বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জাতীয় চলচ্চিত্র শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার
পুরস্কার দেওয়া হয়বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদানের জন্য
অবস্থানঢাকা
দেশবাংলাদেশ
পুরস্কার দাতাবাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি
প্রথম পুরস্কার প্রদান১৯৭৫
শেষ পুরস্কার প্রদান২০১৫
বর্তমানে যার দ্বারা অনুষ্ঠিতজয়া আহসান
জিরো ডিগ্রী
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট

শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বাংলাদেশের চলচ্চিত্র অভিনেত্রীদের জন্য সর্বাপেক্ষা সম্মানীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার; যা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের অংশ হিসাবে ১৯৭৬ সাল থেকে প্রতি বছর দেওয়া হয়।[১]

বিজয়ী অভিনেত্রী[সম্পাদনা]

অপি করিম ২০০৪ সালে ব্যাচেলর চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেন।
শাবনূর ২০০৫ সালে দুই নয়নের আলো চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেন।
পূর্ণিমা ২০১০ সালে ওরা আমাকে ভাল হতে দিল না চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেন।

১৯৭০-এর দশক[সম্পাদনা]

বছর বিজয়ী অভিনেত্রী চলচ্চিত্র ভূমিকা তথ্যসূত্র
১৯৭৫ ববিতা বাঁদী থেকে বেগম চাঁদনী
১৯৭৬ ববিতা নয়নমনি মনি
১৯৭৭ ববিতা বসুন্ধরা ছবি
১৯৭৮ কবরী সারোয়ার সারেং বৌ জয়তুন
১৯৭৯ ডলি আনোয়ার সূর্য দীঘল বাড়ী জয়গুন

১৯৮০-এর দশক[সম্পাদনা]

বছর বিজয়ী অভিনেত্রী চলচ্চিত্র ভূমিকা তথ্যসূত্র
১৯৮০ শাবানা সখী তুমি কার
১৯৮১ কোন পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৮২ শাবানা দুই পয়সার আলতা কুসুম
১৯৮৩ শাবানা নাজমা নাজমা রহমান
১৯৮৪ শাবানা ভাত দে জরি
১৯৮৫ ববিতা রামের সুমতি নারায়ণী
১৯৮৬ অঞ্জনা রহমান
আনোয়ারা
পরিণীতা
শুভদা
-
শুভদা
১৯৮৭ শাবানা অপেক্ষা
১৯৮৮ রোজিনা জীবনধারা
১৯৮৯ শাবানা রাঙা ভাবী রোকেয়া

১৯৯০-এর দশক[সম্পাদনা]

বছর বিজয়ী অভিনেত্রী চলচ্চিত্র ভূমিকা তথ্যসূত্র
১৯৯০ শাবানা মরণের পরে সাথী
১৯৯১ শাবানা অচেনা মমতা
১৯৯২ ডলি জহুর শঙ্খনীল কারাগার রাবেয়া
১৯৯৩ চম্পা পদ্মা নদীর মাঝি মালা
১৯৯৪ বিপাশা হায়াত আগুনের পরশমণি রাত্রি
১৯৯৫ চম্পা অন্য জীবন
১৯৯৬ শাবনাজ নির্মম রানী
১৯৯৭ সুচরিতা হাঙর নদী গ্রেনেড বুড়ি
১৯৯৮ শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৯৯ শিমলা ম্যাডাম ফুলি ফুলি/শিমলা

২০০০-এর দশক[সম্পাদনা]

বছর বিজয়ী অভিনেত্রী চলচ্চিত্র ভূমিকা তথ্যসূত্র
২০০০ চম্পা উত্তরের খেপ
২০০১ মৌসুমী মেঘলা আকাশ মেঘলা [২]
২০০২ শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
২০০৩ পপি কারাগার পারুল
২০০৪ অপি করিম ব্যাচেলর সাথী
২০০৫ শাবনুর দুই নয়নের আলো আলো
২০০৬ নাজনীন হাসান চুমকি ঘানি ময়না
২০০৭ জাকিয়া বারী মম দারুচিনি দ্বীপ জরি [৩]
২০০৮ পপি মেঘের কোলে রোদ রোদেলা [৪]
২০০৯ পপি গঙ্গাযাত্রা সুধামনি

২০১০-এর দশক[সম্পাদনা]

বছর বিজয়ী অভিনেত্রী চলচ্চিত্র ভূমিকা তথ্যসূত্র
২০১০ পূর্ণিমা ওরা আমাকে ভাল হতে দিল না সেতু
২০১১ জয়া আহসান গেরিলা বিলকিস বানু [৫]
২০১২ জয়া আহসান চোরাবালি নবনী [৬]
২০১৩ মৌসুমী
শর্মী মালা
দেবদাস
মৃত্তিকা মায়া
চন্দ্রমুখী
পদ্ম
[২][৭]
২০১৪ মৌসুমী
বিদ্যা সিনহা সাহা মীম
তারকাঁটা
জোনাকির আলো
বুবু
কবিতা
[৮]
২০১৫ জয়া আহসান জিরো ডিগ্রী সোনিয়া [৯]

পুরস্কারের পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

একাধিকবার বিজয়ী[সম্পাদনা]

সংখ্যা বিজয়ী
শাবানা
ববিতা
চম্পা
পপি
মৌসুমী
জয়া আহসান

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. রাশেদ শাওন। "চার দশকে আমাদের সেরা চলচ্চিত্রগুলো"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২৮ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৪, ২০১২ 
  2. দীপক কুমার দ্বীপ। "একে একে দুই"দৈনিক কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৬, ২০১৫ 
  3. নাদিয়া সারওয়াত (অক্টোবর ২৫, ২০০৮)। "National Film Awards generate enthusiasm"দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৪, ২০১৫ 
  4. মেঘলা রহমান বৃষ্টি (ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১০)। "অভিনয়ে সেরা রিয়াজ ও পপি"দৈনিক কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৪, ২০১৫ 
  5. "'গেরিলা' ও নিজ সাফল্যে অভিভূত জয়া আহসান"ডয়েচে ভেলে। ১৫ জানুয়ারি ২০১৩। 
  6. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১২ : সেরা অভিনেতা শাকিব অভিনেত্রী জয়া"দৈনিক মানবকণ্ঠ। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩। 
  7. "Mousumi, Shormi Mala, Titas best actors, 'Mrittika Maya' best movie in 2013"বিডিনিউজ। মার্চ ১০, ২০১৫। 
  8. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪ : সেরা অভিনেতা ফেরদৌস অভিনেত্রী মৌসুমী ও মিম"দৈনিক আমার দেশ। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬। 
  9. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৫ : শ্রেষ্ঠ অভিনেতা শাকিব–মাহফুজ অভিনেত্রী জয়া"দৈনিক প্রথম আলো। ১৮ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]