বিপাশা হায়াত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিপাশা হায়াত
জন্ম (1971-03-23) ২৩ মার্চ ১৯৭১ (বয়স ৪৮)
জাতীয়তাবাংলাদেশবাংলাদেশী
শিক্ষাচারুকলায় স্নাতকোত্তর
যেখানের শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনয়, স্ক্রিপ্ট রচনা
দাম্পত্য সঙ্গীতৌকির আহমেদ (বি. ১৯৯৯)
সন্তান
পিতা-মাতাআবুল হায়াত (বাবা)
মাহফুজা খাতুন শিরিন (মা)
আত্মীয়নাতাশা হায়াত (বোন)
শাহেদ শরীফ খান (ভগ্নিপতি)
পুরস্কারজাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
এশীয় চারুকলা প্রদর্শনী পুরষ্কার

বিপাশা হায়াত (জন্ম: ২৩ মার্চ, ১৯৭১) একজন বাংলাদেশী অভিনেত্রী।[১] তাঁকে বাংলাদেশের টেলিভিশন, মঞ্চ ও চলচ্চিত্রের অন্যতম প্রধান অভিনেত্রী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তিনি বিখ্যাত টিভি অভিনেতা আবুল হায়াতের কন্যা। তাঁর ছোট বোন নাতাশা হায়াতও একজন টিভি অভিনেত্রী। বিপাশা হায়াত জনপ্রিয় অভিনেতা নাট্য ও চলচ্চিত্র পরিচালক তৌকির আহমেদের স্ত্রী। তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের মা।

অভিনয় জীবন[সম্পাদনা]

নব্বই এর দশকে জনপ্রিয় অনেক টিভি নাটকে অভিনয়ই তাঁকে বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান অভিনেত্রী হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছে । মঞ্চনাটকেও তিনি সমানভাবে সফল ছিলেন, কিন্তু বিয়ের পর মঞ্চনাটকে অভিনয় ছেড়ে দেন ।

চিত্রশিল্প[সম্পাদনা]

বিপাশা হায়াত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চারুকলায় স্নাতক পাশ করেন ।[২] তিনি তাঁর আঁকা ছবি প্রদর্শন করেন না বললেই চলে । ২০০৯ সালের মে মাসে তিনি তাঁর আঁকা ছবি এসিড আক্রান্ত নারীদের সাহায্যার্থে আয়োজিত প্রদর্শনীতে দান করেন ।[৩]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

তিনি দুটি মুক্তিযুদ্ধ সংক্রান্ত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন - আগুনের পরশমণিজয়যাত্রা । তাঁর প্রথম ছবি আগুনের পরশমণি পরিচালনা করেছেন হুমায়ুন আহমেদ । এ ছবিতে তিনি মুক্তিযুদ্ধে ঢাকা শহরে আটকে পড়া এক তরুণীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন । চরিত্রের নাম রাত্রি, যিনি এক গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা আলমকে (আসাদুজ্জামান নূর অভিনীত) ভালোবেসে ফেলেন । আলম যুদ্ধের সময় রাত্রিদের বাড়িতে আশ্রয়ের জন্যে আসেন । আলম নামের সেই গেরিলা যোদ্ধার প্রতি রাত্রির প্রেম যুদ্ধের সময় গেরিলা যোদ্ধাদের প্রতি সাধারণ মানুষের মমতা ও সমর্থনের প্রতিফলন । তৌকির আহমেদ পরিচালিত জয়যাত্রা চলচ্চিত্রে তাঁর চরিত্র ভিন্ন ধরণের । এ ছবিতে পাকিস্তানি সেনাদের আক্রমণ থেকে বাঁচতে পলায়নরত এক মধ্যবয়ষ্কা নারীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন, যে তার সন্তানকে হারিয়ে ফেলে । দুটি চলচ্চিত্রেই তাঁর অভিনয় দর্শক ও সমালোচকদের কাছে প্রশংসিত হয় । বিপাশা হায়াত আগুনের পরশমণি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্যে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]