতীয় দলে খেলার জন্য জাতীয় দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে দেশে ফিরে যান।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

জানুয়ারি, ২০০৫ সালে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরিয়নে অনুষ্ঠিত সিরিজের পঞ্চম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৬/৮১ বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান।[২] ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পূর্ব-পর্যন্ত এটিই তার সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ছিল। এপ্রিল, ২০০৫ সালে কেনসিংটন ওভালে অনুষ্ঠিত সিরিজের তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৬/৩২ নিয়ে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং করেন। এরপূর্বে প্রথম ইনিংসে আরও ৪ উইকেট পেয়েছিলেন তিনি।[৩] ফলশ্রুতিতে টেস্টে প্রথমবারের মতো দশ উইকেট লাভের কৃতিত্ব অর্জনের পাশাপাশি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন আন্দ্রে নেল।

এরপর ২০০৫ সালের শেষদিকে অস্ট্রেলিয়া সফরে যান ও ১৪ উইকেট পান। ঐ বছরে ২০.৭২ গড়ে ৩৬ উইকেট শিকার করেন তিনি। [৪] ওয়েস্ট ইন্ডিজেরর খ্যাতিমান ব্যাটসম্যান ব্রায়ান লারা তার প্রিয় শিকারে পরিণত হয়েছিলেন। সর্বমোট ৮বার তাকে আউট করেন।[৫]

২০০৭ সালে পাকিস্তান সফরে যান আন্দ্রে নেল। করাচীতে অনুষ্ঠিত ব্যাংক আলফালাহ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে অংশগ্রহণ করেন তিনি।[৬] ঐ টেস্টে ১১শ দক্ষিণ আফ্রিকান হিসেবে শততম টেস্ট উইকেট লাভের সবিশেষ কৃতিত্বের অধিকারী হন তিনি।[৭] ৫ অক্টোবর, ২০০৭ তারিখে পাকিস্তানী নাইটওয়াচম্যান মোহাম্মদ আসিফ তাঁর শততম টেস্ট উইকেট শিকারে পরিণত হন।

২০০৮ সালের শুরুতে পেসার চার্ল ল্যাঙ্গেভ্যাল্ট বিতর্কিতভাবে ভারত সফরের জন্য টেস্ট দলের সদস্যরূপে নেলের স্থলাভিষিক্ত হন। ব্যাপকভাবে বিশ্বাস করা হয় যে, ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা কর্তৃপক্ষ পুণর্গঠন নীতি বাস্তবায়নকল্পে আরও অ-শ্বেতাঙ্গ খেলোয়ারদেরকে নির্বাচিত করার লক্ষ্যেই তাকে বাদ দেয়া হয়েছিল। তবে ল্যাঙ্গেভেল্ট নির্বাচকমণ্ডলীর ইচ্ছার প্রতিফলনরূপে জানান। জানা যায় যে, নেল অবসরগ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।[৮]

বিতর্কিত ভূমিকা[সম্পাদনা]

মাঠ ও মাঠের বাইরে আন্দ্রে নেল বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন। খেলোয়াড়ী জীবনে আইসিসির আইন-শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে বেশ কয়েকবার জরিমানার সম্মুখীন হন তিনি।

ফেব্রুয়ারি, ২০০১ সালে ঘরোয়া ক্রিকেটের খেলায় অ্যালান ডোনাল্ডকে মারাত্মক ধরনের বাউন্সার দিয়ে শিরোনামে চলে আসেন। পরবর্তীকালে জানা যায় যে, কোচ রে জেনিংসের পরামর্শক্রমে তিনি এ কাজটি করেছিলেন।[৯] ঐ বছরের শেষদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যান। এ সফরে তিনিসহ দলের আরও চারজন খেলোয়াড়কে মারিজুয়ানা সেবনের দায়ে অভিযুক্ত করা হয়।[১০]

২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা এ দলের সদস্য হিসেবে অস্ট্রেলিয়া গমন করেন। কিন্তু মাতাল অবস্থায় গাড়ী চালনাকালে স্বদেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়।[১১] ২০০৫ সালে মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত বক্সিং ডে টেস্টে অংশ নেন। বে ১৩ সংগঠনের আফ্রিকানার সমর্থকদের কাছে বর্ণবৈষম্যবাদী হিসেবে আখ্যায়িত হন তিনি।

মাঠে ক্রিস গেইলের সাথে তার উস্কানিধর্মী কার্যকলাপ ও আগ্রাসী ভূমিকার কারণে ম্যাচ রেফারি কর্তৃক দোষী সাব্যস্ত হন ও ম্যাচ ফি’র অর্ধেক জরিমানা গুণতে হয় তাকে।[১২] এছাড়াও ব্যাটসম্যানদেরকে আগ্রাসীভাবে উদ্দেশ্য প্রণোদিত মৌখিক বিবাদে জড়ানোরও নজীর রয়েছে তার। তেমনি একটি ঘটনা ঘটে ২০০৬ সালে সফরকারী ভারতের বিপক্ষে। প্রথম টেস্টে ভারতীয় বোলার শ্রীশান্তকে লক্ষ্য করে শরীরের ঊর্ধ্বাংশে আক্রমণাত্মক বোলিং করেন। নেল ধারনা করেছিলেন যে, শ্রীশান্তের হয়তোবা বল মোকাবেলা করার তেমন সাহস নেই। নেলের পরবর্তী বলে শ্রীশান্ত লং অফে ছক্কা হাঁকানোর পর নেলকে উদ্দেশ্য করে বুনো নৃত্য করেন।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

টেস্টে ৫-উইকেট[সম্পাদনা]

# পরিসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ বছর
৫/৮৭  ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিউল্যান্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড কেপ টাউন দক্ষিণ আফ্রিকা ২০০৪
৬/৮১ ১১  ইংল্যান্ড সুপারস্পোর্ট পার্ক সেঞ্চুরিয়ন দক্ষিণ আফ্রিকা ২০০৫
৬/৩২ ১৫  ওয়েস্ট ইন্ডিজ কেনসিংটন ওভাল ব্রিজটাউন বার্বাডোস ২০০৪

টেস্টে ১০-উইকেট[সম্পাদনা]

# পরিসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ সাল
১০/৮৮ ১৫  ওয়েস্ট ইন্ডিজ কেনসিংটনওভাল ব্রিজটাউন বার্বাডোস ২০০৪

ওডিআইয়ে ৫-উইকেট[সম্পাদনা]

# পরিসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ সাল
৫/৪৫ ৫৮  বাংলাদেশ প্রভিডেন্স স্টেডিয়াম প্রভিডেন্স গায়ানা ২০০৭

ওডিআইয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচ[সম্পাদনা]

# পরিসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ সাল
৫/৪৫ ৫৮  বাংলাদেশ প্রভিডেন্স স্টেডিয়াম প্রভিডেন্স গায়ানা ২০০৭

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১ অক্টোবর, ২০১০ তারিখে আন্দ্রে নেল আত্মহননের চেষ্টা চালান। তিন বা ততোধিক রমণীর সাথে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগই এর প্রধান কারণ ছিল। তন্মধ্যে, একজন পতিতা জানিয়েছেন যে, তার সাথে রাত্রিযাপন করেছেন।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]